corona virus btn
corona virus btn
Loading

সমাজিক দূরত্বের থেকে বেশি কাজ দিচ্ছে মাস্কে মুখ ঢাকা! পড়ুন রিপোর্ট

সমাজিক দূরত্বের থেকে বেশি কাজ দিচ্ছে মাস্কে মুখ ঢাকা! পড়ুন রিপোর্ট
Representative Image

মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করে দেওয়ার পর থেকেই সংক্রমণে অনেকটা লাগাম টানা গিয়েছে বলে উঠে এসেছে গবেষণায়৷

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: করোনার সংক্রমণ থেকে বাঁচতে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করেছে বহু দেশ৷ এবং এতে ফল মিলছে৷ বিশেষ করে যে সব দেশ একসময় করোনার ভরকেন্দ্র ছিল, সেখানে নিয়মিত মাস্ক পরার ফলে অনেকটাই পাল্টেছে সংক্রমণের চরিত্র৷ নতুন একটি গবেষণায় এই তথ্য উঠে এসেছে৷ এতে আশা আলো দেখছে গোটা বিশ্ব৷

রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে যে, সামাজিক দূরত্বের থেকেও বেশি কাজ হচ্ছে মাস্ক পরলে৷ এমনকি বাড়িতে থাকা বা stay-at-home-এর থেকেও বেশি ফল মিলছে মাস্কেই৷ মার্কিন গবেষণা শোনাচ্ছে এই আশার বাণি৷ এই রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে PNAS (The Proceedings of the National Academy of Sciences of the USA)-এ৷

৬ এপ্রিল উত্তর ইতালিতে মাস্ক পরা নিয়ম করা হয়৷ ১৭ এপ্রিল একইভাবে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হয় নিউ ইয়র্কে৷ যেই সময় এই দুই জায়গায় এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়, সেই সময় সেখানে করোনার সংক্রমণ বাড়ছিল অত্যাধিক হারে৷ তবে এই নিয়মের পর, তা অনেকটা কমানো গিয়েছে বলে জানানো হয়েছে৷ যা বোঝাতে তুলে ধরা হয়েছে পরিসংখ্যাণ৷ যেদিন থেকে মাস্ক পরা নিয়ম হয়েছে উত্তর ইতালিতে সেই ৬ এপ্রিল থেকে ৯ মে পর্যন্ত ৭৮হাজার সংক্রমণ কমানো গিয়েছে এবং নিউ ইয়র্কেও ১৭ এপ্রিল থেকে ৯ মে ৬৬হাজার কম হয়েছে আক্রান্তের সংখ্যা৷ এতে বোঝা যাচ্ছে মাস্কের গুরুত্ব৷

মাস্ক পরা যখন থেকে বাধ্যতামূলক হয়েছে নিউ ইয়র্কে, তখন থেকে প্রতিদিন গড়ে ৩ শতাংশ কমেছে সংক্রমণের হার৷

সামাজিক দূরত্ব, কোয়ারেন্টাইন, আইসোলেশন, স্যানিটাইজারের নিয়ম আগে থেকেই ছিল৷ সুরক্ষা বিধি হিসেবে এইগুলিকে মেনে নেওয়া হয়েছিল৷ তারপর মাস্কের কথা সামনে আসে ইতালি ও নিউ ইয়র্কে৷ মাস্ক পরার ফলে সরাসরি সংক্রমণ বা বায়ুবাহিত সংক্রমণের ওপর লাগাম টানা যায়৷ যার জন্যই কমছে করোনার হার, মত বিশেষজ্ঞদের৷

ইউ এস সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন জানায় যে কোনও রকম জনসভা, তাতে যত কম লোকই থাকুন না কেন, সেখানে কাপড় দিয়ে মুখ ঢাকা অত্যন্ত জরুরি এবং তা একপ্রকার নিয়মে বেঁধে দিতে হবে৷

Published by: Pooja Basu
First published: June 14, 2020, 8:50 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर