করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

কীভাবে আপনি পাবেন করোনা ভ্যাকসিন? ১০টি বড় খবর জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

কীভাবে আপনি পাবেন করোনা ভ্যাকসিন? ১০টি বড় খবর জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ডাঃ হর্ষ বর্ধনের মতে, প্রাথমিকভাবে, ৩০ কোটি লোক যাদের করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হবে তাদের মধ্যে ১ কোটি স্বাস্থ্যকর্মী, ২ কোটি ফ্রন্টলাইনের কর্মী (পুলিশ, সাফার, সেনা ইত্যাদি) অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: দেশে করোনার সংক্রমণের সংখ্যা ১ কোটি ছাড়িয়ে গিয়েছে। প্রত্যেকে করোন ভাইরাস ভ্যাকসিনের জন্য অপেক্ষা করছেন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ হর্ষ বর্ধন জানিয়েছেন যে করোনার ভ্যাকসিন জানুয়ারির যে কোনও সপ্তাহে ভারতীয় নাগরিকদের জন্য উপলব্ধ হবে। করোনার ভ্যাকসিনের বিতরণের পদ্ধতি সম্পর্কেও তথ্য দিয়েছেন তিনি। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ হর্ষ বর্ধন বলেছেন যে, করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে সরকার কোনও তাড়াহুড়া করতে চায় না। কোন ব্যক্তিকে প্রথমে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হবে? এর উত্তরে তিনি বলেছেন যে, সরকার যথাসাধ্য চেষ্টা করছে যে ভারতের প্রতিটি নাগরিকের কাছে করোনার ভ্যাকসিনে পৌঁছানো উচিত, যাতে ভারত করোনার যুদ্ধে জয়লাভ করতে পারে।

ডাঃ হর্ষ বর্ধনের মতে, ভারত সরকার ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে কোনও তাড়াহুড়ো দেখাতে চায় না। যে ভ্যাকসিনটি সবচেয়ে নির্ভুল, তাকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। সরকারের লক্ষ্য সাধারণ মানুষের কাছে সঠিক ভ্যাকসিন আনা।ডাঃ হর্ষ বর্ধন জানিয়েছেন যে ৩০ কোটি মানুষকে প্রথমে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়ার লক্ষ্য রাখা হয়েছে। এ জন্য, প্রতিটি রাজ্যের সরকারগুলির কাছ থেকে একটি তালিকা চাওয়া হয়েছে, যাদের করোনার প্রথম ডোজ দেওয়া হবে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেছিলেন যে আমরা বিশেষজ্ঞদের দল গঠন করেছি যারা নির্দিষ্ট করবেন যে কারা আগে পাবে ভ্যাকসিন৷

ডাঃ হর্ষ বর্ধনের মতে, প্রাথমিকভাবে, ৩০ কোটি লোক যাদের করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হবে তাদের মধ্যে ১ কোটি স্বাস্থ্যকর্মী, ২ কোটি ফ্রন্টলাইনের কর্মী (পুলিশ, সাফার, সেনা ইত্যাদি) অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছিলেন যে, প্রথম সারির কর্মীদের পাশাপাশি ২৬ কোটি লোক চিহ্নিত করা হয়েছে যাদের বয়স ৫০ বছরের বেশি এবং তারা গুরুতর অসুস্থতায় ভুগছেন।

করোনার ভ্যাকসিন বিতরণ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছিলেন যে গত ৪ মাস ধরে ভারত সরকার রাজ্যগুলির সাথে টিকা প্রস্তুতের কাজে নিযুক্ত রয়েছে। জনগণকে নিরাপদ উপায়ে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য ২৬০ টি জেলার ২০ হাজারেরও বেশি কর্মীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে, একজন ব্যক্তিকে কবে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হবে, সেই ব্যক্তি ফোনে নিজেই তথ্য পাবেন। সমস্ত রাজ্য আমাদের তালিকায় পৌঁছেছে। বিশেষজ্ঞ দল এই তালিকায় কাজ করছে।

ডাঃ হর্ষবর্ধন বলেছেন যে, যাদের নামগুলি করোনার ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তাদের উপরে সরকার কোনও চাপ দেবে না, যদি তাদের মধ্যে কেউ এই ভ্যাকসিন নিতে অস্বীকার করে, তাহলে তা দেওয়া হবে না। ডাঃ হর্ষ বর্ধন বলেছিলেন, কয়েক মাস আগে পর্যন্ত দেশে ১০ লক্ষ সক্রিয় মামলা ছিল, যা এখন কমে দাঁড়িয়েছে তিন লাখ। তিনি বলেছিলেন যে দেশে এ পর্যন্ত করোনার এক কোটিরও বেশি মামলা পাওয়া গেছে তবে ৯৫ লক্ষেরও বেশি রোগী তাদের বাড়িতে ফিরে এসেছেন।

Published by: Pooja Basu
First published: December 21, 2020, 1:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर