করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

দু’‌দিনে আক্রান্ত ২৬৬ জন! শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালের ওপর বাড়ছে চাপ

দু’‌দিনে আক্রান্ত ২৬৬ জন! শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালের ওপর বাড়ছে চাপ

চিকিৎসকেরা বারবার বলছেন ন্যূনতম স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলুন। কে কার কথায় কান দেয়! উল্টে চলছে নিয়ম ভাঙার খেলা। শিকেয় উঠেছে কোভিড বিধি।

  • Share this:

কিছুতেই নামছে না আক্রান্তের গ্রাফ। নামার লক্ষণও নেই! চূড়ান্ত অসাবধানতার ছবি শহর শিলিগুড়িজুড়ে। শারদোৎসব শেষ। এবারে কোজাগরী লক্ষ্মী পুজোর বাজারেও থিকথিকে ভিড়। রাস্তা দিয়ে হাঁটা দায়। সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিংয়ের কথা ছেড়ে দিন। মুখ ও নাক থেকে উধাও মাস্ক। না আছে ফেস কভার। দিব্যি চলছে বাজার। অসেচতনতার ছবি ক্রমেই বাড়ছে পাহাড় থেকে সমতলে। তার জেরেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। চিকিৎসকেরা বারবার বলছেন ন্যূনতম স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলুন। কে কার কথায় কান দেয়! উল্টে চলছে নিয়ম ভাঙার খেলা। শিকেয় উঠেছে কোভিড বিধি।

শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালের সুপার অমিতাভ মণ্ডল জানান, পুজোয় ঘোরার পর সোয়াবের নমুনা পরীক্ষা করার সংখ্যা বাড়ছে। সঙ্গে আবহাওয়ারও পরিবর্তন হয়েছে। হালকা শীতের আমেজ। এই দুইয়ের জেরে জেলা হাসপাতালেই প্রতিদিন ১০০ জন করে সোয়াবের নমুনা পরীক্ষা করাচ্ছেন। হাসপাতালের ফিভার ক্লিনিকেও গড়ে ৮০ থেকে ১০০ জন রোগী উপসর্গ নিয়ে আসছেন। স্বাভাবিকভাবেই বাড়ছে চাপ। অন্যদিকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের করোনা পরীক্ষার ল্যাবরোটরিতেও বাড়ছে টেস্টের নমুনা নেওয়ার সংখ্যা। গত ১৫ জুন এই ল্যাব চালু হয়েছিল। আজ পর্যন্ত রেকর্ড সংখ্যক ২ লাখ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে এই ল্যাবে। যা রাজ্যে নমুনা সংগ্রহে নয়া রেকর্ড। ল্যাবের টেকনিশিয়ান সহ অন্য স্বাস্থ্য কর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী। চাপ বাড়ছে সেখানেও। কিন্তু হুঁশ ফিরছে না সাধারন বাসিন্দাদের। গত ২ দিনে শিলিগুড়ি পুরসভার ৪৭টি ওয়ার্ড এবং দার্জিলিংয়ের পাহাড় ও সমতলের চার ব্লক মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ২৬৬ জন! প্রতিদিনই বাড়ছে সংক্রমণ। যার মধ্যে পুর এলাকাতেই ১৩৩ জন আক্রান্ত। গ্রামীন এলাকায় সংখ্যাটা ৯৭ জন। আর পাহাড়ে সংক্রামিত ৩৬ জন। এরপরও সাধারন বাসিন্দাদের মধ্যে সচেতনতা না বাড়লে বিপদ বাড়বে বৈ কমবে না। গত ২ দিনে সুস্থতার হারও ভালো। কোভিড জয় করেছেন ১৭৫ জন!

Partha Sarkar

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: October 30, 2020, 10:07 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर