করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

দারুণ সুখবর! গত ২৪ ঘণ্টায় কোনও করোনা আক্রান্তের হদিশ মেলেনি বর্ধমানে

দারুণ সুখবর! গত ২৪ ঘণ্টায় কোনও করোনা আক্রান্তের হদিশ মেলেনি বর্ধমানে

নতুন বছর শুরুর মুখে সুখবর!

  • Share this:

#বর্ধমান: নতুন বছর শুরুর মুখে বর্ধমানবাসীর জন্য সুখবর! গত চব্বিশ ঘণ্টায় এই শহরে কোনও করোনা আক্রান্তের হদিশ মেলেনি। আর এতেই উদ্বেগ অনেকটাই কমেছে শহরের বাসিন্দাদের। করোনা সংক্রমণ কমায় দ্বিধাদ্বন্দ্ব কাটিয়ে অনেকেই বর্ষশেষের রাতে নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে ঘরের বাইরে যাওয়ার পরিকল্পনা তৈরি করছেন। তবে সংক্রমণ কমলেও এখনই সব রকম সচেতনতা দূরে সরিয়ে রাখার মত ভুল বাসিন্দারা যাতে না করেন সে ব্যাপারে সতর্ক করে দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা বলছেন, এখনও সমান সতর্ক থাকতে হবে। বাইরে বের হলে মাস্ক বা ফেস কভারে মুখ ঢাকতে হবে। আগের মতই হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে। সেইসঙ্গে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ক্ষেত্রে সচেতন থাকা জরুরি। নচেৎ ফের আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কিন্তু থেকেই যাচ্ছে।

চলতি মাসের গোড়াতেও করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছিল পূর্ব বর্ধমান জেলায়। তার সঙ্গে ব্যাপকভাবে সংক্রমণ উদ্বেগ বাড়াচ্ছিল জেলার সদর শহর বর্ধমানের বাসিন্দাদের। সেসময় প্রতিদিনই প্রায় গড়ে একশোর ওপর বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত হচ্ছিলেন। ইদানিং আক্রান্তের সংখ্যা পঞ্চাশের নিচে নেমে এসেছে। গত চব্বিশ ঘণ্টায় পূর্ব বর্ধমান জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন মাত্র এগারো জন। তারমধ্যে জেলার সদর শহর বর্ধমানে আক্রান্তের কোনও হদিশ মেলেনি।আক্রান্ত এগারো জনের মধ্যে কাটোয়া পৌরসভা এলাকায় দুইজন, ভাতারে দুজন, কালনা দু নম্বর ব্লকে দুজন আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া বর্ধমান দু'নম্বর ব্লক,কাটোয়া এক নম্বর ব্লক,কেতুগ্রাম এক নম্বর ব্লক, মেমারি এক নম্বর ব্লক,মেমারি দু'নম্বর ব্লকে একজন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

আরও পড়ুন ব্রিটেন ফেরত মহিলার শরীরে করোনা স্ট্রেন, আইসোলেশন সেন্টার থেকে পালিয়ে ট্রেনে করে পৌঁছলেন বাড়ি!

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে এদিন পর্যন্ত পূর্ব বর্ধমান জেলায় ১১ হাজার ৬৭০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১১ হাজার ৩১২ জন চিকিৎসার পর ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বর্তমানে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১৮৪ জন। এদিন পর্যন্ত এই জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ১৭৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। সংক্রমণে রাশ টানা গেলেও এখনও সমানভাবে সকলকে সচেতন থাকতে হবে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে বলে জানিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দফতর। জেলা স্বাস্থ্য দফতরের এক আধিকারিক জানান, ভ্যাকসিন না মেলা পর্যন্ত মুখ ঢেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা জরুরি। বাসিন্দাদের সতর্ক করতে জেলাজুড়ে এব্যাপারে প্রচার চালানো হচ্ছে।সেই সঙ্গে উপসর্গ দেখা থাকলে বাসিন্দাদের আগের মতই করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ, বর্ষশেষের পার্টিতে, হোটেল রেস্তোরাঁয় ভিড় এড়িয়ে চলাই ভালো। কারণ সেখান থেকে ফের সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা থাকছে।

Published by: Pooja Basu
First published: December 30, 2020, 12:14 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर