স্ত্রীর পর নিজেও করোনা আক্রান্ত, ৭ মাসের ছেলেকে রাস্তায় ফেলে পালানোর চেষ্টা বাবার

শিশুটিকে কোলে নিয়ে ৭০ নম্বর ওয়ার্ড কো- অর্ডিনেটর অসীম বসু৷

এ দিকে সকাল থেকে শিশুটি এবং তার বাবার খোঁজ না পেয়ে কাঁকুড়গাছি এলাকার বাসিন্দা ওই পরিবার ফুলবাগান থানায় অভিযোগ দায়ের করে৷

  • Share this:

#কলকাতা: প্রায় দু' সপ্তাহ ধরে করোনা আক্রান্ত ছিলেন স্ত্রী৷ সাত মাসের শিশুপুত্রের দেখাশোনা করছিলেন স্বামী৷ কিন্তু বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই ব্যক্তির করোনা পরীক্ষার রিপোর্টও পজিটিভ আসে৷ আর তার পর এ দিন সকালেই ৭ মাসের ওই শিশুপুত্রকে কলকাতার পথে ফেলে পালানোর চেষ্টা করলেন বাবা৷ শেষ পর্যন্ত স্থানীয় বাসিন্দা, ওয়ার্ড কো অর্ডিনেটর এবং পুলিশের উদ্যোগে শিশুটিকে উদ্ধার করে তার মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে৷ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে শিশুটির বাবাকে৷

এ দিন সকালে ঘটনার সূত্রপাত দক্ষিণ কলকাতার ৬ নম্বর এলগিন রোডে৷ স্থানীয় বাসিন্দারা হঠাৎই দেখেন, একটি শিশুকে ফুটপাথে ফেলে পালানোর চেষ্টা করছেন এক ব্যক্তি৷ সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয়রা ওই ব্যক্তিকে ধরে ফেলেন৷ খবর দেওয়া হয় কলকাতা পুরসভার ৭০ নম্বর ওয়ার্ডের কো-অর্ডিনেটর অসীম বসুকে৷

শিশুটি এবং তার সঙ্গে থাকা ব্যক্তিকে উদ্ধার করে ভবানীপুর থানার পুলিশ৷ ওই ব্যক্তি নিজের নাম বলতে পারলেও বাড়ির ঠিকানা বলতে পারছিলেন না৷ নিজেকে আইনজীবী বলেও দাবি করেন ওই ব্য়ক্তি৷ শিশুটিকে নিজের বাড়িতে নিয়ে যান অসীমবাবু৷ দেখা যায়, শিশুটির সঙ্গে থাকা ব্যক্তি অসংলগ্ন আচরণ করছেন৷ কখনও নিজের গায়েই নিজে জল ঢালতে থাকেন তিনি৷ শিশুটির ছবি দিয়ে সামাজিক মাধ্যমে তাঁর পরিবারের খোঁজ শুরু করেন ওয়ার্ড কো- অর্ডিনেটর অসীমবাবু৷ খবর ছড়িয়ে পড়ে সংবাদমাধ্যমেও৷

এ দিকে সকাল থেকে শিশুটি এবং তার বাবার খোঁজ না পেয়ে কাঁকুড়গাছি এলাকার বাসিন্দা ওই পরিবার ফুলবাগান থানায় অভিযোগ দায়ের করে৷ পরে সংবাদমাধ্যমে শিশুটির খবর জানতে পেরে তার পরিবারকে নিয়ে ভবানীপুরে হাজির হয় পুলিশ৷ শিশুটির মায়ের দাবি, এর আগে কখনওই তাঁর স্বামীর কোনও মানসিক সমস্যা ছিল না৷ এ দিন সকালে আচমকাই তিনি শিশুটিকে নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান৷ প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে, স্ত্রীর পরে নিজেও করোনা আক্রান্ত হয়ে মানসিক ভারসাম্য হারান ওই ব্যক্তি৷ শেষ পর্যন্ত শিশুটিকে তার মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হয়৷ অসুস্থ ওই ব্যক্তিকে ঢাকুরিয়ার আমরি হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করা হয়৷ শিশুটিকে নিয়ে কাঁকুড়গাছির বাড়িতে ফিরে যান করোনা আক্রান্ত মা৷

Biswajit Saha
Published by:Debamoy Ghosh
First published: