corona virus btn
corona virus btn
Loading

রাজ্যে প্রথম কোনও পুলিশ কার্যালয় হিসেবে জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডকে 'কনটেইনমেন্ট জোন' ঘোষণা

রাজ্যে প্রথম কোনও পুলিশ কার্যালয় হিসেবে জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডকে 'কনটেইনমেন্ট জোন' ঘোষণা
  • Share this:

SUJOY PAL

#কলকাতা: এই প্রথম কোনও পুলিশ কার্যালয়কে কনটেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করল রাজ্য সরকার। সোমবার জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডের এক সার্জেন্ট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে রিপোর্ট এসেছে। ওই ট্র্যাফিক গার্ডের আরও কয়েকজন পুলিশকর্মীর শরীরে জ্বরের উপসর্গ রয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। তারপরই ওই জোড়াবাগান ট্র্যাফিক গার্ডকে কনটেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর। গোটা জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডের অফিস কার্যত সিল করা হয়েছে।

রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডকে কনটেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করার পরই দমকলের তরফে ওই অফিস স্যানিটাইজ করার কাজ শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার ওই ট্রাফিক গার্ড অফিসে গিয়ে দেখা গেল দু'জন করে দমকলকর্মী ব্যাকপ্যাক নিয়ে ট্র্যাফিক গার্ডের ভেতরে ও বাইরে স্যানিটাইজ করছেন। অফিসে ব্যবহৃত চেয়ার, টেবিল থেকে শুরু করে সমস্ত জায়গাকেই জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে। এমনকী ওই ট্রাফিক গার্ডে ব্যবহৃত গাড়িগুলিকেও স্যানিটাইজ করেছেন দমকলের কর্মীরা।

স্যানিটেশনের দায়িত্বে থাকা দমকলকর্মী অনিমেষ বিশ্বাস বলেন, "আমরা ওই অফিসের বাইরে ও ভেতরে স্যানিটাইজ করছি। অফিসের বাইরের অংশটি স্যানিটাইজ করা হয়েছে দমকলের একটি ইঞ্জিন এনে। ভেতরের অংশ স্যানিটাইজ করা হচ্ছে ব্লোয়ার মেশিন দিয়ে। আমাদের কর্মীরা পিপিই পরে কাজ করছেন। এখানে জলের সঙ্গে সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইড নির্দিষ্ট মাত্রায় মিশিয়ে নিয়মিত শেষ করা হচ্ছে।" দমকলের পাশাপাশি কলকাতা পুরসভাও এই অফিসকে স্যানিটাইজ করবে বলে জানা গিয়েছে।

ইতিমধ্যেই পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা নির্দেশ দিয়েছেন, কলকাতা পুলিশের সমস্ত থানা ও ট্রাফিক গার্ডকে নিয়ম করে স্যানিটাইজ করতে হবে। এক্ষেত্রে যেহেতু এই একজন সার্জেন্ট আক্রান্ত হয়েছেন তাই এই ট্রাফিক গার্ডকে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

কলকাতা পুলিশের মোট সাতজন অফিসার ও কর্মী এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। কয়েকজন কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। তাই লালবাজারের নির্দেশ মাস্ক, গ্লাভস, ফেস শিল্ড পরেই কাজ করতে হবে। কোয়ারেন্টাইন জোনে পিপিই পরে কাজ করতে হবে। ফুটপাথবাসী বা অসহায় মানুষদের খাবার বিতরণ করার সময়েও পিপিই পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

তবে এই কঠিন সময়ে কাজ করতে গিয়ে পুলিশকর্মীরা যাতে মনোবল না হারান সেদিকেও গুরুত্ব দিচ্ছে লালবাজার। একাধিক পুলিশকর্তা কর্মীদের ভোকাল টনিক দিয়ে মনোবল চাঙ্গা রাখছেন ।

Published by: Simli Raha
First published: May 5, 2020, 6:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर