corona virus btn
corona virus btn
Loading

পূর্ব বর্ধমানে আরও পাঁচ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ !

পূর্ব বর্ধমানে আরও পাঁচ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ !

কালনার নসিপুর ও ফকির ডাঙ্গা এলাকার দু’জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। ওই দু’জনই পরিযায়ী শ্রমিক।

  • Share this:

#বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় আরও পাঁচ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলল। তার মধ্যে গলসির শিড়োরাইয়ে এক মহিলা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। কালনায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন আরও দু’জন। আউশগ্রামে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন একজন। কালনার আক্রান্ত দু’জন বাইরের রাজ্য থেকে ফিরেছিলেন। এছাড়াও  বর্ধমানের উদয় পল্লী এলাকায় এক শিশুকন্যার দেহে করোনার সংক্রমণ মিলেছে। আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাদের সংস্পর্শে আসা বাসিন্দাদের কোয়ারেন্টাইনসেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ওই পাঁচ এলাকা বাঁশের ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে ফেলেছে পুলিশ। ওই পাঁচ এলাকাকেই কন্টেইনমেন্ট জোন ও  তার আশপাশের এলাকাকে বাফার জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে,আউশগ্রামের বেলেমাঠ গ্রামে এক পরিযায়ী শ্রমিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি সপরিবারে পাঁচ মাস আগে রাজমিস্ত্রির কাজের জন্য চেন্নাইয়ে গিয়েছিলেন। গত মঙ্গলবার বর্ধমানে ফেরার পর আউশগ্রাম ২ ব্লক হাসপাতালে লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। ওই ব্যক্তির পজিটিভ রিপোর্ট আসে। আক্রান্তকে দুর্গাপুরের কোভিড হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গলসির শিড়োরাই পশ্চিম পাড়ার এক মধ্য বয়স্ক মহিলা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরেই শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ভুগছিলেন। শ্বাসকষ্টের কারণে তাকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানে ১৬ মে করোনা পরীক্ষার জন্য তাঁর লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। সেই পরীক্ষায় তিনি করোনা আক্রান্ত বলে রিপোর্ট এসেছে। ওই মহিলাকে দুর্গাপুরের সনকা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে ওই মহিলার বিদেশ সফর বা বাইরের রাজ্যে যাওয়ার কোন রেকর্ড নাই। তিনি কিভাবে আক্রান্ত হলেন তা নিয়ে চিন্তিত চিকিৎসকরা। ওই মহিলার সংস্পর্শে আসার কারণে নয় জনকে বর্ধমানে প্রি কোভিড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এছাড়াও যারা তাঁর সংস্পর্শে এসেছিলেন তাঁদের তালিকা তৈরির কাজ চলছে। তাঁদেরও কোয়ারেন্টাইনে রেখে লালা রসের নমুনা  সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হবে।

কালনার নসিপুর ও ফকির ডাঙ্গা এলাকার দু’জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। ওই দু’জনই পরিযায়ী শ্রমিক। তারা মুম্বই  থেকে বাড়ি ফিরেছিলেন বলে জানা গিয়েছে। দু’জনেরই নমুনা লালারসের নমুনা নেওয়া হয়েছিল বর্ধমান মেডিক্যালে। দু’জনেরই রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। সেই রিপোর্ট আসার পরই তাদের দুজনকে দুর্গাপুরের সনকা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। তাদের সংস্পর্শে আসা পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশীদের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ওই দুটি এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। বর্ধমানের উদয়পল্লীর শিশুকন্যাকে কলকাতা মেডিকেলে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। ওই শিশুকন্যা বাবা মায়ের সঙ্গে দিল্লি থেকে ফিরেছিল। ওই এলাকাকেও কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: May 24, 2020, 5:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर