corona virus btn
corona virus btn
Loading

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে একমত রাজ্যপাল ! UGC ও কেন্দ্রকে জানাবেন রাজ্যের অবস্থান

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে একমত রাজ্যপাল ! UGC ও কেন্দ্রকে জানাবেন রাজ্যের অবস্থান

বৈঠক শেষে রাজ্যপাল কার্যত রাজ্যের পাশেই দাঁড়িয়ে এদিন বলেন "রাজ্যের যা অবস্থান রয়েছে মূল্যায়ন নিয়ে তা আমি ইউজিসি ও কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রীকে জানাব। ছাত্র-ছাত্রীদের স্বার্থই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ।"

  • Share this:

#কলকাতা: কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে একমত রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। সোমবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও উচ্চ শিক্ষা সচিবের সঙ্গে প্রায় দুই ঘণ্টা বৈঠক করেন রাজ্যপাল রাজভবনে। বৈঠকে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের মূল্যায়ন কিভাবে হবে তা নিয়ে খুঁটিনাটি জেনে নেন রাজ্যপাল। বিশেষত ইউজিসি যেমন একদিকে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য গাইডলাইন জারি করেছে সেই দিকে দাঁড়িয়ে রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দফতর বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে কিভাবে পরীক্ষা নেওয়া বা মূল্যায়ন করার কথা বলছেন তা নিয়েই এ দিনের বৈঠকে  রাজ্যপালের সঙ্গে মূলত আলোচনা হয়।

বৈঠকে রাজ্যের তরফের জারি করা অ্যাডভাইজারি সম্পর্কেও অবগত করা হয় রাজ্যপালকে। পাশাপাশি পরীক্ষা নয় তার বদলে এই ৮০-২০ ফর্মুলাতে রাজ্য সরকার বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের যে মূল্যায়ন করতে চায় সে বিষয়ক তথ্য সহ বিভিন্ন বিষয়ে এ দিনের বৈঠকে তুলে ধরা হয় রাজ্যপালের সামনে। পাশাপাশি রাজ্যের অ্যাডভাইজারি মেনে ইতিমধ্যেই রাজ্যের বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় মূল্যায়নের প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে বলেও জানানো হয় রাজ্যপালকে। যদিও বর্তমান কোন ভাইরাস সংক্রমণ যে হারে বাড়ছে সেই পরিস্থিতিতেই ইউজিসির গাইডলাইন মেনে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয় বলেও রাজ্যপালকে অবহিত করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

বৈঠক শেষে রাজ্যপাল কার্যত রাজ্যের পাশেই দাঁড়িয়ে এদিন বলেন " আজ দু'ঘণ্টা ধরে বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের কিভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে সেই বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রী ও উচ্চ শিক্ষা সচিবের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। রাজ্যের যা অবস্থান রয়েছে মূল্যায়ন নিয়ে তা আমি ইউজিসি ও কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রীকে জানাব। ছাত্র-ছাত্রীদের স্বার্থই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ।"

অন্যদিকে আগামী বুধবার উপাচার্য,সহ-উপাচার্যদের সঙ্গে ভার্চুয়াল কনফারেন্স করতে চায়না রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। এর আগে একদিন এই বৈঠক করতে চাইলেও সেই বৈঠক কার্যত হয়নি। আবারো সেই বৈঠক করার আগ্রহ প্রকাশ করে উচ্চশিক্ষা সচিবকে ইতিমধ্যেই অবগত করেছেন রাজ্যপাল। যদিও সেই বৈঠক হচ্ছে নাকি সে সম্পর্কে এখনো পর্যন্ত নিশ্চিত নয় অন্তত উচ্চশিক্ষা দফতর সূত্রে এমন খবর। ইতিমধ্যেই এই বৈঠকের বিষয় সম্পর্কে রাজভবন থেকে উপাচার্যদের কাছে যাওয়ার পর উপাচার্যদের তরফেই জানানো হয়েছে রাজ্যের আইন মোতাবেক রাজ্যপালকে উচ্চ শিক্ষা দপ্তর মারফত জানাতে হবে। যদিও তারপরে সোমবার রাজ্যপালের বিরুদ্ধে কার্যত চাঞ্চল্যকর অভিযোগ এনেছে "উপাচার্য পরিষদ।"

এদিন উপাচার্য পরিষদের তরফে অভিযোগ জানানো হয় এ রাজ্যপাল বৈঠকে যোগদান প্রসঙ্গে উপাচার্যদের কার্যত হুমকির সুরে কথা বলছেন। বৈঠকে যোগ না দিলে আইনত ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও উপাচার্যদের জানিয়েছেন বলে উপাচার্য পরিষদের তরফ এদিন অভিযোগ আনা হয়। রাজ্যপালের এইরকম নোটে উপাচার্যরা অপমানিত বলেও "উপাচার্য পরিষদের" তরফ এ এদিন প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয়। যদিও উপাচার্য পরিষদের এই প্রেসবিজ্ঞপ্তির পর অবশ্য রাজভবনের কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

এরই পাশাপাশি শাসকদলের অধ্যাপক সংগঠন ওয়েবকুপার তরফে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক কে চিঠি পাঠায় ইউজিসির নয়া গাইডলাইনের বিরোধিতা করে। সিবিএসই এর পরীক্ষার প্রসঙ্গ তুলে এনে প্রশ্ন তোলা হয় শাসকদলের অধ্যাপক সংগঠনের তরফে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা কেন নেওয়া হচ্ছে? সিবিএসই এর পরীক্ষা সম্পর্কে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের কোথাও এদিনের চিঠিতে মনে করিয়ে দিয়েছে এই অধ্যাপক সংগঠন। তবে সোমবারের রাজ্যপালের সঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রী উচ্চ শিক্ষা সচিবের আলোচনার পর রাজ্যপালের তরফে ইউজিসি ও কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী কে কি জানানো হয় সেদিকেই তাকিয়ে কার্যত বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের একাংশ।

 সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by: Elina Datta
First published: July 13, 2020, 10:58 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर