corona virus btn
corona virus btn
Loading

আরও এক মহামারীর সম্ভাবনা! এবারও আঁতুড় চিন, ভয়াল গতিতে বাড়ছে G4 সংক্রমণ

আরও এক মহামারীর সম্ভাবনা! এবারও আঁতুড় চিন, ভয়াল গতিতে বাড়ছে G4 সংক্রমণ
প্রতীকী চিত্র।

মানুষের কোষের প্রতিলিপি তৈরি করতে ওস্তাদ এই ভাইরাস। সবচেয়ে বড় আশঙ্কার, ঋতুপরিবর্তনকালীন সর্দিকাশির ভ্যাকসিনে G4 নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়।

  • Share this:

বেজিং: আরও এক মারাত্মক সংক্রমকের সঙ্গে লড়তে হতে পারে বিশ্বকে। সোমবার মার্কিন বিজ্ঞান জার্নাল PNAS-এ তেমন আশঙ্কার কথাই প্রকাশ করা হল। গবেষকরা বলছেন, এই ভয়াল সোয়াইন ফ্লু-এর উৎসস্থলও চিন।

বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন G4 নামক এই সোইয়ন ফ্লু ২০১৯ সালের মহামারী ডেকে আনা সোয়াইন ফ্লু h191-এরই বিবর্তিত রূপ। চিনের সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশানের গবেষকরা মনে করছেন, সার্বিক ভাবেই প্রাণঘাতী মহামারী হয়ে ওঠার সম্ভবনা বহন করছে g4।

উল্লেখ্য ২০১১-২০১৮ সাল পর্যন্ত ৩০ হাজার শুয়োরের লালারস পরীক্ষা করেন চিনা গবেষকরা। ১০ টি অঞ্চল ঘুরে ঘুরে এই পরীক্ষা হয়। গবেষকরা এই সময়ের মধ্যে ১৭৯টি সোয়াইফ্লু ভাইরাসের সন্ধান পেয়েছেন।

এর পরেই পরবর্তী ধাপের পরীক্ষা শুরু করেন বিজ্ঞানীরা। দেখা যায়, অত্যন্ত ভয়াবহ এই G4 ভাইরাস। মানুষের কোষের প্রতিলিপি তৈরি করতে ওস্তাদ এই ভাইরাস। সবচেয়ে বড় আশঙ্কার, ঋতুপরিবর্তনকালীন সর্দিকাশির ভ্যাকসিনে G4 নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়।

গবেষণা বলছে, চিনের শুয়োরের মাংস বিক্রেতাদের মধ্যে ১০.৪ শতাংশ ইতিমধ্যেই এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এমনকী ৪.৪ শতাংশ সাধারণ মানুষের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়েছে এই সংক্রমণ।

এই পরিস্থিতিতে গবেষকরা বলছেন, এখনই ব্যবস্থা না নিলে অদূর ভবিষ্যতে বড় মহামারীর আকার ধারণ করবে G4 সংক্রমণ।

Published by: Arka Deb
First published: June 30, 2020, 8:57 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर