Dumdum Lockdown: ঝড়ের গতিতে বাড়ছে করোনার প্রকোপ, দমদমে আংশিক লকডাউন জারি

Dumdum Lockdown: ঝড়ের গতিতে বাড়ছে করোনার প্রকোপ, দমদমে আংশিক লকডাউন জারি

দমদমে আংশিক লকডাউন। ফাইল ছবি।

দক্ষিণ দমদমে (South Dumdum) আংশিক লকডাউন (Pertial Lockdown) জারির সিদ্ধান্ত। দক্ষিণ দমদমে সপ্তাহে তিনদিন বন্ধ থাকবে সমস্ত দোকান।

  • Share this:

    #কলকাতাঃ মধ্য কলকাতার চারটি বাজার বন্ধের সিদ্ধান্তের পর এ বারে দমদমে (Dumdum Lockdown) আংশিক লকডাউন জারির সিদ্ধান্ত নিল প্রশাসন। দক্ষিণ দমদমে এ বার থেকে সপ্তাহে তিনদিন বন্ধ থাকবে সমস্ত দোকান। তবে জরুরি পরিষেবার ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে, সোমবার, মঙ্গলবার এবং বুধবার সম্পূর্ণভাবে বন্ধ থাকবে দক্ষিণ দমদম পুরসভার অন্তর্গত সব দোকানপাট।

    শনিবার দক্ষিণ দমদম পুরসভা কর্তৃপক্ষ দমদম এবং লেকটাউন থানার পুলিশের সঙ্গে বৈঠকে বসে। উপস্থিত ছিলেন প্রশাসক মন্ডলীর প্রধান পাঁচু রায়। সেখানেই যেভাবে করোনার প্রকোপ বেড়েই চলেছে, তা নিয়ে উদবেগ প্রকাশ করেন সকলেই। এরপরই সপ্তাহে তিনদিন করে গোটা দক্ষিণ দমদম এলাকার বাজার এবং দোকান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে অত্যাবশ্যকীয় পন্যের ক্ষেত্রে কোনও বিধিনিষেধ জারি করা হয়নি।

    বৃহস্পতিবার চাঁদনি চক, বড় বাজারের একাংশ-সহ মধ্য কলকাতার চারটি ব্যস্ত বাজার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় কনফেডারেশন অব ওয়েস্ট বেঙ্গল ট্রেড অ্যাসোসিয়েশন। সংগঠনের তরফে এক নির্দেশিকা জারি (Notice) করা জানানো হয়, চাঁদনি চক, প্রিন্সেপ স্ট্রিট, এজরা স্ট্রিট, ক্যানিং স্ট্রিট, ম্যাঙ্গো লেন ও বড়বাজারের একটা অংশ বন্ধ থাকবে আগামী ২ মে পর্যন্ত। যার জেরে অত্যাবশ্যকীয় জিনিষ (Essential commodities) ছাড়া বন্ধ থাকবে প্রায় ২৫ হাজার দোকান।

    সংগঠনের প্রধান সুশীল পোদ্দার এ প্রসঙ্গে জানান, "আমাদের সকল ব্যবসায়ী সদস্যদের কাছে আমাদের আবেদন তারা যেন আগামী চারদিন অর্থাৎ বৃহস্পতিবার থেকে রবিবার পর্যন্ত তাঁদের দোকান পাট বন্ধ রাখেন।" তিনি আরও বলেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ যে হারে বাড়ছে তাতে গোষ্ঠী সংক্রমণ অর্থাৎ 'চেইন' ভাঙাটা খুবিই জরুরি। সেদিক বিবেচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যবসায়ী সংগঠন।"

    উল্লেখ্য,গত সপ্তাহেই করোনাজনিত পরিস্থিতির জেরে উত্তর ২৪ পরগনার বরানগরে নির্দিষ্ট সময়ের পর বাজার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন। ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেট, বরানগর থানা ও বরানগর পুরসভার এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, আপাতত সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টো পর্যন্ত বরানগরে বাজার ও দোকানপাট খোলা থাকবে। এরপরেই শহরের একের পর এক বাজার সে পথেই হাঁটছে।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: