corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনায় ঘরবন্দি, মহিলাদের হাতে হাতে স্যানিটারি ন্যাপকিন তুলে দিচ্ছেন ওঁরা

করোনায় ঘরবন্দি, মহিলাদের হাতে হাতে স্যানিটারি ন্যাপকিন তুলে দিচ্ছেন ওঁরা
মানবিক মুখ তুলে ধরলেন এরা।

সংগঠনের কর্মকর্তারা বলছিলেন, এই মহিলাদের অনেকেরই বাজার থেকে স্যানিটারি ন্যাপকিন কেনার ক্ষমতাটুকুও নেই।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: লকডাউনের প্রথম দিন থেকেই ওঁরা ছিলেন শহরের রাস্তায়। দিনমজুর থেকে খেটে খাওয়া মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। প্রতিদিন দু'বেলা করে অন্ন তুলে দিয়েছেন নিরন্নের মুখে। কখনও আবার টিফিন এবং শুকনো খাবারের প্যাকেট নিয়ে হাজির হয়েছেন। শহর ও লাগোয়া এলাকার বিভিন্ন প্রান্তে ছুটে বেড়িয়েছেন টানা আড়াই মাস। আবার এলাকাকে জীবাণুমুক্ত করতেও রাস্তায় দেখা গিয়েছে ওদের। পুরসভার পাশাপাশি বিভিন্ন অলিগলিতে স্যানিটাইজেশনের কাজও চালিয়ে গিয়েছেন  ওঁরা। এবার মহিলাও শিশুদের জন্যও বিশেষ উদ্যোগ নিতে দেখা গেল 'অ্যান্ড স্মাইল' মহিলা সংগঠনকে।

উত্তরবঙ্গের মাজাবাড়ি অঞ্চলের মহিলাদের হাতে রবিবার স্যানিটারি ন্যাপকিন তুলে দেওয়া হয় এই সংগঠনের পক্ষ থেকে। স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খাওয়ারও পরামর্শ দেওয়া হয় সকলকে। পাশাপাশি গ্রামের কচিকাঁচাদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে পুষ্টিকর খাবার তুলে দেওয়া হয়। শিশু এবং কিশোর- কিশোরীদের হাতে তুলে দেওয়া হয় দুধের প্যাকেট, বিস্কুট এবং পাউরুটি।

আনলক পর্বে ক্রমেই শিলিগুড়ি শহর এবং লাগোয়া এলাকায় ছড়াচ্ছে করোনা। বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। আবার ধীরে ধীরে সব পরিষেবা চালু হওয়ায় ঘরে বসেও থাকা যাবে না। তাই সতর্কতা ও সাবধানতা মেনেই পা ফেলতে হবে ঘরের বাইরে। করোনা নিয়ে সাধারন মানুষকে সচেতন করতেই ওঁরা পথে নেমেছেন। জানাচ্ছেন করোনা মোকাবিলায় কী কী সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। বোঝানো হয় শহর ঘেঁষা গ্রাম মাজাবাড়ির বাসিন্দাদের। বাড়ি এবং এলাকার চারপাশ পরিস্কার এবং পরিচ্ছন্ন রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়। সেইসঙ্গে গ্রামের মহিলাদের স্যানিটারি ন্যাপকিন কী এবং এর ব্যবহার নিয়ে চলে ক্লাস।

সংগঠনের কর্মকর্তারা বলছিলেন, এই মহিলাদের অনেকেরই বাজার থেকে স্যানিটারি ন্যাপকিন কেনার ক্ষমতাটুকুও নেই। তাদের কথা ভেবে আজ সংগঠনের সদস্য রাজু দে জানান, "আমরা শুধু মানুষের বাহ্যিক দিকেই নজর রাখি না। তাদের শারীরিক এবং মানসিক সুস্থতার দিকেও সমানভাবে নজর রেখে চলি। অসহায় মানুষদের মুখে হাসি ফোটানই আমাদের লক্ষ্য। সেই লক্ষ্যেই অবিচল সংগঠন।"

Published by: Arka Deb
First published: July 5, 2020, 7:07 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर