corona virus btn
corona virus btn
Loading

পথ দেখাচ্ছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন, লকডাউনে অনলাইন ক্লাস নয় ভিডিও রেকর্ডিং করে ৫০% সিলেবাস শেষ করতে চলেছে মিশন

পথ দেখাচ্ছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন, লকডাউনে অনলাইন ক্লাস নয় ভিডিও রেকর্ডিং করে ৫০% সিলেবাস শেষ করতে চলেছে মিশন

ক্লাস নেওয়ার পদ্ধতিতেও নজির তৈরি করেছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন। কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে এইভাবে ক্লাস নেওয়ার দরুন অন্তত জুনের ১০ তারিখের মধ্যে প্রত্যেকটি ক্লাসের ৫০% সিলেবাস শেষ করা সম্ভব হবে।

  • Share this:

কলকাতা: অনলাইন নয়, তবে শিক্ষকদের পড়ানোর ভিডিও আপলোড করে পথ দেখাচ্ছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন। পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত প্রত্যেকটি ক্লাসের প্রত্যেকটি বিষয়ের ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। তবে অনলাইনের মাধ্যমে নয়, শিক্ষকদের  পড়ানোর বিষয়গুলি ভিডিও রেকর্ডিং করে সোশ্যাল সাইট মারফত পাঠানো হচ্ছে ছাত্রদের।

নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের বাংলা ও ইংরেজি দুই মাধ্যমের ছাত্রদের জন্যই এই ব্যবস্থা করা হয়েছে। নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের ছাত্ররা রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত ও অন্যান্য রাজ্য থেকেও রয়েছে। তাই একসঙ্গে অনলাইনে ক্লাস নেওয়া সম্ভব ছিল না নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন কর্তৃপক্ষের। যার জেরে ক্যামেরা তে শিক্ষকদের পড়ানোর বিষয় রেকর্ডিং করে তা সোশ্যাল সাইট মারফত আপলোড করে প্রত্যেক ছাত্রদের কাছে পাঠানো হচ্ছে।

এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ থেকেই এই পদ্ধতিতে ক্লাস নেওয়া শুরু করেছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন কর্তৃপক্ষ। অন্তত জুনের ১০ তারিখ পর্যন্ত প্রত্যেকটি ক্লাসের ৫০% সিলেবাস শেষ করা সম্ভব হবে বলেই জানাচ্ছেন নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের প্রধান শিক্ষক ব্রহ্মচারী তুরীয়চৈতন্য। এ বিষয়ে বলতে গিয়ে তিনি জানাচ্ছেন " আমাদের ছাত্ররা রাজ্যের  বিভিন্ন প্রান্ত এমনকি অন্যান্য রাজ্য থেকেও পড়তে আসেন। তাই আমরা বিভিন্ন বিষয়ের শিক্ষকদের পড়ানোর রেকর্ডিং করে সোশ্যাল সাইট মারফত ছাত্রদের কাছে পাঠাচ্ছি। বিভিন্ন ক্লাসের ছাত্রদের যদি শিক্ষকদের পড়ানো থেকে বুঝতে কোন অসুবিধা হয় তাহলে ছাত্ররা শিক্ষকদের সঙ্গে তাদের প্রশ্ন করে উত্তর জেনে নিচ্ছেন। আমরা আশা রাখছি সিলেবাসের অর্ধেক অংশ আমরা জুনের ১০ তারিখের মধ্যেই শেষ করতে পারবো।" তবে পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত ভিডিও রেকর্ডিং করে আপলোড করে ক্লাস নেওয়া হলেও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের পড়ুয়াদের অনলাইনেই ক্লাস নিচ্ছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন।

মাধ্যমিক বা উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা প্রত্যেকটি ক্ষেত্রেই নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের ছাত্রদের জয়জয়কার থাকে। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের মেধাতালিকায় কমবেশি প্রত্যেকবারই নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের ছাত্রদের স্থান থাকে। মার্চ মাসের তৃতীয় সপ্তাহ থেকেই রাজ্যের স্কুল,কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলি বন্ধ রয়েছে করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে। কিন্তু বন্ধ থাকলেও এপ্রিলের গোড়া থেকেই মিশনের ছাত্রদের ক্লাস নিতে শুরু করেছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন কর্তৃপক্ষ। এখনও পর্যন্ত সিলেবাসের বেশ কিছু অংশ পড়ানো হয়ে গেছে বলেই জানাচ্ছে মিশন কর্তৃপক্ষ। তবে ক্লাস নেওয়ার পদ্ধতিতেও নজির তৈরি করেছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন।

পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত আলাদা আলাদা বিষয় অধ্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ অংশ ধরে ধরে ক্লাস রুমে বসেই শিক্ষকদের পড়ানোর ভিডিও রেকর্ডিং করা হচ্ছে। অর্থাৎ যেভাবে একজন শিক্ষক ক্লাসরুমে পড়ান এক্ষেত্রেও ঠিক সেই ভাবেই পড়াচ্ছেন মিশনের শিক্ষকরা। তারপর শিক্ষকদের পড়ানোর ভিডিও রেকর্ডিং করে সোশ্যাল সাইট মারফত ছাত্রদের কাছে পাঠানো হচ্ছে। এই মুহূর্তে সবমিলিয়ে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের ৯৫০জন ছাত্র আছে। যার মধ্যে অর্ধেক ছাত্র বাংলা মাধ্যমে ও বাকি ছাত্ররা ইংরেজি মাধ্যমে পড়াশোনা করেন। প্রত্যেকটি ক্ষেত্রেই এইভাবে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। তবে সে ক্ষেত্রে ছাত্রদের পড়ানোর বিষয় বুঝতে অসুবিধা হলে শিক্ষকদের কাছে প্রশ্ন পাঠিয়ে দিচ্ছেন ছাত্ররা।

এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের সম্পাদক স্বামী সর্বলোকান্দ বলেন " যেভাবে অনলাইনে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে তার জন্য আমি ধন্যবাদ জানাই নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের সব শিক্ষকদের। আমরা এই ক্লাসের মাধ্যমে ছাত্রদের কাছ থেকে খুব ভালো সাড়া পেয়েছি।" নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে এইভাবে ক্লাস নেওয়ার দরুন অন্তত জুনের ১০ তারিখের মধ্যে প্রত্যেকটি ক্লাসের ৫০% সিলেবাস শেষ করা সম্ভব হবে। তবে স্কুল খুললে শিক্ষকদের ভিডিও রেকর্ডিং এর মাধ্যমে পড়ানো কোনও বিষয়ে নিয়ে ছাত্ররা যদি আবারও শিক্ষকদের ক্লাস নিতে বলেন সেটাও নেওয়া হবে বলে জানাচ্ছে নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন কর্তৃপক্ষ।

Somraj Bandopadhyay

Published by: Elina Datta
First published: May 4, 2020, 2:44 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर