corona virus btn
corona virus btn
Loading

কোনওরকম অজুহাত চলবে না, গরহাজির চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে কড়া কলকাতা পুরসভা

কোনওরকম অজুহাত চলবে না, গরহাজির চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে কড়া কলকাতা পুরসভা

কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের সুপারিশে গত ২৩ শে এপ্রিল সম্মতি জানিয়েছিলেন মেয়র হিসেবে। সোমবার কোভিড স্পেশাল টিমের সঙ্গে বৈঠকের পর কলকাতা পুরসভার প্রশাসক হিসেবে কড়া বার্তা দিলেন গরহাজির চিকিৎসকদের।

  • Share this:

#কলকাতা: গরহাজির চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের বিরুদ্ধে এবার কড়া সিদ্ধান্ত কলকাতা পুরসভার। দু’দিনের নোটিশে কাজে যোগ না দিলে সাসপেন্ড এমনকী ছাঁটাই পর্যন্ত করা হতে পারে চিকিৎসক বা স্বাস্থ্যকর্মীদের। কোভিড স্পেশাল টিমের সঙ্গে বৈঠকের পর এই কড়া সিদ্ধান্তের কথা জানান কলকাতা পুরসভার চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম।

বর্তমান সংকটময় পরিস্থিতিতে বারবার বলার পরেও বেশ কিছু চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা কাজে যোগ দিচ্ছেন না। অনেকেই কলকাতার বাইরে থাকার অজুহাত এবং লকডাউনের ফলে কাজে যোগ না দেওয়ার জন্য নানা বাহানা দিচ্ছেন। তবে আর কোনও অজুহাত নয়, দুদিনের মধ্যে কাজে যোগ না দিলে চুক্তিভিত্তিক কর্মীদের সরাসরি ছাঁটাই করবে কলকাতা পুরসভা। স্থায়ী চিকিৎসক ও চিকিৎসা কর্মীদের বিরুদ্ধেও কড়া মনোভাব পুর- প্রশাসনের। অবিলম্বে কাজে যোগ না দিলে ডিসকন্টিনিউ অফ সার্ভিস, অথবা সাসপেন্ড করা হতে পারে।

কলকাতা পুরসভার প্রতিটি ওয়ার্ড অর্থাৎ ১৪৪টি ওয়ার্ডে রয়েছে প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র। এর পরেই রয়েছে জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের উদ্যোগে আপার প্রাইমারি হেল্প সেন্টার। এছাড়াও কলকাতা পুরসভার ১৬ টি বোরোতে রয়েছে ডিসপেন্সারি। কলকাতা পুরসভার সদর দফতর নিউমার্কেটে রয়েছে ডিসপেন্সারি। কলকাতা পুরসভার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের নেতৃত্বে রয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগের নেটওয়ার্ক। জন্ম-মৃত্যু শংসাপত্র-সহ বিভিন্ন বিভাগে রয়েছে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা।

কলকাতা পুরসভার ১৪৪ টি ওয়ার্ড ও সদরদফতর মিলিয়ে প্রায় ২০০র বেশি চিকিৎসক রয়েছেন।  এছাড়াও হোমিওপ্যাথি বা অন্যন্য বিভাগ মিলিয়ে মোট ৪০০ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন। এর মধ্যে প্রায় ৫০ শতাংশই চুক্তিভিত্তিক চিকিৎসক। এছাড়াও রয়েছেন স্বাস্থ্যকর্মী ও চিকিৎসক সহায়করা। এদের মধ্যেই অন্তত ৩০% চিকিৎসক ও চিকিৎসাকর্মীরা গরহাজির থাকছেন।

কলকাতা পুরসভা চিকিৎসকদের কাজে যোগের জন্য পিকআপের গাড়ির ব্যবস্থা করা হয়েছে। নিজস্ব গাড়ি ব্যবহার করলে তার তেলের ব্যবস্থাও রয়েছে। যাঁরা শহরের বাইরে থেকেন বা শহরতলি থেকে আসছেন, তাঁরা যদি কাজের জায়গার কাছে থাকতে চান, তারও ব্যবস্থা করেছে কলকাতা পুরসভা। সোমবার কলকাতা পুরসভার বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর-এর চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম বলেন, যে চিকিৎসক বা চিকিৎসা কর্মীরা কলকাতার বাইরে আছেন তাঁরা কাজে যোগ দিতে চাইলে পুরসভা তাদেরকে গাড়ি পাঠিয়ে নিয়ে আসবে এবং তাঁর কর্মস্থলের কাছেই হোটেলে রাখার ব্যবস্থা করবে। তবুও এই সংকটময় পরিস্থিতিতে কাজে যোগ দিতে চিকিৎসক ও চিকিৎসা কর্মীদের কাছে অনুরোধ করেন ফিরহাদ হাকিম।

কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের সুপারিশে গত ২৩ এপ্রিল সম্মতি জানিয়েছিলেন মেয়র হিসেবে। সোমবার কোভিড স্পেশাল টিমের সঙ্গে বৈঠকের পর কলকাতা পুরসভার প্রশাসক হিসেবে কড়া বার্তা দিলেন গরহাজির চিকিৎসকদের।

লকডাউনের অজুহাতে গরহাজির অনেক চিকিৎসক। স্থায়ী ও চুক্তিভিত্তিক সমস্ত চিকিৎসকদের কড়া বার্তা। কোভিড১৯ এ পরিষেবা দিতে অস্বীকার করলে চাকরি থেকে ছাঁটাই বা বরখাস্ত করা হবে। লকডাউন এ গরহাজির চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের বরখাস্তের সুপারিশ করে স্বাস্থ্য বিভাগ। মাইনে কাটা এবং ইনক্রিমেন্ট বন্ধ করারও সুপারিশ করা হয় কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে। ২১ এপ্রিলে করা কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের সেই সুপারিশে ২৩ এপ্রিল সম্মতি দেন মেয়র ও কমিশনার।সোমবার কোভিড স্পেশাল টিমের সঙ্গে বৈঠকের পর কড়া বার্তা গরহাজির চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রতি৷

BISWAJIT SAHA

Published by: Pooja Basu
First published: May 11, 2020, 11:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर