corona virus btn
corona virus btn
Loading

রবিবাসরীয় হাট-বাজার, শহরে হুঁশ ফিরলেও গ্রাম আছে সেই তিমিরেই

রবিবাসরীয় হাট-বাজার, শহরে হুঁশ ফিরলেও গ্রাম আছে সেই তিমিরেই

পুলিশ ও প্রশাসন মাইকিং করছে, কিন্তু তাতেও হুঁশ ফিরছে না গ্রামের।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: শহরে হুঁশ ফিরলেও গ্রামের হাটের চিত্র বদলায়নি। সেই ভিড়ে ঠাসাঠাসি। কোথায় সামাজিক দূরত্ব? মাস্কই বা কোথায়? দেখা নেই ফেস কভারের। হ্যাঁ, শিলিগুড়ির গ্রামাঞ্চলে রবিবাসরীয় বাজারের চিত্রটা এমনই।

ইতিমধ্যেই বৃহত্তর শিলিগুড়ি খুচরো ব্যবসায়ী সমিতি ঘোষণা করে দিয়েছে কোন দিন কোন বাজার খোলা থাকবে। সেই মতোই চলছে বাজারহাট। ভিড় কমাতে রবিবারে মুড়ি বাজার বন্ধ রাখা হয়েছে। তেমনই শিলিগুড়ি হাটও রবিবারের পাশাপাশি বুধবার বন্ধ থাকছে। তবে যে সব বাজার আজ খোলা ছিল, উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়নি। বিধান মার্কেট, হায়দরপাড়া বাজার, গেটবাজার, সুভাষপল্লি বাজার, হলদিবাড়ি বাজার। অন্য রবিবারের তুলনায় ভিন্ন ছবি দেখা গেল। কেনা-বেচা হল বটে। যেমন পারস্পরিক দূরত্ব মেনে চলেছে ক্রেতা এবং বিক্রেতারা, তেমনি মাস্কও নজরে এসেছে সকলের মুখে।সেই হই হই ব্যাপারটা দেখা যায়নি। কেন্দ্রের তালিকায় রেড জোন। তাই সতর্ক হচ্ছে শহরবাসী।

তবে উল্টো ছবি শহর ঘেঁষা গ্রামের বাজারগুলোতে। হাটেও থিকথিকে ভিড়। গ্রামের বাজারগুলোতে সোশ্যাল ডিস্টেনসিং বা সামাজিক দূরত্বের কোনও বালাই নেই। একের অন্যের ঘাড়ে যেন নিঃশ্বাস ফেলছে। মাস্ক বা ফেস কভারে মুখ ঢাকেনি অনেকেই।

শহর লাগোয়া জলেশ্বরী বাজার, ফুলবাড়ি, মাটিগাড়া, খড়িবাড়ি সর্বত্রই বাজারে থিকথিকে ভিড়। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, বারবার বলার পরেও অনেকেরই টনক নড়েনি। প্রশাসন সক্রিয় হয়ে না উঠলে চরম বিপদ অপেক্ষা করছে।

কার্যত দরজায় কড়া নাড়ছে। পুলিশ ও প্রশাসন মাইকিং করছে, কিন্তু তাতেও হুঁশ ফিরছে না গ্রামের।কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলও এই ছবি দেখে বিরক্ত। রাজ্যকে এই মর্মে চিঠিও দিয়েছেন তাঁরা।এই আবহেই নতুন করে লকডাউনের মেয়াদ বেড়েছে। দ্রুত পরিস্থিতি না বদলালে বড় বিপদ!

 Partha Pratim  Sarkar

First published: May 4, 2020, 12:03 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर