corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাইকোর্ট পাড়ার দুঃস্থদের জন্য সবজির হাট বসাল তৃণমূল লিগ্যাল সেল

হাইকোর্ট পাড়ার দুঃস্থদের জন্য সবজির হাট বসাল তৃণমূল লিগ্যাল সেল

সবজি ছাড়াও খাদ্য সামগ্রীর প্যাকেট দেওয়া হল এদিন। ৩ কেজি চাল, ৫০০ গ্রাম মুসুর ডাল, ৫০০ মিলিলিটার সর্ষের তেল আর একটি করে সাবান।

  • Share this:

#কলকাতা: সকালেই ব্যাগ ভর্তি সবজি নিয়ে যাওয়া মানুষগুলোর মুখচোখ বলে দিচ্ছিল গত ২ মাস ওরা ভাল ছিল না। ব্যাগে কি কি পেলেন?  প্রশ্নটা করতেই চটপট উত্তর; আলু, ঢেঁড়স, কুমড়ো,  কাঁচা কলা, পেপে, চিচিংগা,  ফুলকপি, বাঁধা কপি, পটল। এত সবজি নিয়ে সকাল সকাল হাইকোর্ট পাড়ায় হাজির মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য এবং তৃণমূল লিগাল সেল। ঘন্টা তিনেক সবজি দিতে ব্যস্ত থাকলেন মন্ত্রী ও তৃণমূল লিগাল সেলের চেয়ারম্যান ভাস্কর বৈশ্য।

সবজি ছাড়াও খাদ্য সামগ্রীর প্যাকেট দেওয়া হল এদিন। ৩ কেজি চাল, ৫০০ গ্রাম মুসুর ডাল, ৫০০ মিলিলিটার সর্ষের তেল আর একটি করে সাবান। প্রত্যেককে মাস্কও দিলেন মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। হাইকোর্ট পাড়ায় বিচারের কর্মযজ্ঞের সঙ্গে সমানতালে রুটিরুজি জড়িয়ে থাকে ২০০০ বেশি মানুষের। কেউ গাড়ি ধোয়ার কাজ করেন তো কেউ মুড়ি বিক্রি করেন। দোকানে কাজ, আইনজীবীদের চেম্বারে ফাইফরমাশ কেটেও অনেকের দিন চলে উকিল পাড়া থেকে।

১৮ মার্চ পর থেকে হাইকোর্ট বন্ধ। অতি জরুরি মামলার শুনানি হচ্ছে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে। লকডাউনের জেরে হাইকোর্ট পাড়ায় বিচারপ্রার্থীদের আনাগোনা বন্ধ। আইনজীবীদের যাতায়াতও বন্ধ । তবু ওরা হাইকোর্টকে আঁকড়ে ধরেই গত ২মাস চালিয়ে যাচ্ছে জীবন যুদ্ধ। আমফান ঘূর্ণিঝড় জীবনের সংগ্রামকে আরও তীব্র করেছে।

এই অসময়ে হাইকোর্ট পাড়ার এই অসহায় পরিবার গুলোর কাছে সাহায্য তুলে দেওয়া বলছেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। যিনি নিজেও একজন আইনজীবী। চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের কথায়, "হাইকোর্ট পাড়ায় রাজ্যের বাইরের অনেক প্রদেশের মানুষ কাজ করেন। কেউ চা বিক্রি করেন, কেউ সিঙারা বানান। আইনজীবীরা শুধু মক্কেলদেরই দেখেন না। সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতা দেখিয়ে ১৫০০-২০০০ মানুষের মুখে খাবারের উপকরন তুলে দিয়েছে। তৃণমূল আইনজীবী সেলের এমন উদ্যোগ প্রশংসনীয়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথা মতন মানুষের পাশে থেকে আমরা সব সময় কাজ করি।"আইনজীবী সঞ্জয় বর্দ্ধন,  রাতুল বিশ্বাস, জয়দীপ ব্যানার্জিরা বলছেন, প্রতিদিন কর্মসূত্রে হাইকোর্টে এসে মানুষগুলো সঙ্গে দেখা হয়। এই মানুষগুলো ছাড়া হাইকোর্ট পাড়া বড়ই বেমানান। অসময়ে ওদের মুখে খাবার তুলে পেরে ভালো লাগছে।

Arnab Hazra

Published by: Elina Datta
First published: May 23, 2020, 11:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर