Coronavirus in India: কুম্ভ মেলার সমাপ্তি ঘোষণা জুনা আখড়ার, এখনও শাহি স্নানে অনড় কয়েকটি সংগঠন

Coronavirus in India: কুম্ভ মেলার সমাপ্তি ঘোষণা জুনা আখড়ার, এখনও শাহি স্নানে অনড় কয়েকটি সংগঠন

স্বাস্থ্য বিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে এভাবেই কুম্ভ মেলায় স্নান করেছিলেন ভক্তরা৷

এর আগেও জুনা আখড়ার প্রধান অভদেশানন্দ ভক্তদের কাছে আবেদন করেছিলেন যাতে সীমিত সংখ্যায় তাঁরা কুম্ভ মেলায় আসেন৷

  • Share this:

    #হরিদ্বার: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (PM Narendra Modi) আবেদনের পরেই বন্ধ হল কুম্ভ মেলা (Kumbh Mela)৷ উদ্বেগজনক করোনা (Coronavirus in India)পরিস্থিতির কারণেই এ দিন মেলা অবিলম্বে বন্ধ করার কথা ঘোষণা করেন শ্রী পঞ্চ দশনম জুনা আখড়ার প্রধান স্বামী অভদেশানন্দ গিরি৷ ট্যুইট বার্তায় তিনি জানিয়েছেন, দেশের মানুষের স্বাস্থ্যের বিষয়টিই তাঁদের কাছে সর্বাধিক গুরুত্বের৷ সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল৷

    ট্যুইট বার্তায় স্বামী অভদেশানন্দ গিরি লিখেছেন, 'ভারতের নাগরিকরা এবং তাঁদের জীবনের সুরক্ষাই আমাদের কাছে সর্বাধিক গুরুত্বের৷ করোনা অতিমারি যেভাবে বাড়ছে তাতে আমরা বিধি মেনেই কুম্ভের সমস্ত দেবতার বিসর্জন করে দিয়েছি৷ জুনা আখড়ার তরফ থেকে আমরা এই কুম্ভ মেলার বিধিবদ্ধ বিসর্জন- সমাপ্তি ঘোষণা করলাম৷'

    এর আগেও জুনা আখড়ার প্রধান অভদেশানন্দ ভক্তদের কাছে আবেদন করেছিলেন যাতে সীমিত সংখ্যায় তাঁরা কুম্ভ মেলায় আসেন৷ তিনি স্বীকার করে নিয়েছিলেন, মানুষের আবেগ যতই থাক না কেন জীবনের থেকে মূল্যবান কিছু নয়৷ তার উপর দ্বিতীয় ধাক্কায় আরও মারাত্মক হয়ে ফিরে এসেছে করোনা৷

    কুম্ভ মেলার শুরু থেকেই আশঙ্কা করা হচ্ছিল যে এই বিরাট ধর্মীয় সমাগম করোনা সংক্রমণের সুপারস্প্রেডার হয়ে উঠতে পারে৷ কারণ যেভাবে লাখো লাখো ভক্ত কুম্ভ মেলায় ভিড় করছিলেন, তার উপর প্রশাসনের কার্যত কোনও নিয়ন্ত্রণই ছিল না৷ তবে জুনা আখড়ার তরফে সমাপ্তি ঘোষণা করা হলেও মেলা যে পুরোপুরি শেষ হবে, তার কোনও মানে নেই৷ কারণ এখনও কয়েকটি আখড়া আছে পরবর্তী শাহি স্নানগুলির পক্ষে৷ তার মধ্যে রয়েছে নির্মোহি, নির্ভানি এবং দিগম্বরের মতো কয়েকটি আখড়া৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আবেদনকে স্বাগত জানিয়েও বৈরাগী আখড়া জানিয়েছে, আগামী ২৭ এপ্রিল শাহি স্নান বন্ধ করবে না তারা৷ তবে ভক্তদের শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে অনুরোধ করেছে তারা৷

    গত ১২ এবং ১৪ এপ্রিল দু'টি শাহি স্নানে অংশ নেওয়া প্রায় ৪৯ লক্ষ ভক্তদের অধিকাংশই কোনও রকম স্বাস্থ্য বিধি মানেননি বলে অভিযোগ৷ মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার কোনও চেষ্টাই দেখা যায়নি৷

    এর পরই অখিল ভারতীয় আখড়া পরিষদের সভাপতি মহন্ত নরেন্দ্র গিরি করোনা আক্রান্ত হওয়ায় তাঁকে ঋষিকেশের এইমস-এ ভর্তি করতে হয়৷ মধ্যপ্রদেশের মহা নির্ভানি আখড়ার মহামন্দলেশ্বর স্বামী কপিল দেব করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ১৩ এপ্রিল মারা যান৷

    গত ১০ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিলের মধ্যে হরিদ্বারে আয়োজিত কুম্ভ মেলায় অংশ নেওয়া ১৭০১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়৷ বিশ্বের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় সমাগমের জেরে দেশের করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহ অবনতি হতে পারে বলে এর পর থেকেই আশঙ্কা ছড়ায়৷ শনিবারই একদিনে দেশে নতুন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৩৪ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে৷ মৃত্যু হয়েছে ১৩৪১ জনের৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    লেটেস্ট খবর