• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • করোনায় আক্রান্ত কলকাতা পুলিশের কর্মী, বর্ধমানে কোয়ারেন্টাইনে পরিচারিকা সহ গোটা পরিবার

করোনায় আক্রান্ত কলকাতা পুলিশের কর্মী, বর্ধমানে কোয়ারেন্টাইনে পরিচারিকা সহ গোটা পরিবার

কলকাতায় পুলিশের গাড়ি চালক করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর আসতেই প্রশাসন তড়িঘড়ি তাঁর বাড়ির পাঁচ সদস্য সহ পরিচারিকাকে তুলে নিয়ে এসে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠায়।

কলকাতায় পুলিশের গাড়ি চালক করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর আসতেই প্রশাসন তড়িঘড়ি তাঁর বাড়ির পাঁচ সদস্য সহ পরিচারিকাকে তুলে নিয়ে এসে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠায়।

কলকাতায় পুলিশের গাড়ি চালক করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর আসতেই প্রশাসন তড়িঘড়ি তাঁর বাড়ির পাঁচ সদস্য সহ পরিচারিকাকে তুলে নিয়ে এসে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠায়।

  • Share this:

#খন্ডঘোষ: পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষে ফের এক ব্যক্তির দেহে করোনা ভাইরাসের হদিস মিললো। ওই ব্যক্তির বাড়ি খন্ডঘোষের গোপীনাথপুর। তবে খণ্ডঘোষের এই করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি কলকাতা পুলিশে কর্মরত। তিনি পুলিশের গাড়ি চালান। তিনি কলকাতাতেই ছিলেন।গত দু'দিন ধরে শরীরে জ্বর সর্দির উপসর্গ দেখা দেওয়ায় বৃহস্পতিবার তাঁর লালারস সংগ্রহ করা হয়।শুক্রবার রিপোর্টে জানা যায় তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সেই খবর ছড়িয়ে পড়তেই খন্ডঘোষে নতুন করে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। এলাকার রাস্তা ঘাট ফাঁকা হয়ে গিয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকেও এলাকায় লক ডাউন কড়াকড়ি করা হয়েছে। বাজারগুলিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকছে কিনা তা নজরে রাখছে পুলিশ প্রশাসন।

এর আগে খন্ডঘোষের বাদুলিয়ায় করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছিল। কলকাতার মেটিয়াবুরুজ থেকে মোটর সাইকেলে বাড়ি ফিরেছিলেন এক ব্যক্তি। পরবর্তী সময়ে তাঁর শরীরে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে। তাঁর সংস্পর্শে এসে করোনা আক্রান্ত হয় তাঁর ন বছরের ভাইঝিও। চিকিৎসার পর তাঁরা এখন সুস্থ হয়ে বাড়িতে রয়েছেন। তাদের সংস্পর্শে আসা সত্তর জনেরও বেশিকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছিল। তারাও কয়েকদিন আগেই বাড়ি ফিরেছেন। ওই এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে প্রশাসন। সেখানে সর্বক্ষণ পুলিশি নজরদারি চলছে। ওই এলাকায় এখনও বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। এলাকার বাসিন্দাদের গ্রামের বাইরে যেতে দেওয়া হচ্ছে না।

কলকাতায় পুলিশের গাড়ি চালক করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর আসতেই প্রশাসন তড়িঘড়ি তাঁর বাড়ির পাঁচ সদস্য সহ পরিচারিকাকে তুলে নিয়ে এসে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠায়। তাদের সকলকেই বর্ধমানের ২ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে বামচাঁদাইপুরের করোনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, আক্রান্ত ব্যক্তি গত মাসের ২৬ তারিখে বাড়ি এসেছিলেন। তারপর থেকে তিনি কলকাতাতেই আছেন। যেহেতু তিনি বাড়ির সদস্যদের সংস্পর্শে এসেছিলেন সেজন্যই পরিবারের সদস্যদের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। তাঁদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কলকাতায় পাঠানো হবে।

Saradindu Ghosh

Published by:Elina Datta
First published: