করোনার টিকা নিতেই সংজ্ঞাহীন নার্স, হাসপাতালের CCU-তে চিকিৎসাধীন, প্রবল আতঙ্কে স্বাস্থ্যকর্মীরা

করোনার টিকা নিতেই সংজ্ঞাহীন নার্স, হাসপাতালের CCU-তে চিকিৎসাধীন, প্রবল আতঙ্কে স্বাস্থ্যকর্মীরা
সংগৃহীত ছবি

রাজ্যে ১৫,৭০৭ জন প্রথম ধাপে টিকার ডোজ পাবেন। তাঁরা প্রথম সারির করোনা যোদ্ধা। অসুস্থ এই নার্সও রয়েছেন সেই তালিকায়।

  • Share this:

    #কলকাতা: বহু প্রতীক্ষিত করোনা টিকাকরণ শুরু হয়েছে শনিবার থেকে। ভার্চুয়ালি সেই কর্মসূচির উদ্বোধ করেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরপর দেশের বিভিন্ন প্রান্তে শুরু হয়েছে প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের টিকা দেওয়া। এ দিন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে টিকা নেওয়ার পরে প্রায় ১৩ জনের অসুস্থতার খবর পাওয়া গিয়েছে। একদিকে যেমন, AIIMS-র এক নিরাপত্তারক্ষী যুবক টিকা নেওয়ার পর অসুস্থ হয়ে পড়েন, তেমনই করোনার টিকা নেওয়ার মাত্র মিনিট কয়েকের মধ্যেই সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়েন এক নার্স। তাঁকে তড়িঘড়ি কলকাতার এক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে (CCU)-তে চিকিৎসাধীন। অসুস্থ ওই নার্সের বয়স ৩৫ বছর।

    রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজ্যে ১৫,৭০৭ জন প্রথম ধাপে টিকার ডোজ পাবেন। তাঁরা প্রথম সারির করোনা যোদ্ধা। অসুস্থ এই নার্সও রয়েছেন সেই তালিকায়। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানা গিয়েছে, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ১৩জন সাময়িকভাবে অসুস্থ হয়ে পরেন। কিন্তু তাঁদের কারও অবস্থা গুরুতর নয়। সকলেই স্থিতিশীল।

    শনিবার ঠিক কী ঘটনা ঘটেছে? সূত্রের খবর, বিসি রায় হাসপাতালে টিকা নিতে এসেছিলেন ওই নার্স। টিকা দেওয়ার মিনিট কয়েকের মধ্যেই তাঁর মাথা ঘুরতে শুরু করে। অস্থির অবস্থার কথা জানাতে জানাতেই সজ্ঞা হারান। এরপর কোনও সময় নষ্ট না করে তাঁকে নীল রতন সরকার (NRS) মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই বর্তমানে CCU-তে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।


    এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য দফতরের এক পদস্থ কর্তা তথা চিকিৎসক PTI-কে জানিয়েছেন, "নার্সের এই অসুস্থতা সম্ভবত অ্যালার্জির জন্য। এই ধরনের অ্যালার্জির ঘটনা যে কোনও ইকাকরণের ক্ষেত্রে খুবি স্বাভাবিক। তাই এখনই ভয়ের কিছু নেই।" তিনি আরও জানিয়েছেন, "ওই নার্সের অ্যালার্জির সমস্যা রয়েছে একাধিক ওষুধে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগছেন। তবে আমরা খতিয়ে দেখছি এই সমস্যা টিকাকরণে জন্য নাকি অন্য কোনও কারণের জন্য হয়েছে। তাঁর রক্তচাপ এবং দেহে অক্সিজেনের মাত্রা বার বার পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা তাঁকে সর্বদা কড়া নজরে রেখেছেন।"

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: