• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • শহরের ভিতর শিলিগুড়ি ইণ্ডোর স্টেডিয়ামে সেফ হোম নিয়ে আপত্তি, পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে তুমুল বচসা

শহরের ভিতর শিলিগুড়ি ইণ্ডোর স্টেডিয়ামে সেফ হোম নিয়ে আপত্তি, পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে তুমুল বচসা

সংক্রমণ ছড়াতে পারে এই আশঙ্কায় বিক্ষোভ দেখায় ওয়ার্ডের বাসিন্দারা।

সংক্রমণ ছড়াতে পারে এই আশঙ্কায় বিক্ষোভ দেখায় ওয়ার্ডের বাসিন্দারা।

সংক্রমণ ছড়াতে পারে এই আশঙ্কায় বিক্ষোভ দেখায় ওয়ার্ডের বাসিন্দারা।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: করোনার চিকিৎসায় শহরে চালু হচ্ছে সেফ হোম। আর এনিয়েই আজ চরম বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে স্থানীয় বাসিন্দা এবং পুলিশ কর্মীরা। পুরসভার ২৯ নং ওয়ার্ডে ইণ্ডোর স্টেডিয়ামে ১০০ বেডের সেফ হোম তৈরি করা হচ্ছে। প্রথমে বাধা দেয় স্থানীয় বাসিন্দারা। সংক্রমণ ছড়াতে পারে এই আশঙ্কায় বিক্ষোভ দেখায় ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। অধিকাংশই সিপিএমের সমর্থক বলে অভিযোগ উঠেছে।

পুলিশ ও মহকুমা শাসক ঘটনাস্থলে পৌঁছলে বাধা দেয় স্থানীয়রা। তাদের দাবী, জনবহুল এলাকা থেকে সরিয়ে অন্যত্র সেফ হোম করা হোক। পাশেই বাজার রয়েছে। প্রচুর মানুষের বসবাস। তাই আপত্তি তুলেছে ২৯ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। এর আগে এই ইণ্ডোর স্টেডিয়ামে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার করার উদ্যোগ নেয় জেলা প্রশাসন। সেই সময়েও বাধা দেওয়া হয়। পরবর্তীতে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার আর করা হয়নি এই স্টেডিয়ামকে।

এবারে আক্রান্তের গ্রাফ ঊর্ধমুখী হওয়ায় শহরে চিকিৎসার জন্যে প্রয়োজন সেফ হোম। সম্প্রতি করোনা মোকাবিলায় গঠিত জেলা টাস্ক ফোর্সের সভাতেই ঠিক হয় শহরে আরো সেফ হোম করা হবে। কেননা করোনার চিকিৎসায় সাড়া দিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠার পর ছুটি না দিয়ে তাদের এই ধরনের সেফ হোমে রাখা হবে। তাতে কোভিড হাসপাতালে বেডের সংখ্যা বাড়বে। চিকিৎসায় গতি আসবে।

মাটিগাড়া ব্লকেও একটি সেফ হোম চালু করা হবে। সেখানে ১৫০ বেডের ব্যবস্থা করা হবে। তেমনি পুরসভার ১৪টি সংযোজিত ওয়ার্ডের জন্যে আরো ১০০ বেডের সেফ হোম চালু করা হবে। পাশাপাশি শিলিগুড়ি শহর লাগোয়া ডাবগ্রাম এবং ফুলবাড়ির বাসিন্দাদের জন্যে আরো একটি সেফ হোম তৈরী করা হবে। এনিয়ে জলপাইগুড়ি জেলা প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলবেন দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক। শিলিগুড়ির মহকুমা শাসক সুমন্ত সহায় জানান, স্থানীয়রা প্রথমে আপত্তি তুলেছিল। পরবর্তীতে আলোচনার মাধ্যমে সব মিটে গিয়েছে। এখন তো অনেকের ঘরেই আক্রান্ত বাড়ছে। স্থানীয়রা বুঝতে পারছে। কিছু প্রশাসনিক কাজ বাকি। শীঘ্রই এই সেফ হোম চালু করা হবে।

Partha Pratim Sarkar

Published by:Elina Datta
First published: