করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনায় আক্রান্ত বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য, হোম আইসোলেশনে CPIM-এর রাজ্যসভার সাংসদ

করোনায় আক্রান্ত বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য, হোম আইসোলেশনে CPIM-এর রাজ্যসভার সাংসদ
File Photo

গত কয়েক দিনে যাঁরা তাঁর কাছাকাছি এসেছেন, সুরক্ষার কথা ভেবে তাঁদের প্রত্যেককে করোনা টেস্ট করিয়ে নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য ।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা আক্রান্ত বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য ৷ সম্প্রতি বেশ কিছু দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন ৷ তাঁর কোভিড টেস্ট করার পরেই রিপোর্টে পজিটিভ ধরা পড়ে ৷ এরপর আর কোনও ঝুঁকি নেওয়া হয়নি ৷ দ্রুত হোম আইসোলেশনে চলে গিয়েছেন সিপিআইএমের রাজ্যসভার সাংসদ ৷

বৃহস্পতিবার সিপিআইএমের রাজ্যসভার সাংসদ এবং কলকাতার প্রাক্তন মেয়রের কোভিড টেস্ট রিপোর্ট পজিটিভ আসে। রিপোর্ট পাওয়ার পরেই হোম আইসোলেশনে রয়েছেন বিকাশবাবু। গত কয়েক দিনে যাঁরা তাঁর কাছাকাছি এসেছেন, সুরক্ষার কথা ভেবে তাঁদের প্রত্যেককে করোনা টেস্ট করিয়ে নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য ।

দিন কয়েক আগেই করোনা আক্রান্ত হন কংগ্রেস বিধায়ক আবদুল মান্নান। কো-মর্বিডিটি থাকলেও তাঁর শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল বলেই খবর। এর মধ্যেই বিকাশ ভট্টাচার্যের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেল।

এদিকে বিধানসভা ভোটের আগে স্বাস্থ্য় পরিষেবায় নজিরবিহীন ঘোষণা করল মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের সরকার। এখন থেকে রাজ্য়ের সমস্ত পরিবার স্বাস্থ্য়সাথি প্রকল্পের সুবিধা পাবেন। অর্থাৎ বাংলার সমস্ত নাগরিক সরকারি স্বাস্থ্য়বিমার আওতায় পড়বেন। টাকার অঙ্কে যা পরিবার পিছু পাঁচ লক্ষ টাকা। বিরোধীরা বলছে, এসবই ভোটের আগে ভেট। স্বাস্থ্যসাথি প্রকল্পের আওতায় আপনি, আপনার পরিবারের প্রত্য়েকে। এবার থেকে রাজ্য সরকারের এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন সবাই। এতদিন স্বাস্থ্যসাথি প্রকল্পের সুবিধা পেতেন সরকারি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত কর্মীরাই। সরকারের ঘোষণায় চলতি বছর থেকে স্বাস্থ্যসাথি এবার সবার সাথি।

এতদিন স্বাস্থ্যসাথি প্রকল্পের সুবিধা কারা পেতেন? মূলত সরকারি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত স্বল্প আয়ের অস্থায়ী ও চুক্তিভিত্তিক কর্মীরা যেমন আশা-কর্মী, আইসিডিএস কর্মী, স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্য, সিভিক ভলান্টিয়ার, গ্রিন পুলিশ, হোমগার্ড, ভিলেজ ভলান্টিয়াররা এই সুবিধা পেতেন ৷ সরকারি কর্মীদের বাবা-মা, স্ত্রী ও সন্তানেরাও প্রকল্পের আওতায় ছিলেন স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড থাকলে বেসরকারি হাসপাতালে দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত ক্যাশলেস চিকিৎসার সুবিধা পাওয়া যেত ৷

বিজেপির দাবি, কেন্দ্রের আয়ুষ্মান প্রকল্প রাজ্যে চালু হতে দেননি মুখ্যমন্ত্রী। এবার স্বাস্থ্যসাথি নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ঘোষণায় শোরগোল পড়েছে। বিজেপি বলছে, এসবই ভোটের আগে ভেট। ভোটের আগে মুখ্যমন্ত্রীর স্বাস্থ্যসাথি নিয়ে ঘোষণাকে রাজনৈতিক কৌশল হিসেবেই দেখছেন বিরোধীরা।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: November 27, 2020, 10:27 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर