• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • দেবীপক্ষেই সুসংবাদ! ফেব্রুয়ারিতেই সম্পূর্ণ করোনা মুক্তি, জানিয়ে দিলেন ICMR-এর বিশেষজ্ঞরা

দেবীপক্ষেই সুসংবাদ! ফেব্রুয়ারিতেই সম্পূর্ণ করোনা মুক্তি, জানিয়ে দিলেন ICMR-এর বিশেষজ্ঞরা

করোনা নিয়ে দারুণ সুসংবাদ দিল আইসিএমআর প্যানেল।

করোনা নিয়ে দারুণ সুসংবাদ দিল আইসিএমআর প্যানেল।

রিপোর্টে স্পষ্ট বলা হয়েছে, সঠিক সময়ে ব্যবস্থা না নিলে প্রভাব পড়তে পারত আরও ১৫ গুণ বেশি।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনার যে সর্বোচ্চ সংক্রমণ হার, তা চলে গিয়েছে। এখন অপেক্ষা যুদ্ধজয়ের। সব ঠিক থাকলে ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যেই চলে যাবে করোনা। রবিবার দুপুরে এমনই অভয়বার্তা নিয়ে এগিয়ে এল ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ এবং আইআইটি-র সদস্যদের নিয়ে তৈরি কমিটি।

    আজ অর্থাৎ রবিবপারও দেশে করোনা আক্রান্তের সংথ্যা প্রায় ৬২ হাজার। দেশজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৫ লক্ষ। এই কমিটির দাবি দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা শেষমেষ ১ কোটি ছাড়িয়ে যাবে। ১ কোটি পাঁচ লক্ষ আক্রান্ত হবেন সামনের বছর ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যেই। কিন্তু সক্রিয় রোগীর সংখ্যা কমতে কমতে করোনারোগীর সংখ্যা আর তেমন থাকবে না।

    তবে সতর্কও করছেন তাঁরা। কমিটির স্পষ্ট বার্তা, এই সময়ে যদি কোনও বড় আকারের জমায়েত হলে তার মাশুল গুণতে হবে। আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়বে।

    করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর পেরিয়ে গিয়েছে ৮ মাস। এই আটমাসে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। মৃ্ত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ১৪ হাজার ৩১ জনের। কিন্তু কোনও ভ্যাকসিন খুঁজে পাওয়া যায়নি। সংক্রমণ রুখতে একমাত্র ওষধি হিসেবে কাজ করেছে লকডাউন। এমনটাই মনে করছে ওই কমিটি। তাদের বক্তব্য, সময়মতো লকডাউন না হলে ভারতে করোনায় মৃত্যু ২৫ লক্ষ ছাড়াত। রিপোর্টে স্পষ্ট বলা হয়েছে, সঠিক সময়ে ব্যবস্থা না নিলে প্রভাব পড়তে পারত আরও ১৫ গুণ বেশি।

    ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ এবং আইআইটি-র সদস্যদের নিয়ে তৈরি কমিটিটি এই রূপরেখা তৈরি করেছে, যার নাম ইন্ডিয়ান ন্যাশানাল সুপারমডেল। সেই গাণিতিক বিশ্লেষণেই এমন বলা হয়েছে।

    Published by:Arka Deb
    First published: