বিনা পরামর্শে করোনা আটকাতে গলায় ক্লোরোকুইনাইন, প্রাণ গেল বৃদ্ধর

বিনা পরামর্শে করোনা আটকাতে গলায় ক্লোরোকুইনাইন, প্রাণ গেল বৃদ্ধর
ভুলেও নিজের চিকিৎসার দায়িত্ব নিজের কাঁধে নয়। প্রতীকী চিত্র

শুক্রবার নিজের বিবৃতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহৃত হওয়া ম্যালেরিয়ার ওষুধ ক্লোরোকুইনাইন ও হাইড্রোক্লোরোকুইনাইন রোগীদের চিকিৎসায় ব্যবহার করা যেতে পারে।

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: ম্যালেরিয়ার প্রতিষেধক ক্লোরোকুইনিন ফসফেটের ব্যবহার করে করোনা সংক্রমণের চিকিৎসা করা হচ্ছে। হোয়াইট হাউজ থেকে এমনটাই ঘোষণা করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই ঘোষণাই কাল হল। করোনা সারানোর ঘরোয়া দাওয়াই হিসেবে সেই ক্লোরোকুইনাইন সেবন করে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির। তাঁর স্ত্রীও হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।‌ আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, মাছের অ্যাকোরিয়ামে জল শোধনের জন্য ব্যবহৃত এক রাসায়নিকে ক্লোরোকুইনিন উপাদান রয়েছে দেখে তাই খেয়ে ফেলেছিলেন ওই দম্পতি।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, এই দম্পতি আদৌ করোনা আক্রান্ত ছিলেন না। সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে এই 'টোটকা' বেছে নেন তাঁরা। তারপরেই মাথাঘোরা, ঘনঘন বমি হওয়ার মতো উপসর্গ দেখা দিতে থাকে। তখন তড়িঘড়ি তাঁদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই হৃদযন্ত্র বিকল হয়ে গিয়ে মারা যান ওই দুই ব্যক্তি।

এই দম্পতিকে যে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল, সেই ব্যানার পয়জন অ্যান্ড ড্রাগ ইনফরমেশান সেন্টারের ডিরেক্ট ড্যানিয়েল ব্রুকস বলেন," এ এক সাংঘাতিক প্রবণতা। করোনার কোনও চটজলদি দাওয়াই নেই। নেই কোনও ঘরোয়া সমাধান। এই ধরনের পদক্ষেপ প্রাণঘাতী হয়ে উঠছে।" করোনা র উপসর্গ দেখা দিলে সরাসরি নমুনা পরীক্ষারও নিদান দেন তিনি।

শুক্রবার নিজের বিবৃতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহৃত হওয়া ম্যালেরিয়ার ওষুধ ক্লোরোকুইনাইন ও হাইড্রোক্লোরোকুইনাইন রোগীদের চিকিৎসায় ব্যবহার করা যেতে পারে। ওই একই সভায় জাতীয় সংক্রমণ ও অ্যালার্জি সংস্থার ডিরেক্টর অ্যান্টনি এস ফুসি বলেন, এই ড্রাগটি পরীক্ষামূলক ভাবে প্রয়োগ করা হয়েছ। একেই করোনা ভাইরাস চিকিৎসার কারণ নেই।

First published: March 24, 2020, 12:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर