উত্তরবঙ্গে ফিরলেন ভিন রাজ্যে আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকরা, স্বাগত জানাতে স্টেশনে মন্ত্রী

উত্তরবঙ্গে ফিরলেন ভিন রাজ্যে আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকরা, স্বাগত জানাতে স্টেশনে মন্ত্রী
বৃহস্পতিবার রাত ১১টা নাগাদ ট্রেন থেকে নামেন উত্তরের পাঁচ জেলার পরিযায়ীরা । আর মালদহ স্টেশনে নামে উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিন দিনাজপুর এবং মালদার পরিযায়ী শ্রমিকেরা ।

বৃহস্পতিবার রাত ১১টা নাগাদ ট্রেন থেকে নামেন উত্তরের পাঁচ জেলার পরিযায়ীরা । আর মালদহ স্টেশনে নামে উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিন দিনাজপুর এবং মালদার পরিযায়ী শ্রমিকেরা ।

  • Share this:

#নিউ জলপাইগুড়িঃ অবশেষে রাজ্যে ফিরলেন উত্তরবঙ্গের পরিযায়ী শ্রমিকেরা। হেঁটে বা বাস, লরিতে নয় । শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে  । বৃহস্পতিবার রাত ১১টা নাগাদ ট্রেন থেকে নামেন উত্তরের পাঁচ জেলার পরিযায়ীরা । আর মালদহ স্টেশনে নামে উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিন দিনাজপুর এবং মালদার পরিযায়ী শ্রমিকেরা । বুধবার বেঙ্গালুরু থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনটি ছাড়ে । রাজ্যের প্রায় দেড় হাজার শ্রমিক নিয়ে  বাংলায় ফেরে ট্রেনটি । তাতে দক্ষিনবঙ্গের এক হাজারের কিছু বেশী শ্রমিক ছিলেন । আর উত্তরের সাড়ে চারশোর কাছাকাছি।

প্রশাসনের হিসেব অনুযায়ী, ট্রেনে ছিলেন উত্তর দিনাজপুরের ৭১ জন, দক্ষিন দিনাজপুরের ২৩ জন, মালদার ১৮১ জন, কোচবিহারের ৯৬ জন, আলিপুরদুয়ারের ১৭ জন, জলপাইগুড়ির ৪০ জন, দার্জিলিংয়ের ৬ জন এবং সাধারণ ৭ জন । রাতে এনজেপি স্টেশনে ট্রেন পৌঁছতেই এক এক করে নামেন পরিযায়ীরা । যারা বেঙ্গালুরুতে কেউ বাস প্রস্তুতকারী কারখানায় কাজ করতেন। কেউ আবার হিরের গয়না তৈরীর কারখানায় ।

করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে লকডাউন  চালু হওয়ায় বিপাকে পড়েন তাঁরা । কাজ নেই । ফলে হাতে অর্থ নেই । ছিল না খাবারও । মহা সংকটের মুখে পড়েন সকলেই । আর তাই হাজার হাজার পরিযায়ী শ্রমিক মাইলের পর মাইল হেঁটে রওনা দেন নিজের বাড়ির পথে । কেউ আবার ট্রেন লাইন ধরে হেঁটে । ক্লান্ত শরীর নিয়ে। কেউ আবার শিশু, স্ত্রী-সহ গোটা পরিবারকে নিয়ে। এরপর ভারতীয় রেল শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয় । ইতিমধ্যেই প্রচুর শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন বিভিন্ন রাজ্যে পৌঁছেছে পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে ।


বৃহস্পতিবার উত্তরবঙ্গে প্রথম পৌঁছয় স্পেশাল ট্রেনটি । রাতে এনজেপি স্টেশনে যান রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেবও । খোঁজখবর নেন নিজেই । ট্রেন থেকে পরিযায়ী শ্রমিকেরা পৌঁছনোর পরই তিনি ফেরেন । ফিরে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের স্টেশনেই থার্মাল চেকিং করা হয় । তারপর রাতের খাবার, পানীয় জল তুলে দেওয়া হয় । এরপর উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার বাসে সামাজিক দূরত্ব মেনেই কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি এবং দার্জিলিং জেলার পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানো হয় । আপাতত প্রতিটি শ্রমিককেই নিজেদের জেলায় কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হবে । লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠান হবে পরিক্ষার জন্য । তবে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে থাকতে হলে, নিজের রাজ্যে ফিরে স্বস্তি ফিরেছে সকলেরই ।

Partha Sarkar

Published by:Shubhagata Dey
First published:

লেটেস্ট খবর