corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা প্রতিরোধে পাচন দাওয়াই মোদির, মহামারিতে পাচন খাইয়েছিলেন রবীন্দ্রনাথও

করোনা প্রতিরোধে পাচন দাওয়াই মোদির, মহামারিতে পাচন খাইয়েছিলেন রবীন্দ্রনাথও
আশ্রমিকদের সান্নিধ্যে রবীন্দ্রনাখ

১৯১৮ সালে বোলপুরে ইনফ্লুযেঞ্জা হানা দিলে রবীন্দ্রনাথও আশ্রমের আশ্রমিকদের পঞ্চতিক্ত পাঁচন খাইয়ে ছিলেন শরীরের রোগ প্রতিরোগ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য।

  • Share this:

বীরভূম: প্রধানমন্ত্রী দিন কয়েক আগেই বলেন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে 'কারা' খেতে। ভারতবর্ষের শতাব্দী প্রাচীণ ওষধি সম্পর্কে আজকের জেন ওয়াই ঠিক অবগত নন। তবে এর প্রচলন বীরভূমে প্রায় ১০০ বছর আগে থেকেই।

একটু খোলসা করে বলা যাক 'কারা' কী। বীরভূমের সিউড়ীর প্রাচীন আয়ুর্বেদ দোকানে অহরগ পাওয়া যায় এই কারা। আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে বিশ্বাসীরা প্রায়শই কিনে খেয়ে থাকেন এই কারা। বিশ্বাস, রোগ প্রতিরোগ ক্ষমতা বাড়ায় এই আয়ুর্বেদিক দাওয়াই। শান্তিনিতনে বহু প্রাক্তনীই বিদেশে থাকেন। তাঁরাও বাড়ি এলে এই কারা কিনে নিয়ে যান।

১৯১৮ সালে বোলপুরে ইনফ্লুযেঞ্জা হানা দিলে রবীন্দ্রনাথও আশ্রমের আশ্রমিকদের পঞ্চতিক্ত পাঁচন খাইয়ে ছিলেন শরীরের রোগ প্রতিরোগ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য। তবে আয়ুর্বেদ ব্যবসায়ীদের খেদ এই চিকিৎসা পদ্ধতি  এখনকার মানুষের কাছে আগের মতো গ্রহণযোগ্য নয় আর।কিন্তু তাঁদের বিশ্বাস, মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ম্যাজিকের মতো কাজ করে এই পাচন। বিভিন্ন গাছের মূল ও বেশ কয়েকটি গাছের পাতা দিয়ে এই কারা তৈরি করা হয়। ১০ থেকে ১৫ টাকার মধ্যে পাওয়া যায় এক কারা। অনেকে আবার কবিরাজি ভাষায় একে সর্দি গর্মীর পাঁচন ও বলে থাকেন।

কী দিয়ে কারা তৈরি হয়-

শুঁট -( প্রসেসড আদা) ,পিপুল - ( গাছের উপাদান), গোলমরিচ, যষ্ঠী মধু, মহাবড়ী বচ ( গাছের উপাদান), গাট পিপুল মূল (গাছের উপাদান,) লবঙ্গ, হলুদ, তুলসীর বীজ ও বেশ কিছু গাছের পাতা

তৈরি করার পদ্ধতি-

মিশ্রিত জিনিস গুলিকে ৪ কাপ জল দিয়ে আগুনের আঁচে বসিয়ে ১ কাপে পরিনত হলে, তালমিছরি মিশিয়ে, একটু ঘি দিয়ে খেতে হবে। দিনে ২ থেকে ৩ বার একই নিয়মে। ৫ থেকে ৭ দিনে হাতে নাতে ম্যাজিক ফলাফল , দাবি আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞদের।

Published by: Arka Deb
First published: April 16, 2020, 4:02 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर