Mamata Banerjee: প্রয়োজন আরও ৫.৪ কোটি ডোজ ভ্য়াকসিন, তিন দাবি নিয়ে মোদিকে চিঠি মমতার

Mamata Banerjee: প্রয়োজন আরও ৫.৪ কোটি ডোজ ভ্য়াকসিন, তিন দাবি নিয়ে মোদিকে চিঠি মমতার

পর্যাপ্ত সংখ্য়ক ভ্যাকসিন চেয়ে মোদিকে চিঠি মমতার৷

  • Share this:

    #কলকাতা: রাজ্যে করোনা (Coronavirus in Bengal) পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অবিলম্বে ভ্যাকসিনের (Covid 19 Vaccine) জোগান বাড়ানো এবং নিয়মিত করার দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে (PM Narendra Modi) চিঠি লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)৷ একই সঙ্গে করোনার চিকিৎসায় গুরুত্বপূর্ণ দু'টি ওষুধেরও অবিলম্বে জোগান বৃদ্ধির দাবি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ পাশাপাশি অক্সিজেনের সরবরাহে যাতে কোনও সমস্যা না হয়, সেই বিষয়টি দেখার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

    চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন, সরাসরি রাজ্য সরকারের মাধ্যমে ভ্যাকসিন দেওয়ার অনুমতি চেয়ে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছিলেন তিনি৷ কিন্তু সেই অনুমতি এখনও মেলেনি৷ অথচ কেন্দ্রীয় সরকার যে ভ্যাকসিন সরবরাহ করছে তা সংখ্যায় অপর্যাপ্ত এবং জোগানও অনিয়মিত৷ যার ফলে রাজ্য অগ্রণী ভূমিকা নিলেও টিকাকরণের গতি কমছে৷ চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট লিখেছেন, 'কলকাতার মতো ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় দ্রুত হারে এবং নির্দিষ্ট পরিকল্পনা অনুযায়ী টিকাকরণ চালানোটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে ভ্যাকসিনের সরবরাহ অপর্যাপ্ত এবং অনিয়মিত৷ যার ফলে আমাদের রাজ্যের টিকাকরণ কর্মসূচিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে৷ আমাদের আরও ২.৭ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দিতে হবে, তার জন্য ৫.৪ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন প্রয়োজন৷ রাজ্য যাতে প্রয়োজনীয় সংখ্যক ভ্যাকসিন পায়, তার জন্য অবিলম্বে আপনাকে হস্তক্ষেপ করতে অনুরোধ করছি৷'

    মুখ্যমন্ত্রী আরও অভিযোগ করেছেন, করোনার চিকিৎসায় প্রয়োজনীয় দুই ওষুধ রেমডেসিভির এবং টোসিলিজুমাবের সঙ্কটও তৈরি হচ্ছে রাজ্যে৷ দৈনিক রাজ্যে রেমডিসিভির-এর ৬ হাজার ভায়াল এবং টোসিলিজুমারের ১ হাজার ভায়াল প্রয়োজন৷ সেখানে রাজ্যের হাতে এই মুহূর্তে রেমডেসিভির-এর মাত্র ১০০০ ভায়াল রয়েছে৷ আর টোসিলিজুমার নতুন করে সরবরাহ করা হচ্ছে না৷ এই দু'টি ওষুধেরই সরবরাহ অবিলম্বে শুরু করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যাতে উদ্যোগী হয়, সেই অনুরোধও করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

    সবশেষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা সেল-এর নিয়মিত অক্সিজেন সরবরাহ করছে রাজ্যে৷ এই সরবরাহ যাতে অব্যাহত থাকে, তা নিশ্চিত করতেও প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, করোনা অতিমারিকে নিয়ন্ত্রণে আনতে নিজেদের সব পরিকাঠামো ব্যবহার করে কেন্দ্রকে সব রকম সাহায্যে তৈরি রাজ্য সরকার৷

    Kamalika Sen Gupta
    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: