Home /News /coronavirus-latest-news /
মালদহে সক্রিয় জাল নিয়োগ চক্র, সরকারি চাকরিপ্রার্থীদের টোপ দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতানোর অভিযোগ

মালদহে সক্রিয় জাল নিয়োগ চক্র, সরকারি চাকরিপ্রার্থীদের টোপ দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতানোর অভিযোগ

বেশ অনেকদিন ধরেই ভিয়েতনামের কিছু অঞ্চলে রমরমিয়ে চলছিল এই ব্যবহৃত কন্ডোমের ব্যবসা ৷ গোপন সূত্রে এই জালিয়াতি চক্রের খবর পেয়ে ২২ সেপ্টেম্বর ভিয়েতনামের দক্ষিণ বিন দুয়ং প্রদেশের একটি গুদামঘরে রেড করে পুলিশ৷ হাতেনাতে ধরা পড়ে জালিয়াতি চক্রের বেশ কয়েক জন ৷ তার মধ্যে এক মহিলাও আছে ৷ photo source collected

বেশ অনেকদিন ধরেই ভিয়েতনামের কিছু অঞ্চলে রমরমিয়ে চলছিল এই ব্যবহৃত কন্ডোমের ব্যবসা ৷ গোপন সূত্রে এই জালিয়াতি চক্রের খবর পেয়ে ২২ সেপ্টেম্বর ভিয়েতনামের দক্ষিণ বিন দুয়ং প্রদেশের একটি গুদামঘরে রেড করে পুলিশ৷ হাতেনাতে ধরা পড়ে জালিয়াতি চক্রের বেশ কয়েক জন ৷ তার মধ্যে এক মহিলাও আছে ৷ photo source collected

অন্তত ৪০ থেকে ৫০ লক্ষ টাকার প্রতারণার সম্ভাবনা। টাকার অঙ্ক আরও বাড়তে পারে বলে অনুমান পুলিশের।

  • Share this:

#মালদহ;- ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা । মালদহ মেডিকেল কলেজে চাকরির ভুয়ো নিয়োগপত্র। বেকার যুবকদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে ভুয়ো নিয়োগপত্র দেওয়ার চক্রের হদিশ মালদহে। ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করল মালদহ পুলিশ। চক্রের সঙ্গে কলকাতার লিংক পাওয়া গিয়েছে, জানালেন জেলা পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া ।

অন্তত ৪০ থেকে ৫০ লক্ষ টাকার প্রতারণার সম্ভাবনা। টাকার অঙ্ক আরও বাড়তে পারে বলে অনুমান পুলিশের। দুইজনকে হেফাজতে নিয়ে চক্রের জাল গোটাতে চাইছে পুলিশ। গত কয়েকদিনে মালদহ মেডিকেল কলেজে ভুয়ো নিয়োগ পত্র নিয়ে চাকরিতে যোগ দিতে যান বেশ কয়েকজন চাকরিপ্রার্থী । তাঁদের গ্রুপ - ডি কর্মীর নিয়োগপত্র দেওয়া হয়। ভুয়ো নিয়োগপত্রে স্বাস্থ্য দপ্তরের কয়েকজন কর্তার ভুয়ো সিল ও সই রয়েছে। প্রতারিত এক যুবক ভুয়ো নিয়োগপত্র নিয়ে ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন । এরপরে তদন্তে নামে মালদহ পুলিশ।

মোবাইল ফোন ট্র্যাক করে গ্রেফতার করা হয় সাদ্দাম হোসেন নামে কালিয়াচকের জালালপুরের এক যুবককে। রাজকুমার মন্ডল নামে ধৃত অপরজনের বাড়ি মোথাবাড়ির বাঙ্গিটোলা এলাকায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণার কথা স্বীকার করেছে ধৃতরা। জানা গিয়েছে, বেকার যুবকদের টোপ দিয়ে সরকারি চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা নেন ধৃতরা । এরপর চাকরিপ্রার্থীদের সরকারী নিয়োগ পত্রের আদলে ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করা হয়। কিন্তু, নিয়োগপত্র নিয়ে মালদহ মেডিকেল কলেজের চাকরিতে যোগ দিতে এসে চাকরিপ্রার্থীরা জানতে পারেন তাঁরা প্রতারিত হয়েছেন।  নিয়োগপত্র সম্পূর্ণই জাল।এভাবে ভুয়ো নিয়োগপত্র নিয়ে চাকরিতে যোগদান করতে আসার ঘটনায় উদ্বিগ্ন মালদহ  মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষও।  ঘটনার উপযুক্ত তদন্তের দাবি করেছেন মালদহ মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অমিত কুমার দাঁ।

সেবক দেবশর্মা

Published by:Elina Datta
First published:

Tags: Fraud

পরবর্তী খবর