corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনার থাবা SBI কলকাতা সদর দফতরের অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজারের শরীরে

করোনার থাবা SBI কলকাতা সদর দফতরের অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজারের শরীরে
সংগৃহীত ছবি

কলকাতা তপসিয়ার বাসিন্দা ব্যাঙ্কের এই শীর্ষ আধিকারিক সম্প্রতি বদলি হয়ে কলকাতায় আসেন। কলকাতা স্ট্র্যান্ড রোডে এসবিআই সদর দফতর সমৃদ্ধি ভবনে তিনি কর্মরত ছিলেন।

  • Share this:

#কলকাতাঃ রাজ্যে চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীদের পাশাপাশি করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন পুলিশকর্মীরাও। এবার তাতে নবতম সংযোজন ব্যাঙ্কের শীর্ষ আধিকারিক। ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্ক বা এসবিআই-এর কলকাতা সদর দফতরের এজিএম এবার  করোনা আক্রান্ত হলেন।

কলকাতা তপসিয়ার বাসিন্দা ব্যাঙ্কের এই শীর্ষ আধিকারিক সম্প্রতি বদলি হয়ে কলকাতায় আসেন। কলকাতা স্ট্র্যান্ড রোডে এসবিআই সদর দফতর সমৃদ্ধি ভবনে তিনি কর্মরত ছিলেন। গত কয়েকদিন ধরেই তাঁর শরীরে করোনা উপসর্গ দেখা দেয়।  অর্থাৎ তাঁর জ্বর, মাথাব্যথা, কাশি, গলা ব্যথা ছিল। এরপরই তাঁর করোনা পরীক্ষা করা হয়। রিপোর্ট পজিটিভ আসে। দেরি না করে তাঁকে ইএম বাইপাস সংলগ্ন ডিসান  হাসপাতাল, যেটি বর্তমানে কোভিড হাসপাতাল হিসেবে চিহ্নিত, সেখানে ভর্তি করা হয়।

চিকিৎসক-নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীরা, পুলিশকর্মীরা যেমন সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে করোনা মোকাবিলা করছেন, তেমনই ব্যাঙ্কের অফিসার, কর্মীরাও সাধারণ মানুষকে লকডাউনের সময়ে সামনের সারিতে থেকে পরিষেবা দিচ্ছেন। ব্যাঙ্কের আধিকারিক ও কর্মী সংগঠনগুলি প্রথম থেকেই অভিযোগ তুলেছিল যে প্রয়োজনীয় সুরক্ষা ছাড়া তাঁদের কাজ করতে হয়। তাতে যে কোনও সময় ব্যাঙ্কের যে কোনও কর্মী, অফিসার করোনা আক্রান্ত হতে পারেন। এই ঘটনা সেই আশঙ্কাকেই ফের একবার সত্যি প্রমাণ করল।

অল ইন্ডিয়া ব্যাঙ্ক অফিসার্স কনফেডরেশনের পশ্চিমবঙ্গ শাখার পক্ষ থেকে সঞ্জয় দাস জানিয়েছেন, "ব্যাঙ্কের অফিসার এবং কর্মীরা অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে সর্বত্র কাজ করছেন। কোনওরকম সুরক্ষা ছাড়াই তাঁদের প্রতিনিয়ত বহু মানুষের সঙ্গে সংযোগ রক্ষা করতে হচ্ছে। ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ অত্যন্ত উদাসীন কর্মী, আধিকারিকদের সুরক্ষার বিষয়ে। দেশের স্বার্থে, সাধারণ মানুষের স্বার্থে ব্যাঙ্ক ইউনিয়ন চুপ করে আছে। কিন্তু ব্যাঙ্কের  অফিসার, কর্মীরা যদি দিনের পর দিন করোনা আক্রান্ত হন, তবে বড়সড় আন্দোলনে নামা ছাড়া উপায় থাকবে না।''

প্রসঙ্গত, এর আগে উত্তর ২৪ পরগণা  জেলার বাসিন্দা একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন।

ABHIJIT CHANDA

First published: May 7, 2020, 12:07 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर