আজ থেকেই অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের ট্রায়াল, উৎপাদনের জন্যে রয়েলটি নেবে না ভারতীয় উৎপাদক

সেপ্টেম্বরের মধ্য বাজারে আসতে পারে করোনার ভ্যাকসিন।

করোনার ভ্রুকুটিতে বিশ্বজুড়ে যখন ১লক্ষ ৭৫ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে তখন পুনাওয়ালার এই বার্তা আশ্বাস জোগাচ্ছে গোটা পৃথিবীকেই।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: আজই মানবদেহে ট্রায়াল হবে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের তৈরি ভ্যাকসিনের। পরীক্ষায় সফল হলেই করোনামুক্তি নিশ্চিত হবে। কিন্তু এই ভ্যাকসিন সহজলভ্য হবে তো? গরিব ভারতবাসীরা এই ভ্যাকসিন ব্যবহার করতে পারবে তো? প্রশ্নের উত্তরে ভরসা দিচ্ছেন অক্সফোর্ডের এই গবেষণার অন্যতম শরিক সিরাম ইন্সটিটিউট অফ ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষ। সংস্থার ডিরেক্টর অদর পুনাওয়ালার আশ্বাস,মানবতার স্বার্থে এখন দরকার আগে বাজারে ভ্যাকসিনটা আনা। কাজেই পেটেন্ট বা রয়ালটি বাবদ একটি টাকাও তাঁরা নেবেন না।

    অক্সফোর্ডের গবেষকরা নিজেদের গবেষণার ব্যাপারে এতটাই নিশ্চিত যে তাঁরা ভ্যাকসিনটির ট্রায়াল চলাকালেই ভ্যাকসিনটি তৈরির বরাত দিয়ে দিয়েছেন। বিশ্বের বহু সংস্থার মতোই উৎপাদনের দায়িত্ব পেয়েছে সিরাম ইন্সটিটিউ। অক্সফোর্ডের গবেষকরা ঘোষণা করে দিয়েছেন, তাঁরা আশাবাদী সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই ভ্যাকসিন বাজারে আনার ব্যাপারে। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে ভ্যাকসিনটি সকলে ব্যাবহার করতে পারবেন কিনা। আর্থিক ভাবে পিছিয়ে থাকা মানুষের এই ভ্যাকসিন পক্ষে এই ভ্যাকসিন কেনা সম্ভব হবে কিনা। এই প্রশ্নের উত্তরেই পুনাওয়ালা এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে বলছে, "আমরা কোনও ভ্যাকসিনেরই পেটেন্ট করি না।নিই না বাৎসরিক রয়েলটিও।"

    অর্থাৎ যে কোনও সংস্থাই চাইলে এই ভ্যাকসিন ব্যবহার করতে পারবে। করোনার ভ্রুকুটিতে বিশ্বজুড়ে যখন ১লক্ষ ৭৫ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে তখন পুনাওয়ালার এই বার্তা আশ্বাস জোগাচ্ছে গোটা পৃথিবীকেই।

    Published by:Arka Deb
    First published: