পর্যটনকেন্দ্র গৌড়, আদিনায় পড়ল তালা, করোনা সতর্কতায় ফিরছেন পর্যটকরা !

বন্ধের কারণ যেহেতু করোনা সর্তকতা, তাই সরকারি উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন অধিকাংশ পর্যটক ।

বন্ধের কারণ যেহেতু করোনা সর্তকতা, তাই সরকারি উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন অধিকাংশ পর্যটক ।

  • Share this:

#মালদহ: করোনা সতর্কতার জেরে রাজ্যের ঐতিহাসিক পর্যটন কেন্দ্রগুলির অন্যতম স্বাধীন বাংলার রাজধানী গৌড় ,আর মালদহের  আদিনায় পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি হল।

গতকাল, মঙ্গলবার থেকেই গৌড়ের বারদুয়ারী, আদিনা মসজিদের প্রবেশপথে তালা ঝুলিয়ে পর্যটকদের প্রবেশ বন্ধ  করল কেন্দ্রীয় পুরাতত্ত্ব বিভাগ । এক স্থানে, একসঙ্গে জমায়েত ঠেকাতেই এই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা। আগাম জানা না থাকায় এদিন অনেক পর্যটক  বেড়াতে আসেন আদিনা এবং গৌড়ে। তালা বন্ধ থাকায় অনেকেই এইসব অপূর্ব ঐতিহাসিক সৌধ গুলিকে  চাক্ষুষ করতে পারেননি। কার্যত বিফল মনোরথ হয়ে তাঁদের ফিরে যেতে হয় । তবে বন্ধের কারণ যেহেতু করোনা সর্তকতা, তাই সরকারি উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন অধিকাংশ পর্যটক ।

 

রাজ্যের পর্যটন মানচিত্রে উজ্জ্বল নাম মালদহের গৌড়, আদিনার । প্রতি বছর গড়ে লক্ষাধিক পর্যটক আসেন এই দুটি ঐতিহাসিক পর্যটন কেন্দ্রে । কিন্তু মঙ্গলবার থেকে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার অধীন সমস্ত ঐতিহাসিক কেন্দ্রগুলোকে বন্ধের নির্দেশ এসেছে। এই নির্দেশ পাওয়ার পর এই  মালদহের দুটি পর্যটন কেন্দ্রে তা কার্যকর করা হয় । পর্যটক না থাকায় এদিন পর্যটন কেন্দ্রে খা খা অবস্থা ছিল। এমন জনশূন্য পর্যটনকেন্দ্র কার্যত নজিরবিহীন ।

মালদহের আদিনায় বেড়াতে আসা পর্যটক কলকাতার  বাসিন্দা  রুবি ধর, ভাগলপুরের বাসিন্দা শাহনাজ আলি জানান- বেড়াতে আসার আগে আদিনার কথা অনেক শুনেছি।  কিন্তু এদিন এসে তালা ঝুলতে দেখে প্রথমে কিছুটা হতাশই হতে হয়।  তবে পরে যখন জানা যায় যে করোনার সতর্কতার কারণে পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ। তখন  কর্তৃপক্ষের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাতে হয়েছে। কারণ এমন পর্যটন কেন্দ্রে বেড়াতে এসে  কেউ করোনার মতন ভাইরাসে আক্রান্ত হন তা কখনোই কাম্য নয় । পুরাতত্ত্ব বিভাগের মালদহের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, আপাতত  ৩১ মার্চ পর্যন্ত গৌড় এবং আদিনা পর্যটন কেন্দ্র বন্ধের নির্দেশ এসেছে।  বুধবারের মধ্যে এ সংক্রান্ত নোটিশ ঝুলিয়ে দেওয়া হবে ।

Sebak Deb Sharma

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: