‘চেষ্টা করুন, বাচ্চাদের মতো কাঁদবেন না’; অক্সিজেনের চাহিদা নিয়ে দিল্লি সরকারকে তোপ কেন্দ্রের

‘চেষ্টা করুন, বাচ্চাদের মতো কাঁদবেন না’; অক্সিজেনের চাহিদা নিয়ে দিল্লি সরকারকে তোপ কেন্দ্রের

অক্সিজেনের অভাবে ধুঁকছে দিল্লি ।

দিল্লি সরকারের পক্ষে আইনজীবী কোর্টকে জানান যে, ৪৮০ টন অক্সিজেন না পেলে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হাসপাতালগুলির ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে ৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনার 'সেকেন্ড ওয়েভে' বেসামাল বাংলা। আর রাজধানী দিল্লিতে (Delhi Covid-19) আছড়ে পড়েছে সংক্রমণের 'ফোর্থ ওয়েভ'। বেলাগাম দিল্লির করোনা পরিস্থিতি ৷ লকডাউন ঘোষণা করা সত্ত্বেও পরিস্থিতি বেশ সঙ্কটজনক ৷ লাগাতার বাড়তে থাকা সংক্রমণের জেরে গত ২৫ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৫৭ জনের ৷ আক্রান্ত হয়েছে ২৪১০৩ জন ৷ পজিটিভিটি রেট ৩২.২৭ শতাংশ ৷ এখনও পর্যন্ত অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা হয়ে গিয়েছে ৯৩০৮০ ৷ হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে শুয়ে অক্সিজেনের অভাবে (Oxygen Shortage) প্রাণ যাচ্ছে একের পর এক মানুষের । নেই চিকিৎসক, নেই হাসপাতাল, নেই অক্সিজেন, শ্মশানের চুল্লি নিভছে না, জায়গা নেই কবরস্থানেও । ভয়াবহ, বিভীষিকায় কাঁপছে দেশের রাজধানী ।

    দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal) কেন্দ্রের কাছে কাতর আর্জি জানিয়েছেন অক্সিজেন পাঠানোর জন্য । কেন্দ্র সাহায্যের হাতও বাড়িয়ে দিয়েছে । কিন্তু তাতেও মিটছে না চাহিদা । অসহায় পরিস্থিতি চারিদিকে ৷ কোথাও হাসপাতালে বেড নেই তো কোথাও অক্সিজেনের কমতি ৷ শুক্রবার অক্সিজেনের অভাবে গুরুতর অসুস্থ ২৫ জন কোভিড রোগীর মৃত্যু হয়েছে ৷ হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে শুয়ে অক্সিজেনের অভাবে (Oxygen Shortage) প্রাণ যাচ্ছে একের পর এক করোনা রোগীর (Coronavirus Positive)।

    এ দিকে রাজধানীতে কতটা অক্সিজেন সরবরাহ করবে কেন্দ্র সেই প্রেক্ষিতে মামলা দায়ের হয়েছে দিল্লি আদালতে । এ দিন এই মামলার শুনানি চলাকালীন বিষয়টি নিয়ে জোরদার তর্ক হয় কোর্টেই ৷ দিল্লি সরকারের পক্ষে আইনজীবী কোর্টকে জানান যে, ৪৮০ টন অক্সিজেন না পেলে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হাসপাতালগুলির ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে ৷ শুক্রবার মাত্র ২৯৭ টন অক্সিজেন পেয়েছে দিল্লি ৷ দিল্লি কত পরিমাণ অক্সিজেন পাবে আর কী ভাবে তা দেওয়া হবে, সে নিয়ে কেন্দ্রের কাছ থেকে বিস্তারিত উত্তর চেয়েছে দিল্লি সরকার ৷ দিল্লি সরকারের প্রয়োজনকে গুরুত্ব দিতে কেন্দ্রকে নির্দেশ দেয় দিল্লি হাইকোর্ট ৷ সেই সময় দিল্লি সরকারের এই অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়ে কেজরিওয়ালের নিষ্ক্রিয়তাকেই তুলে ধরার চেষ্টা করেন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা ৷

    দিল্লি সরকারের তরফে আইনজীবী রাহুল মেহরা দিল্লি হাইকোর্টে অভিযোগ তোলেন যে, অক্সিজেনের সরবরাহ নিয়ে দিল্লি সরকারের সঙ্গে সহযোগিতা করছে না কেন্দ্রীয় সরকার ৷ তার জবাবে তুষার মেহতা উত্তর দেন, "আমি আমার দায়িত্ব জানি ৷ আমি আরও অনেক কিছুই জানি, কিন্তু কিছুই বলছি না ৷ চেষ্টা করে যান, কিন্তু বাচ্চাদের মতো কাঁদবেন না ৷"

    Published by:Simli Raha
    First published: