Anthony Fauci : কোভিশিল্ডের দু’টি ডোজের ব্যবধান বৃদ্ধি 'যুক্তিযুক্ত', সিদ্ধান্তে সিলমোহর দিলেন হোয়াইট হাউজের স্বাস্থ্য উপদেষ্টা!

কোভিশিল্ডের 'গ্যাপ' যুক্তিযুক্ত, বললেন ফসি

বৃহস্পতিবারই কেন্দ্রীয় সরকার ঘোষণা করে যে, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন কোভিশিল্ডের দু'টি ডোজের মধ্যে সময়ের ব্যবধান ৬-৮ সপ্তাহ থেকে বাড়িয়ে ১২-১৬ সপ্তাহ করা হল ৷ এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন অনেকে।

  • Share this:

    #ওয়াশিংটন : ভ্যাকসিন উৎপাদন বাড়ানোর উপর জোর দেওয়া আর কোভিশিল্ডের মত ভ্যাকসিনের দুটি ডোজের মাঝে সময়ের ব্যবধান বাড়ানোর পদক্ষেপের প্রশংসা করলেন স্বয়ং হোয়াইট হাউজের প্রধান স্বাস্থ্য পরামর্শদাতা চিকিৎসক অ্যান্থনি ফসি ৷ বৃহস্পতিবার একটি সাক্ষাৎকারে তিনি এই সিদ্ধান্তকে যথেষ্ট যুক্তিযুক্ত পদক্ষেপ বলে আখ্যা দেন ৷

    বৃহস্পতিবারই কেন্দ্রীয় সরকার ঘোষণা করে যে, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন কোভিশিল্ডের দু'টি ডোজের মধ্যে সময়ের ব্যবধান ৬-৮ সপ্তাহ থেকে বাড়িয়ে ১২-১৬ সপ্তাহ করা হল ৷ এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন অনেকে। একাংশের দাবি, বস্তুত ভ্যাকসিনের আকালের মধ্যে মুখরক্ষার জন্য ঘাটতি পূরণ করতেই আদতে এই ব্যবস্থা নিয়েছে কেন্দ্র ৷ তবে ফসির মতে ভ্যাকসিনের প্রভাবের দিক থেকেও এই বর্ধিত ব্যবধান উপকারী হবে বলেই তিনি মনে করেন। তিনি বলেন, "ভারতের মতো দেশে খুবই সমস্যাপূর্ণ অবস্থায় প্রচুর সংখ্যক মানুষকে ভ্যাকসিন দিতে হবে ৷ সেটা যত দ্রুত করা যায়, ততই ভাল৷ এটা খুবই যুক্তিপূর্ণ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে৷

    এদিকে এদিন থেকেই ভারতের মাটিতে তৃতীয় ভ্যাকসিন স্পুটনিক-ভি-এর প্রয়োগ শুরু হয়ে গেল। এর ফলে ১৮ বছর ও তার ঊর্ধ্বে ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রকল্পে তিনটি ভ্যাকসিন হাতে রইল ভারতের ৷ স্পুটনিক-ভি-র প্রশংসা করে ফসি জানিয়েছেন, কোভিড-১৯ -এর বিরুদ্ধে এর লড়াইয়ের ক্ষমতা ৯০ শতাংশ ৷ গত বছর আমেরিকা কোরোনাভাইরাস বিরোধী লড়াইয়ে দু’টি যুদ্ধজাহাজ ইউএসএনএস মার্সি আর ইউএসএনএস কমফর্টকে স্থায়ী ভাবে নোঙর করেছিল নিউ ইয়র্ক আর লস অ্যাঞ্জেলেসে ৷ সেই প্রসঙ্গে ফসি বলেন, "আমি জানি ভারতে কোভিড রোগীরা হাসপাতালে বেড পাচ্ছেন না, কারণ সেখানে বেড খালি নেই ৷ এই অবস্থায় সামরিক সাহায্য নিলে দ্রুত সমস্যার সমাধান হতে পারে ৷"

    তবে এই মুহূর্তে ভারতে সংক্রমণের যে হার, তাতে ভারতে যাতায়াত বন্ধ রাখাকেই সমর্থন করছেন ফসি ৷ একদিকে বিশ্বে বহু মানুষ ভ্যাকসিন পাচ্ছেন, আর গরমের ছুটিও চলে এসেছে ৷ তাই সব দেশই জোর চেষ্টা চালাচ্ছে ভ্যাকসিন পাসপোর্ট বা ডিজিটাল হেলথ সার্টিফিকেশন প্রোগ্রামের অন্তর্ভুক্ত হতে ৷ তবে "অনেক দেশই ভ্যাকসিন পাসপোর্ট না থাকলে বিমানে যাতায়াত করতে দিচ্ছে না, কিন্তু আমেরিকায় ভ্যাকসিন পাসপোর্ট এখনও আবশ্যিক হয়নি"।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: