corona virus btn
corona virus btn
Loading

'যাদের মাইক ধরার কথা তাদের ধরতে দিন', মুখ্যমন্ত্রীকে টার্গেট করে তোপ রাজ্যপালের

'যাদের মাইক ধরার কথা তাদের ধরতে দিন', মুখ্যমন্ত্রীকে টার্গেট করে তোপ রাজ্যপালের
রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত চরমে।

ঠাণ্ডযুদ্ধের আবহেই বৃহস্পতিবার কার্যত টুইট করে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে দেওয়ার কথা মুখ্যমন্ত্রীকে বললেন রাজ্যপাল। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, এদিনের ঘটনায়, রাজ্য- রাজ্যপাল সংঘাত জোরালো হল।

  • Share this:

এবার কার্যত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে টার্গেট করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়‌। টুইট করে কড়া ভাষায় মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করলেন রাজ্যপাল।

বৃহস্পতিবার টুইট করে তিনি বলেন "কেন্দ্রীয় দলের সঙ্গে অসৌজন্য নিয়ে উদ্বিগ্ন। নির্বিঘ্নে কাজ নিশ্চিত করুন মুখ্যমন্ত্রী। WHO এর দলকে স্বাগত জানানো হয় রাজ্যে। WHO আশায় লাভ কি হল মুখ্যমন্ত্রী বলুন। সংবিধান মেনে চলুন। যাদের ধরার কথা তারাই মাইক ধরুন।"

গত কয়েকদিন ধরেই রাজ্যে করোনাভাইরাস মোকাবিলা নিয়ে রাজ্যের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রাজ্যের লকডাউন বিধি না মানা, সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স ১০০% কার্যকরী না হওয়া নিয়ে রাজ্যের বিরুদ্ধে একাধিকবার মুখ খুলেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। বৃহস্পতিবার সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে প্রশ্ন ছুঁড়লেন তিনি।

সোমবার রাজ্যে পা দেয় কেন্দ্রের আন্তমন্ত্রক পর্যবেক্ষকদল। মঙ্গলবার থেকেই কেন্দ্রীয় দলকে কাজ করতে দেওয়ার আবেদন জানান রাজ্যপাল। এদিন টুইট করে আরও এক ধাপ এগিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে সংবিধান মেনে চলার পরামর্শও দিলেন রাজ্যপাল।

কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলকে কাজ করতে না দেওয়া নিয়ে সরব ছিলেন রাজ্যপাল। রাজ্যে কেন্দ্রীয় দলের প্রতিনিধি আসা নিয়ে রাজ্য ও কেন্দ্রের মধ্যে সংঘাতের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। রাজ্যকে না জানিয়ে কেন্দ্রের তরফে প্রতিনিধি দল পাঠানো নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী চিঠি পাঠিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রীকে। অন্য দিকে কেন্দ্রীয় দল রাজ্যের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ তোলে। এর পরে  কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র দপ্তরের তরফে রাজ্যের মুখ্যসচিব কে চিঠি দিয়ে কেন্দ্রীয়় দলকে সহযোগিতার কথা বলা হয়। বুধবারই রাজ্যের মুখ্য সচিব জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় দলকে রাজ্যের তরফে সব রকম সহযোগিতা করা হবে।

বুধবার সন্ধেবেলায় কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল কোথায় কোথায় পরিদর্শনে যাবে সেই বিষয়ে বিস্তারিত তালিকা দেওয়া হয় রাজ্যকে। যার মধ্যে রাজ্যের চার জেলার হটস্পট গুলিকে উল্লেখ করেছে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। এই ঠাণ্ডযুদ্ধের আবহেই বৃহস্পতিবার কার্যত টুইট করে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে  দেওয়ার কথা মুখ্যমন্ত্রীকে বললেন রাজ্যপাল। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, এদিনের ঘটনায়, রাজ্য- রাজ্যপাল সংঘাত জোরালো হল।

Published by: Arka Deb
First published: April 23, 2020, 10:36 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर