করোনা সংক্রমণের জের, আজ থেকে বন্ধ হয়ে গেল শিলিগুড়ির মার্কেট, ফল ও মাছের আড়ত

করোনা সংক্রমণের আতঙ্কের জের

করোনা সংক্রমণের আতঙ্কের জের

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: করোনার থাবা শিলিগুড়ি রেগুলেটেড মার্কেটে! আজ থেকে বন্ধ হয়ে গেল মার্কেটের সবজি এবং ফলের আড়তও! গত শনিবার থেকে বন্ধ রয়েছে মার্কেটের মাছের আড়ত। ইতিমধ্যেই একাধিক করোনা আক্রান্তের সঙ্গে যোগ থাকায় রেগুলেটেড মার্কেট বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন। করোনা আক্রান্ত এক মাছের আড়তদারের মৃত্যু হয়েছে বলে জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে।

আপাতত টানা সাত দিন বন্ধ থাকবে রেগুলেটেড মার্কেট। এই মার্কেটের ওপর নির্ভরশীল উত্তরবঙ্গের পাহাড় থেকে সমতলের একাধিক জেলা। উত্তরের সবচাইতে বড় রেগুলেটেড মার্কেট। এখান থেকেই মাছ, ফল যায় সিকিমেও। লাগোয়া নেপাল, বিহারের একটা অংশেও এখান থেকে মাছ, সবজি, ফল রফতানি হয়ে থাকে। প্রতিদিন কয়েক কোটি টাকার লেনদেন হয়। আপাতত তা বন্ধ। তবে আচমকা মার্কেট বন্ধ হয়ে পড়ায় বিপাকে ভিন জেলা, ভিন রাজ্য থেকে আসা ফল, সবজি বোঝাই গাড়ি।

গেটের বাইরেই দাঁড়িয়ে থাকে সারি সারি লরি। চিন্তার ভাঁজ শহরের বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীদের। চাপ বাড়বে শহরবাসীরও। পকেটে টান পড়বে। একেই আমফানের জেরে  ঊর্ধমুখী সবজির দাম। তা আরো বাড়ার সম্ভাবনা৷ কেননা আমদানি  কমে আসবে।

ইতিমধ্যেই তার কিছুটা প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। প্রতিটি সবজিতেই কেজি প্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা বেড়েছে। ফুলকপি প্রতি কিলো ১০০ টাকা, বাঁধাকপি কিলো প্রতি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, পটল প্রতি কেজি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, ঝিঙে, ঢ্যাঁড়শ ৪০ থেকে ৫০ টাকা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে। বিধান মার্কেট খুচরো সবজি ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক স্বপন কুণ্ডু জানান, সব্জির সংকট তৈরী হবে।

স্বাভাবিকভাবেই উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলার সব্জির ওপর নির্ভরশীল হতে হবে। এর জেরে দামও বাড়বে। অন্যদিকে বাবুল রায় নামে এক ফল বিক্রেতা জানান, বাইরে থেকে সরাসরি ফল আসবে। তবে লোক না থাকায় ব্যবসায় মন্দা। দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক এস পুন্নমবালাম জানান, রেগুলেটেড মার্কেট স্যানিটাইজ করা হবে। আগামী ৭ দিন মার্কেট বন্ধ রাখা হয়েছে।

Partha Sarkar

Published by:Debalina Datta
First published: