corona virus btn
corona virus btn
Loading

গোষ্ঠী সংক্রমণ বুঝতে করোনা অ্যান্টিবডি পরীক্ষার কিট তৈরি ভারতে!‌ বড় সাফল্য, মনে করছে কেন্দ্র

গোষ্ঠী সংক্রমণ বুঝতে করোনা অ্যান্টিবডি পরীক্ষার কিট তৈরি ভারতে!‌ বড় সাফল্য, মনে করছে কেন্দ্র
A doctor wearing a protective suit seals a bag containing a sample vial at a testing centre in New Delhi. (Reuters)

গত মাসেই চিন থেকে আগত র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্টিং কিট দিয়ে এই পদ্ধতিতে পরীক্ষা চালু হওয়ার কথা ছিল।

  • Share this:

#‌নয়াদিল্লি:‌ পুণের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজি তৈরি করে ফেলেছে প্রথম নিজস্ব করোনা সংক্রমণ ডিটেকশন কিট। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবিবার ট্যুইট করে জানালেন সে কথা। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয়, এটির সাহায্যে একবারে ৯০ জনের এলাইজা স্যাম্পেল টেস্টিং করা যাবে, সময় লাগবে ২.‌৫ ঘণ্টা। স্বাভাবিক কারণে এই কিটের সাহায্যে অনেক দ্রুত বিপুল সংখ্যক মানুষের পরীক্ষা করা সম্ভব হবে বলে মনে করা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘‌এই ধরনের টেস্ট কিট প্রথমবারের জন্য ভারতে তৈরি করা হল, এর সাহায্যে একটা বড় অংশের নাগরিকদের পরীক্ষা করা যাবে, যাঁদের এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।’

এলাইজা পদ্ধতিতে নিয়মিত HIV সংক্রমণ পরীক্ষা করা হয়, সেই একই পদ্ধতিতে দেখা হবে যে শরীরে করোনা ভাইরাসের অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে কি না, যদি হয়ে থাকে তাহলে বোঝা যাবে যে সেই ব্যক্তিটি করোনা আক্রান্ত। যে সংস্থা এই টেস্টিং কিটটি তৈরি করবেন, তাঁদের হাতে একমাস সময় রয়েছে জিনিসটি তৈরি করে বাজারে আনার জন্য।

এই গবেষণার ফলে আইসিএমআর সহজে দেশের ৭৫টি জেলায় আরও বেশি সংখ্যায় টেস্ট করা শুরু করতে পারবেন। ফলে দেখা যাবে, এই জেলাগুলিতে কত বেশি সংখ্যায় মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে, যাঁদের সামান্যতম লক্ষণ দেখা গিয়েছে বা একেবারেই লক্ষণ দেখা যায়নি। দেশে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে কি না, এই পরীক্ষা শুরু হলে সেটাও একেবারে স্পষ্ট হয়ে যাবে।

গত মাসেই চিন থেকে আগত র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্টিং কিট দিয়ে এই পদ্ধতিতে পরীক্ষা চালু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেই কিট ত্রুটিপূর্ণ হওয়ায় কাজ শুরু করা যায়নি। যার কারণে এবার কাজ শুরু করা যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে ৭৫টি জেলা থেকে ৩০ হাজার রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হবে, এবং সেগুলি বিচার করে দেখা হবে।

Published by: Bangla Editor
First published: May 11, 2020, 8:49 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर