corona virus btn
corona virus btn
Loading

COVID-19: মোবাইল ফোন থেকে কাগজ, সংক্রমণ রুখবে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের DRUVS   

COVID-19: মোবাইল ফোন থেকে কাগজ, সংক্রমণ রুখবে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের DRUVS   

ডিফেন্স ইন্সটিটিউট অফ ফিজিওলজি অ্যান্ড অ্যালায়েন্স সায়েন্স ও ইন্সটিটিউট অফ নিউক্লিয়ার মেডিসিন অ্যান্ড অ্যালায়েন্স সায়েন্স যৌথভাবে এই দুটি যন্ত্র তৈরি করে ফেলেছে।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা'কে কাবু করতে নয়া যন্ত্র বানাল প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অন্তর্ভুক্ত ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অরগানাইজেশান (DRDO)। এই নয়া যন্ত্র আসলে আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি বা ইউভিসি প্রয়োগে সাহায্য করবে। ফলে নিত্যদিনের ব্যবহৃত মানিব্যাগ, মোবাইল ফোন, ব্যাগ, কোমরের বেল্ট, বা অন্যান্য বস্তুর ওপরে ফেললেই এই যন্ত্র থেকে বেরিয়ে আসা রশ্মি নষ্ট করে ফেলবে করোনার জীবাণু বহনকারী ভাইরাসকে।

ডিফেন্স ইন্সটিটিউট অফ ফিজিওলজি অ্যান্ড অ্যালায়েন্স সায়েন্স ও ইন্সটিটিউট অফ নিউক্লিয়ার মেডিসিন অ্যান্ড অ্যালায়েন্স সায়েন্স যৌথভাবে এই দুটি যন্ত্র তৈরি করে ফেলেছে। অন্যদিকে ভারতীয় নৌবাহিনীর দক্ষিণ নাভাল কমান্ড একই ধরণের যন্ত্র বানিয়ে ফেলেছে। এই যন্ত্রে স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থায় মোবাইল ফোন, আইপ্যাড, ল্যাপটপ, টাকা, চেকের পাতা, চালান, পাশবই, কাগজ, খাম সংক্রমণ মুক্ত করা যাবে। ডিফেন্স রিসার্চ আল্ট্রাভায়োলেট স্যানিটাইজার বা দ্রুভস নাম রাখা হয়েছে এই যন্ত্রের।

এই যন্ত্রের মধ্যে একটি ক্যাবিনেট আছে। সেই ড্রয়ারের মধ্যে জিনিসপত্র রাখলে সেটি স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থায় বন্ধ হয়ে যাবে। অতিবেগুনি রশ্মি এই জিনিসগুলিকে সংক্রমণ মুক্ত করে দেবে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে খবর, এই দুটি যন্ত্রের মধ্যে একটি হল ইউভি স্যানিটাইজেশন বক্স। অপরটি হল হ্যান্ড হেল্ড ইউভি ডিভাইস। সেনাবাহিনী বা বিভিন্ন সরকারি অফিসে ব্যবহার করার পাশাপাশি এই যন্ত্র যাতে সাধারণ মানুষও ব্যবহার করতে পারেন তার চেষ্টা করা হচ্ছে। ফলে মানুষের সাথে থাকা বস্তু থেকে যাতে করোনার জীবাণু শরীরে প্রবেশ করতে না পারে তা আটকাতেই এই যন্ত্র আবিষ্কার করে ফেলল প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অন্তর্ভুক্ত ডিআরডিও।

কিভাবে কাজ করবে এই যন্ত্র দুটি? এক এই যন্ত্র থেকে বেরিয়ে আসা আল্ট্রা ভায়োলেট রে বা অতি বেগুনি রশ্মি ওই বস্তুর ওপর ফেললে যদি তার সাথে করোনা ভাইরাস যুক্ত থাকে তাহলে করোনা ভাইরাসের আরএনএ নষ্ট হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে এই রশ্মির ক্ষমতা আছে ভাইরাসের জেনেটিক ক্ষমতা নষ্ট করার। ফলে মোবাইল ফোন, মানিব্যাগ, ফাইল কভার যদি ইউভি স্যানিটাইজেশন বক্সের মধ্যে দিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে ওই বক্সের মধ্যে থাকা ইউভিসি ল্যাম্প থেকে বেরিয়ে আসা রশ্মি ধ্বংস করবে কোভিড ১৯ এর জীবাণু। এই ল্যাম্প তৈরি হয়েছে ওজোন গ্যাস দিয়ে। যা আসলে ভাইরাস ধ্বংস করতে সক্ষম।

চিকিৎসকদের মতে, এই আল্ট্রা ভায়োলেট রে আসলে করোনা ভাইরাসের ডিএনএ-আরএনএ দুটিই নষ্ট করে দিতে সক্ষম। তবে এই যন্ত্র ব্যবহার করতে হবে অত্যন্ত সাবধানে। কারণ, এই অতি বেগুনি রশ্মি মানব শরীরের বিশেষ বিশেষ অংশের পক্ষে ক্ষতিকর। কেন্দ্র ইতিমধ্যেই জীবাণুনাশক স্প্রে মানুষের ওপরে ব্যবহারের জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। সেক্ষেত্রে এই যন্ত্র বা হ্যান্ড ডিভাইস অনেকটাই পরিবেশবান্ধব বলে মত প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের। অন্যদিকে ডি আর ডি ও'র অধীনস্থ সংস্থা আর সি আই নোটক্লিন নামে একটি যন্ত্র বানাল। যার মাধ্যমে অতিবেগুনি রশ্মির সাহায্য নিয়ে টাকাকে সংক্রমণ মুক্ত করা যাবে।

Abir Ghoshal

Published by: Bangla Editor
First published: May 11, 2020, 12:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर