• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • কালনায় শিবির খুলে করোনা পরীক্ষা করাচ্ছে স্বাস্থ্য দফতর 

কালনায় শিবির খুলে করোনা পরীক্ষা করাচ্ছে স্বাস্থ্য দফতর 

কালনা শহরে ইতিমধ্যেই আট হাজার জনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। দেড় হাজার  বাসিন্দার অ্যান্টিজেন পরীক্ষাও হয়েছে।

কালনা শহরে ইতিমধ্যেই আট হাজার জনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। দেড় হাজার বাসিন্দার অ্যান্টিজেন পরীক্ষাও হয়েছে।

কালনা শহরে ইতিমধ্যেই আট হাজার জনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। দেড় হাজার বাসিন্দার অ্যান্টিজেন পরীক্ষাও হয়েছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: করোনা আক্রান্তদের হদিশ পেতে এবার বিশেষ শিবির করে পরীক্ষা শুরু হল পূর্ব বর্ধমান জেলার গঙ্গাপাড়ের  মন্দির শহর কালনায়। কালনার ব্যস্ততম এলাকা চকবাজারে প্রতি রবিবার স্বাস্থ্যকর্মীরা বাসিন্দাদের করোনা পরীক্ষা করবেন। এছাড়াও সোম থেকে শনিবার কালনার অঘোরনাথ পার্ক স্টেডিয়ামে শিবির করে করোনা পরীক্ষার পরিকল্পনা নিয়েছে প্রশাসন। এই শিবির আপাতত ধারাবাহিকভাবে চলবে।এই শিবিরগুলোতে বাসিন্দাদের অ্যান্টিজেন টেস্ট করা হবে বলে জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে।

কালনা শহরে ইতিমধ্যেই আট হাজার জনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। দেড় হাজার  বাসিন্দার অ্যান্টিজেন পরীক্ষাও হয়েছে। তবুও কালনার শহরের বাসিন্দাদের মধ্যে করোনা পরীক্ষা করানোর আগ্রহ কম বলেই মনে করছে জেলা স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা। তাঁরা বলছেন, অনেকের মধ্যে করোনার উপসর্গ দেখা দিলেও বা তারা করোনা আক্রান্তের সংক্রান্ত সংস্পর্শে এলেও পরীক্ষা করানোর ব্যাপারে বিশেষ আগ্রহ দেখাচ্ছে না। মূলত করোনা পজিটিভ হলে সামাজিক দূরত্ব তৈরি হওয়ার আশঙ্কা থেকেই পরীক্ষা করানোর ব্যাপারে  পিছিয়ে যাচ্ছেন বলে মত স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকদের।

জেলা স্বাস্থ্য দফতরের এক আধিকারিক বলেন, এই জেলায় বেশিরভাগ আক্রান্ত উপসর্গহীন। তাই তাদের মাধ্যমে অনেকেই করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। সেইসব বাসিন্দাদের চিহ্নিত করতে কালনা শহরে পরীক্ষার মাত্রা অনেকটা বাড়ানোর নির্দেশ  দিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। সেই নির্দেশ মেনে কাটোয়া শহরের প্রতিদিন গড়ে ৫০টি করে পরীক্ষা করানোর লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। অঘোরনাথ পার্ক স্টেডিয়ামে করোনা উপসর্গ রয়েছে বা করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে এসেছেন এমন বাসিন্দারাই নমুনা জমা দিতে পারবেন। এছাড়াও কালনা মহকুমা হাসপাতালে নিয়মিত লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে।  জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, গত কয়েকদিনে জেলায় করোনা আক্রান্তের হার কম। তুলনায় আক্রান্তদের অনেকেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এটা বেশ স্বস্তির খবর। তবে পরীক্ষা বা সাবধানতায় কোনও ফাঁক রাখা হচ্ছে না। বাসিন্দাদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মুখে মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে বলা হচ্ছে। পাশাপাশি জেলাজুড়ে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী নমুনা পরীক্ষা চলছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: