লকডাউনে ব্যতিক্রমী ভাবনা, পুজোর অনুষ্ঠান বাতিল করে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াল ক্লাব কমিটি

চাল, ডাল, আলু, তেল ও অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী এলাকার বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে ঘুরে অসহায় মানুষদের হাতে তুলে দেওয়া হয় জগৎ মুখার্জি পার্ক পুজো কমিটির তরফ থেকে।

চাল, ডাল, আলু, তেল ও অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী এলাকার বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে ঘুরে অসহায় মানুষদের হাতে তুলে দেওয়া হয় জগৎ মুখার্জি পার্ক পুজো কমিটির তরফ থেকে।

  • Share this:

#কলকাতা: 'মানুষ বড় একলা, তুমি তাহার পাশে এসে দাঁড়াও,এসে দাঁড়াও, ভেসে দাঁড়াও এবং ভালোবেসে দাঁড়াও,মানুষ বড় কাঁদছে, তুমি মানুষ হয়ে পাশে দাঁড়াও'।- - শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের এই কবিতা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে লকডাউনের  সময় অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার ।

কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধ হয়েছিল ১৮ দিন ধরে। এই যুদ্ধ তার চেয়েও দীর্ঘ, তার চেয়েও মর্মান্তিক, আর এর ব্যাপ্তি সাড়া বিশ্ব জুড়ে। মৃত্যু লক্ষাধিক। আক্রান্তের  সংখ্যা লক্ষ লক্ষ। 'অসহায়তা'র তো কোনও নির্দিষ্ট সংজ্ঞা হয় না। আমরা আজ এমন এক পরিস্থিতির সামনে দাঁড়িয়ে যা আক্ষরিক অর্থেই  ভয়ঙ্কর। সরকারি, বেসরকারি সমস্ত ক্ষেত্র হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে সাহায্যের জন্য। তবুও মানুষের অসহায়তার কাছে তা যথেষ্ট নয়। কলকারখানায় উৎপাদন বন্ধ। ব্যবসা-বাণিজ্য স্তব্ধ। লকডাউনের  ফলে মানুষের রোজগার নেই। কিন্তু পেটের খিদে  তো আর থেমে থাকে না। দাবানলের মত তা সর্বগ্রাসী।

ভয়াবহ এই পরিস্থিতির সামনে দাঁড়িয়ে কলকাতার  জগৎ মুখার্জ্জী পার্ক দুর্গাপুজো কমিটির সদস্যবৃন্দ, অঞ্চলের কিছু সহৃদয় মানুষের সহযোগিতায় সীমিত  সামর্থ্য নিয়ে  দুঃস্থ, দরিদ্র, অভুক্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। পুজো কমিটির অন্যতম সম্পাদক সোনাই সরকার বলেন, 'দুর্গা পুজোকে কেন্দ্র করে আমাদের দীর্ঘ দিন ধরে চলে আসা জাঁকজমকপূর্ণ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  এবছর করোনা পরিস্থিতির কারণে  বাতিল করে সেই অর্থ দিয়ে আমরা আমাদের পুজোর অর্ঘ্য নিবেদন করছি সহায় সম্বলহীন মানুষের সেবায়। এটাই আমাদের  পুজো কমিটির সংকল্প'।

মানিকতলার অহনা ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় একটি অনাথ আশ্রমের  পাশাপাশি চাল, ডাল, আলু, তেল ও অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী এলাকার বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে ঘুরে  অসহায় মানুষদের হাতে তুলে দেওয়া হয় জগৎ মুখার্জি পার্ক পুজো কমিটির তরফ থেকে। সংবেদন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সহযোগিতায় কয়েকজন দৃষ্টিহীনের পরিবারকে  এবং  নুন আনতে পান্তা ফুরোনো অবস্থা বস্তিবাসীদের হাতেও  তুলে দেওয়া হয় পুষ্টিকর খাদ্য সামগ্রী। লকডাউনের  জেরে সমস্ত দোকানপাট বন্ধ। ঘর থেকে রাস্তায় বের হচ্ছেন না আমজনতা । সে কারণে রাস্তায় থাকা সারমেয়রাও পড়েছে সমস্যায়। তাদের কথা ভেবেও লাগাতার সেই সমস্ত পথের সারমেয়দের মুখেও খাবার তুলে দিচ্ছে পুজো কমিটির সদস্যরা।

আগামী রবিবার  এভাবেই দুঃস্থ মানুষদের সেবায় পুজো কমিটির সদস্যরা জগৎ মুখার্জি পার্ক সংলগ্ন রাজবল্লভ পাড়ার মানুষের পাশে থাকবেন  বলে জানান তাঁরা। পুজো কমিটির কথায় , 'এ আমাদের সাহায্য নয়, পুজোর অর্ঘ্য। আমরা সবাই সমস্ত দায়িত্ব ভাগ করে নিয়েছি। শুধু সকলের কাছে একটাই অনুরোধ করব , কলকাতা হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত। তাই ঘরে থাকুন,  সুস্থ থাকুন, আর বিশ্বাস রাখুন যে, এই বিপর্যয় নিতান্তই সাময়িক' ।

VENKATESWAR  LAHIRI 

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: