West Bengal Election 2021: 'শেষনের মতো কড়া হোন', করোনা বিধি মেনে প্রচার না হওয়ায় কমিশনকে বলল হাইকোর্ট

West Bengal Election 2021: 'শেষনের মতো কড়া হোন', করোনা বিধি মেনে প্রচার না হওয়ায় কমিশনকে বলল হাইকোর্ট

কমিশনকে তুলোধনা হাইকোর্টের৷

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা বিধি মেনে ভোট প্রচার না হওয়ায় নির্বাচন কমিশনের ভূমিকায় তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করল কলকাতা হাইকোর্ট৷ প্রধান বিচারপতি টি বি রাধাকৃষ্ণণের ডিভিশন বেঞ্চের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, কমিশনের হাতে সব ক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও একটি মাত্র নির্দেশিকা জারি করেই দায় এড়িয়েছে তারা৷ কমিশনের ভূমিকায় হতাশ প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন টি এন শেষনের আমলের সঙ্গেও কমিশনের কাজকর্মের তুলনা টেনেছে৷

করোনার অতিমারির মধ্যে প্রচার বন্ধের আবেদন সংক্রান্ত মামলার শুনানিতেই এ দিন এই পর্যবেক্ষণ জানিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট৷ ক্ষুব্ধ বিচারপতিরা স্পষ্ট বলেন, কোভিড বিধি মেনে ভোট প্রচারের আয়োজন করতে কমিশন সম্পূর্ণ ব্যর্থ৷ হাতে সব ক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও কমিশন শুধুমাত্র একটি নির্দেশিকা জারি করে দায় এড়িয়েছে বলেও মন্তব্য করেন বিচারপতিরা৷ এই প্রসঙ্গেই প্রধান বিচারপতি বলেন, 'টি এন শেষনের আমলে কমিশন যতটা কড়া ছিল, তার দশ ভাগের এক ভাগ কড়া মনোভাব অন্তত দেখাক তারা৷' আদালত ক্ষোভ প্রকাশ করে আরও বলে, এই পরিস্থিতিতে শুধুমাত্র একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেই সাধারণ মানুষের উপরে দায় ছেড়ে দিয়েছে সরকার৷

ক্ষুব্ধ ডিভিশন বেঞ্চ আরও বলে, 'আপনাদের সব আছে, পুলিশ থেকে অফিসার আছে, তাও কোনও কাজ করছেন না। ক্যুইক রেসপন্স টিম, RAF-কে কেন ব্যবহার করছেন না? আপনাদের কাজে আদালত অসন্তুষ্ট। সার্কুলার নয়, আমরা পদক্ষেপ চাইছি কমিশনের কাছে। আমরা আজই কোনও নির্দেশ দিতে পারছি না কারণ রাজনৈতিক দলের কোনও প্রতিনিধি আজ আদালতে উপস্থিত নেই। ' সবশেষে ডিভিশন বেঞ্চের পক্ষ থেকে কমিশনকে হঁশিয়ারি দিয়ে আরও বলেন, 'টিএন শেষনের কথা ভুলে গিয়েছে কমিশন! আমরা পারি কমিশনকে টি এন শেষনের সময়ের মতো করে কাজ করাতে৷'

আদালত এ দিন স্পষ্ট করে দিয়েছে, নিছক বিজ্ঞপ্তি জারি করে নেয়, করোনা বিধি মেনেই যাতে রাজনৈতিক দলগুলির প্রচার হয়, তা নিশ্চিত করতে দৃঢ় পদক্ষেপ করতে হবে নির্বাচন কমিশনকে৷ প্রসঙ্গত করোনার বাড়বাড়ন্তের পরই পঞ্চম দফার ভোটের আগে করোনা বিধি মেনে প্রচারে নতুন করে নির্দেশিকা জারি করেছিল কমিশন৷ প্রচারের সময় কমিয়ে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধে ৭টা পর্যন্ত করতে বলা হয়েছিল৷ পাশাপাশি, ভোটগ্রহণের ৭২ ঘণ্টা আগে প্রচার শেষ করার নির্দেশও বলবৎ রয়েছে৷ যদিও এই নির্দেশই যথেষ্ট নয় বলে মনে করছে কলকাতা হাইকোর্ট৷ কারণ কমিশন নির্দেশ দিলেও বাস্তবে করোনা বিধি মানার বিষয়ে উদাসীনতা দেখাচ্ছেন বহু প্রার্থী এবং রাজনৈতিক কর্মীরা৷ তবে তৃণমূল, বিজেপি, বামফ্রন্ট, কংগ্রেসের মতো প্রথমসারির দলগুলি বড় জনসভায় ভিড় এড়াতে নিজেদের মতো করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷

Arnab Hazra

Published by:Debamoy Ghosh
First published: