ভারতের হাতেই করোনা চিকিৎসার চাবিকাঠি?‌ দেশের সংস্থা শুরু করল নতুন ওষুধের ট্রায়াল

Small bottles labeled with a "Vaccine COVID-19" sticker and a medical syringe. (Reuters)

জাপানের একটি সংস্থা Favipiravir ওষুধটি তৈরি করে। জ্বর বা ফ্লু নিরাময়ের জন্য এটি ব্যবহার করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল ২০১৪ সালে।

  • Share this:

    #‌বেঙ্গালুরু:‌ ভারতই কি তাহলে পারবে করোনা মোকাবিলায় সঠিক চিকিৎসার দিকে এগিয়ে যেতে?‌ গ্লেনমার্ক ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের দাবি সেই দিকেই ইঙ্গিত করছে। মঙ্গলবার সংস্থার পক্ষ থেকে ইঙ্গিত করা হয়েছে, খুব তাড়াতাড়ি Favipiravir ও Umifenovir ‌ওষুধের একটি মিলিত প্রয়োগে COVID-19–এর চিকিৎসা শুরু করা হবে। এই পরীক্ষার জন্য যে সমস্ত করোনা আক্রান্তরা মৃদু লক্ষণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন, তাঁদের মধ্যে থেকে ১৫৮ জনকে নথিভুক্ত করা হবে। ‌আর তাতেই সাফল্য মিলতে পারে বলে আশা।

    পৃথিবীতে এখনও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। ভাইরাসের মোকাবিলায় ক্রমাগত লড়াই করে চলেছেন গবেষকরা। পৃথিবীর নানা প্রান্তে করোনা মোকাবিলায় ভ্যাকসিনের পরীক্ষা চলছে, নানারকম ওষুধের মিশ্রণ প্রয়োগ করে দেখা হচ্ছে। সম্প্রতি হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের ব্যবহার নিয়ে নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছে হু। কিন্তু একটা পথ তো খুঁজে বের করতেই হবে।

    জাপানের একটি সংস্থা Favipiravir ওষুধটি তৈরি করে। জ্বর বা ফ্লু নিরাময়ের জন্য এটি ব্যবহার করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল ২০১৪ সালে। তারপর থেকে এটি ব্যবহৃত হয়। অন্যদিকে Umifenovir রাশিয়া ও চিনে বিশেষ প্রকার কয়েকটি ফ্লুয়ের চিকিৎসার কাজে ব্যবহার করা হয়। গ্লেনমার্ক ইতিমধ্যে Favipiravir দিয়ে করোনার পরীক্ষামূলক চিকিৎসা চালাচ্ছে। যার ফল অগাস্ট মাসে পাওয়া যেতে পারে। শুধু ভারতে নয়, Favipiravir দিয়েও অন্য কয়েকটি দেশও করোনা মোকাবিলার পরীক্ষামূলক চিকিৎসা শুরু করেছে।

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published: