করোনা আতঙ্কে বন্ধ রেস্তোরাঁ ! অসহায় কর্মীদের আর্থিক সাহায্য করে নজির গড়লেন শহরবাসী

করোনা আতঙ্কে বন্ধ রেস্তোরাঁ ! অসহায় কর্মীদের আর্থিক সাহায্য করে নজির গড়লেন শহরবাসী
photon source twitter

রেস্তোরাঁ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চিন্তায় পড়ে যান কর্মীরা। কিভাবে চলবে তাঁদের সংসার !

  • Share this:

#টেক্সাস: পৃথিবীতে এখন একটাই আতঙ্ক, করোনা ভাইরাস। চিনের ছোট্ট শহর থেকে যেভাবে দ্রত গতিতে বিশ্বকে ভয় দেখাচ্ছে এই ভাইরাস তাতে আতঙ্কিত হওয়ারই কথা। সব দেশ নিজের নিজের মতো করে সতর্কতা অবলম্বন করছে যাতে এই ভাইরাস ছড়ানো থেকে আটকানো যায়। আর ভাইরাস ছড়ানো আটকাতে হলে সবচেয়ে আগে করা দরকার কোয়ারেন্টাইন। সব দেশই মোটামোটি মানুষজনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়েছে। তবে গৃহবন্দী জীবন যে সুখের নয়। সেই জীবনকে সামান্য হলেও রঙিন করতে অনেকেই অনেক কিছু করছেন। বন্ধ হয়ে গেছে স্কুল কলেজ। বাচ্চা থেকে বুড়ো সকলেই গৃহবন্দী। আতঙ্ক গ্রাস করছে সকলকে। কিন্তু তার মধ্যেও তো বেঁচে থাকতে হবে। লড়াই করতে হবে। হাল ছেড়ে দিলে চলবে কেন। তাছাড়া সামান্য সতর্কতা মানলেই এই ভাইরাসকে কাবু করা যায়। কারও শরীরে এই ভাইরাস ধরা পড়লেও ঘাবড়ে যাবেন না। সতর্কতা মানুন, ডাক্তারের পরামর্শ নিন। রেস্ট করুন, নিজেকে কোয়ারেন্টাইন করুন তাহলেই দূরে পাঠানো যাবে এই ভাইরাসকে। সারা বিশ্ব জুড়ে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় সকলকে পাঠানো হচ্ছে হোম কোয়ারেন্টাইনে।

তবে টেক্সাস শহরের হাউসটনে যা হল তা সত্যিই অবাক করে। করোনার জন্য বন্ধ হয়ে গেল এই শহরের একটি রেস্তোরাঁ। রেস্তোরাঁ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চিন্তায় পড়ে যান কর্মীরা। কিভাবে চলবে তাঁদের সংসার। কারণ রেস্তোরাঁ বন্ধ হলে কর্মীদের বেতন দেওয়া হবে না। তখনই এই শহরের বাসিন্দারা নতুন নজির গড়লেন। তারা টিপস হিসেবে এই রেস্তোরাঁর কর্মীদের ৯০০০ ডলার দান করলেন। শুধু মাত্র কর্মীদের কথা ভেবেই এই কাজ করলেন তাঁরা। এই টিপসের টাকা নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নিলেন তারা। এভাবেও পাশে থাকা যায়।

First published: March 18, 2020, 11:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर