corona virus btn
corona virus btn
Loading

দেওয়া হচ্ছিল নিম্নমানের পোকা ধরা চাল! অভিযোগে সোচ্চার হয়ে যা করলেন দুঃস্থরা

দেওয়া হচ্ছিল নিম্নমানের পোকা ধরা চাল! অভিযোগে সোচ্চার হয়ে যা করলেন দুঃস্থরা

লকডাউনের সাহায্যের মধ্যেও রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে

  • Share this:

#উত্তর দিনাজপুর: লকডাউনে সাহায্য হিসেবে তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলরের নিম্নমানের পচা পোকাধরা চাল দেওয়ার অভিযোগে ক্ষোভে ফেটে পরলেন ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। চালের প্যাকেট ছিঁড়ে খুরে মাটিতে ছড়িয়ে ফেলে দেন এলাকার দুঃস্থ গরীব দিনমজুর  মানুষেরা। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মিলনপাড়া এলাকায়। উত্তেজিত বাসিন্দারা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পুষ্পা মজুমদারের বাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন বিজেপির জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী। এই ঘটনাকে বিজেপির চক্রান্ত বলে পাল্টা দাবি করেছেন তৃণমূল কাউন্সিলর পুষ্পা মজুমদার।

লক ডাউনে সাধারন মানুষকে সাহায্য করার নামে নিম্নমানের অখাদ্য সামগ্রী বিতরণ করায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ও উত্তেজনা ছড়িয়েছে রায়গঞ্জ পুর এলাকার ৭ নম্বর ওয়ার্ডে। করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে লক ডাউ ন পিরিয়ড।  এই লক ডাউন পিরিয়ডে খেটে খাওয়া দিনমজুর ও দুস্থ গরীব মানুষেরা চরম  সমস্যায় পড়েছেন। রায়গঞ্জ পুরসভার তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলরগন এলাকার দুস্থ, গরীব ও দিনমজুর মানুষদের হাতে খাদ্যসামগ্রী তুলে দেওয়ার কাজ শুরু করেছেন। মঙ্গলবার বিকেলে মিলনপাড়ার দূর্গামন্দিরের সামনে পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলর পুষ্পা মজুমদার ও তাঁর দলের কর্মীরা এলাকার দুস্থ বাসিন্দাদের হাতে ২ কেজি করে চাল, সোয়াবিন, আলু বিতরণ করেন। বাসিন্দাদের অভিযোগ,  নিম্নমানের চাল, পচা দুর্গন্ধযুক্ত সোয়াবিন দিয়েছে কাউন্সিলর যা খাবার হিসেবে একেবারে অযোগ্য।

নিম্নমানের খাদ্যসামগ্রী হাতে পেয়েই ক্ষোভে ফেটে পড়েন ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। তারা সেইসমস্ত খাদ্যসামগ্রী সেখানেই মাটিতে ফেলে দিয়ে কাউন্সিলর পুষ্পা মজুমদারের বাড়িতে গিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন।বাসিন্দাদের অভিযোগ যে খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়েছে তা গরু ছাগলেই খাবেনা মানুষ কিভাবে এগুলো খাবে।  এইসব চাল ও সোয়াবিন খেলে মানুষের মৃত্যু হবে বলে দাবি করেন পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় রায়গঞ্জ শহরের মিলনপাড়া এলাকায়।  ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন বিজেপির  জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী।  তিনি বলেন আগে তৃণমূল কাউন্সিলর পুষ্পা মজুমদারের ওই খাদ্যসামগ্রী খাওয়া উচিত ছিল। এব্যাপারে স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলর পুষ্পা মজুমদার বলেন, কোনও খাদ্যসামগ্রী নিম্নমানের ছিলনা। এলাকায় অশান্তি ছড়াতেই বিজেপি এটা চক্রান্ত করেছে।

Uttam Paul

First published: April 15, 2020, 4:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर