corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনের জেরে আর্থিক সঙ্কটে সংস্থা, কর্মীদের চিঠি দিয়ে জানাল গো-এয়ার কর্তৃপক্ষ

লকডাউনের জেরে আর্থিক সঙ্কটে সংস্থা, কর্মীদের চিঠি দিয়ে জানাল গো-এয়ার কর্তৃপক্ষ
সংগৃহীত ছবি

ভারতে এই মুহূর্তে করোনা সংক্রমণের জেরে বিপুল খতির মুখে বিমান সংস্থাগুলি। ইতিমধ্যেই একাধিক বিমান পরিবহণ সংস্থা কর্মীদের বেতন কাটছাঁট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অনেকে একাংশের কর্মীদের এপ্রিল-মে'র বেতন বন্ধ রেখে তাঁদের ছুটিতে পাঠিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লিঃ লকডাউনে বিপুল আর্থিক ক্ষতির মুখে সংস্থা। কর্মীদের চিঠি দিয়ে সংস্থার আর্থিক সঙ্কটের কথা জানালেন গো-এয়ারের দুই মালিক নুসলি ওয়াদিয়া এবং জেহ ওয়াদিয়া। চিঠিতে তাঁরা জানিয়েছেন, এই সঙ্কট থেকে মুক্তি পেতে ইতিমধ্যেই তাঁরা একাধিকবার সরকারের কাছে আর্থিক সাহায্য চেয়ে দরবার করেছেন। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। চিঠিতে তাঁরা এও জানিয়েছেন, ১ জুনের আগে বিমান পরিষেবা স্বাভাবিক হওয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই। এই অবস্থায় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কাছেও ঋণ চেয়েছিলেন। কিন্তু এখনও রিজার্ভ ব্যাঙ্কও কোনও সিদ্ধান্ত জানায়নি।

চিঠিতে ওই দুই কর্ণধার লিখেছেন, "অভূতপূর্ব সঙ্কটে আমেরিকা, ব্রিটেন-সহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ তাদের বিমান সংস্থাগুলিকে টিকিয়ে রাখতে এবং কর্মীদের স্বার্থের কথা ভেবে বিভিন্ন রকম আর্থিক সাহায্যের কথা ঘোষণা করেছে। ওই সব দেশের ফেডারেল ব্যাঙ্কগুলিও নানা সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। একই রকম সাহায্য চেয়ে আমরা নিয়মিত কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছি। যোগাযোগ রাখা হয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সঙ্গেও।" ওয়াদিয়ারা জানিয়েছেন, ২৪ মার্চ থেকে সরকারি ভাবে বিমান ওঠানামা বন্ধ হলেও তার আগের সপ্তাহ থেকেই বিমান পরিষেবা তলানিতে গিয়ে ঠেকেছিল। তা সত্ত্বেও তাঁরা ৬০ শতাংশ কর্মীকে বেতন দিয়েছেন। এমনকী, সংস্থার শীর্ষস্থানীয়রা অনেকেই যে পুরো বেতন নিচ্ছেন না বা ৫০ শতাংশ  বেতন কম নিচ্ছেন, তা-ও জানানো হয়েছে চিঠিতে।

ভারতে এই মুহূর্তে করোনা সংক্রমণের জেরে বিপুল খতির মুখে বিমান সংস্থাগুলি। ইতিমধ্যেই একাধিক বিমান পরিবহণ সংস্থা কর্মীদের বেতন কাটছাঁট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অনেকে একাংশের কর্মীদের এপ্রিল-মে'র বেতন বন্ধ রেখে তাঁদের ছুটিতে পাঠিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গো-এয়ার তাদের মধ্যে অন্যতম। এই অবস্থায় সার্বিক পরিস্থিতি জানিয়ে সংস্থার পক্ষ থেকে কর্মীদের চিঠি দেওয়ার ঘটনা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

SHALINI DATTA

First published: May 4, 2020, 8:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर