corona virus btn
corona virus btn
Loading

শুক্রবার জয়েন্ট এন্ট্রান্সের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ফলপ্রকাশ, কখন থেকে কোন সাইটে দেখা যাবে রেজাল্ট, জেনে নিন

শুক্রবার জয়েন্ট এন্ট্রান্সের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ফলপ্রকাশ, কখন থেকে কোন সাইটে দেখা যাবে রেজাল্ট, জেনে নিন
Representative Image

আগামী শুক্রবার রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ফলাফল প্রকাশ করবে। দুপুর ১ টার সময় ভার্চুয়ালি সাংবাদিক সম্মেলন করে জয়েন্টের ফলাফল ঘোষণা করা হবে

  • Share this:

#কলকাতা: অবশেষে ছয় মাসের মাথায় রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড এবছরের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ফলাফল প্রকাশ করতে চলেছে। আগামী শুক্রবার রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ফলাফল প্রকাশ করবে। দুপুর ১ টার সময় ভার্চুয়ালি সাংবাদিক সম্মেলন করে জয়েন্টের ফলাফল ঘোষণা করা হলেও দুপুর ২.৩০ এরপর থেকেই ছাত্রছাত্রীরা ওয়েবসাইট মারফত ফলাফল জানতে পারবেন। WWW.WBJEEB.NIC.IN ওWWW.WBJEEB.IN এই দুটি ওয়েবসাইট মারফত ছাত্রছাত্রীরা ফলাফল জানতে পারবেন। বুধবারে রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ডের তরফে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এমনটাই জানানো হয়েছে।

অনলাইনে মারফত ফলাফল জানার পাশাপাশি এবছর কাউন্সেলিং অনলাইনে হওয়ার পাশাপাশি রিপোর্টিং করার ক্ষেত্রেও ছাত্রছাত্রীরা ভার্চুয়ালি করতে পারবেন। এমনই পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড। অর্থাৎ এতদিন ধরে অনলাইনে কাউন্সেলিং হলেও ছাত্রছাত্রীদের বিভিন্ন ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে গেলে সরাসরি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে যেতে হত। কিন্তু এবছর করোনা ভাইরাস সংক্রমণের জন্য ছাত্র-ছাত্রীদের আর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে যেতে হবে না। অনলাইন মারফত ছাত্র-ছাত্রীরা এই ভার্চুয়ালে রিপোর্টিং করতে পারবেন। সূত্রের খবর, এমনটাই পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড ।

গত ২ ফেব্রুয়ারি রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড এবছরের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে প্রবেশিকা পরীক্ষা নেয়। করোনাভাইরাস এবং তার জেরে লকডাউনের জন্য ফল প্রকাশের প্রক্রিয়া স্থগিত রাখতে হয় জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ডকে। যদিও এবছর তুলনামূলকভাবে অনেকটা আগেই রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রবেশিকা পরীক্ষা নিয়ে নেয়। তবে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আগে উচ্চমাধ্যমিকের লিখিত পরীক্ষা শেষ হবার পরেই রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ফলাফল প্রকাশ করবে এমনটাই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল । কিন্তু পরবর্তী ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ধরে স্কুল, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় ফলাফল প্রকাশ করলেও কিভাবে ভর্তি-প্রক্রিয়া করা সম্ভব সেই নিয়েই সন্দিহান ছিল উচ্চ শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিকরা।

সিদ্ধান্ত আগেই নিয়েছিল রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড। কিন্তু লকডাউন ও করোনাভাইরাস এর জেরে অনেক পিছিয়ে গেলেও রাজ্য জয়েন্টের ইঞ্জিনিয়ারিং এর ফল প্রকাশ।  ছয় মাসের বেশি সময় পর রাজ্য ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ফল প্রকাশ করছে বোর্ড। সাধারণত পরীক্ষা নেওয়ার এক মাসের মধ্যেই রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রবেশিকার ফলাফল প্রকাশ করে দেয়। কিন্তু এবছর ছাত্র-ছাত্রীদের মানসিক চাপের কথা মাথায় রেখে উচ্চমাধ্যমিকে লিখিত পরীক্ষা শেষ হবার আগে না পর্যন্ত ফল প্রকাশ করতে চাইছিল না রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড।

এদিকে গত বছরের তুলনায় এ বছর আবেদনকারী পরীক্ষার্থীর সংখ্যা অনেকটাই কমে গিয়েছে। এবছর ইঞ্জিনিয়ারিং এর জন্য আবেদন করেছেন ৮৮,৮০০ জন পরীক্ষার্থী। রাজ্যে প্রত্যেক বছরই ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে আসন ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ খালি থেকে যাচ্ছে। মূলত জন পরীক্ষা দেরিতে নেওয়া ভর্তির সময়সীমা অনেকটা দেরিতে হওয়ায় এত বিপুল সংখ্যক আসন খালি থেকে যাচ্ছিল বলে একাধিক বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ কর্তৃপক্ষের তরফে অভিযোগ উঠে আসছিল। তার জন্যই এবার গতবারের তুলনায় অনেকটাই আগে জয়েন্ট বোর্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রবেশিকা পরীক্ষা নেয়।

জয়েন্ট বোর্ড এর  তরফে জানানো হয়েছে উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের ফলাফল বেরোনোর সঙ্গে সঙ্গেই rank কার্ড দিয়ে দেবে বোর্ড। তার ফলে পরীক্ষার্থীরা আগে থেকেই সিদ্ধান্ত নিয়ে নিতে পারবেন কোন কলেজে বাকি নিয়ে তারা পড়তে চান। এরই জেরে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের আসন খালি থাকা প্রবণতা আটকানো যাবে বলে মনে করছে বোর্ডের আধিকারিকরা। অন্যদিকে এখনও পর্যন্ত কেন্দ্রীয় স্তরে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রবেশিকা পরীক্ষা এখনও পর্যন্ত নেওয়া হয়নি।JEEMAIN,NEET এর মত সর্বভারতীয় প্রবেশিকা পরীক্ষা গুলি সেপ্টেম্বর মাসে হওয়ার কথা রয়েছে। বারবার কেন্দ্রের তরফে ন্যাশানাল টেস্টিং এজেন্সি এই পরীক্ষার দিনক্ষণ ঘোষণা করলেও করোনা ভাইরাস সংক্রমণের জন্য সেই পরীক্ষার দিনগুলিকে স্থগিত করতে হচ্ছে। এ রাজ্যের বহু পরীক্ষার্থী এই প্রবেশিকা পরীক্ষা গুলির দিকে তাকিয়ে রয়েছে।ফলতো রাজ্য জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করে দিলেও সর্বভারতীয় স্তরে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রবেশিকা বা মেডিক্যালের প্রবেশিকা না হওয়ার জেরে কিছুটা দ্বিধায় পড়তে পারেন রাজ্যের ছাত্রছাত্রীরা বলেই মনে করছে একাংশ।

 সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by: Elina Datta
First published: August 5, 2020, 7:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर