corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউন ওঠার পরেই পরীক্ষা, কিভাবে হস্টেলে পড়ুয়াদের রাখা হবে তা নিয়ে চিন্তায় বিশ্ববিদ্যালয়গুলি

লকডাউন ওঠার পরেই পরীক্ষা, কিভাবে হস্টেলে পড়ুয়াদের রাখা হবে তা নিয়ে চিন্তায় বিশ্ববিদ্যালয়গুলি

কিভাবে পড়ুয়াদের যাবতীয় বিধি মেনে হস্টেলে রাখা সম্ভব তা নিয়েই ঘুম উড়েছে উপাচার্যদের। গত শনিবার শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে উপাচার্যরা এই বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

  • Share this:

#কলকাতা: লকডাউন ওঠার এক মাসের মধ্যেই নিতে হবে পরীক্ষা। ইতিমধ্যেই রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলির উপাচার্যদের এমনই বার্তা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু পরীক্ষা হলেও ছাত্র-ছাত্রীদের কিভাবে হস্টেলে রাখা যাবে।তা নিয়েই চিন্তিত বিশ্ববিদ্যালয়গুলির উপাচার্যরা। বিশেষত বিশ্ববিদ্যালয়গুলি পরীক্ষা নিলে দূরের ছাত্র-ছাত্রীদের হস্টেলে রাখতেই হবে। সেক্ষেত্রে কিভাবে পড়ুয়াদের যাবতীয় বিধি মেনে হস্টেলে রাখা সম্ভব তা নিয়েই ঘুম উড়েছে উপাচার্যদের। গত শনিবার শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে উপাচার্যরা এই বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তবে ইতিমধ্যেই রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলির  কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশিকা জারির পর পর সেই সংশয় আরও বেড়েছে।

গত রবিবারই লকডাউন ওঠার এক মাসের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশিকা জারি করেছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। পাশাপাশি পশ্চিম মেদিনীপুরের বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি বিষয় নিয়ে অনেকগুলিকে চিঠি দিয়েছে। মঙ্গলবার পুরুলিয়ার সিধু কানহু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ গুলিকে পরীক্ষা প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য ভিডিও কনফারেন্স করে উপাচার্য দীপক কর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা  নেওয়ার কথা বলেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলির তরফে পরীক্ষা প্রস্তুতি নেওয়ার পর্ব শুরু হলেও হোস্টেলে আবাসিকদের কিভাবে রাখবে তা নিয়েই এখন আলোচনা চলছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে। যাদবপুর, কল্যাণী, কলকাতা,বর্ধমান ও বিদ্যাসাগর এর মত বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে প্রচুর ছাত্র-ছাত্রী ও গবেষকরা হস্টেলে থেকে পড়াশোনা করেন। হস্টেলের এক একটি ঘরে দু থেকে তিন জন থাকে। সে ক্ষেত্রে পরীক্ষা নিতে হলে হস্টেল গুলিতেও ছাত্র-ছাত্রীদের থাকা নিয়ে বেশ কিছু বিধিনিষেধ জারি করতে হবে। শুধু তাই নয় এক একটা ঘরে সোশ্যাল ডিসটেন্স সহ একাধিক বিধি মানতে হলে একজন বা বেশি হলে দুজন করে ছাত্র  রাখা যাবে। সে ক্ষেত্রে অনেক আবাসিকই আবার হস্টেলে থাকতে পারবেন না। রাজ্যের এই বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে বহু পড়ুয়া বাইরের জেলা থেকে আসেন। সেক্ষেত্রে হস্টেলে আবাসিক রেখে কিভাবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি পরীক্ষা পরিচালনা করতে পারবে সেটাই এখন সবথেকে বড় প্রশ্নের জায়গা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সূত্রের খবর এই বিষয় নিয়ে রাজ্যের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য উচ্চশিক্ষা দপ্তরকে মতামত জানতে চেয়ে চিঠিও লিখতে চলেছে।

Somraj Bandhopadhyay

Published by: Elina Datta
First published: May 12, 2020, 9:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर