corona virus btn
corona virus btn
Loading

চিনের হয়ে সওয়াল, WHO-এর অনুদান বন্ধ করার হুমকি দিলেন ক্ষুব্ধ ট্রাম্প

চিনের হয়ে সওয়াল, WHO-এর অনুদান বন্ধ করার হুমকি দিলেন ক্ষুব্ধ ট্রাম্প
ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ PHOTO- REUTERS

চিনেই প্রথম করোনা ভাইরাসের খোঁজ মিলেছিল৷ সেই ভাইরাসই বিশ্বজুড়ে মহামারির আকার নিয়েছে৷

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: চিনের পক্ষে বেশি সওয়াল করার জন্য এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের রোষের মুখে পড়ল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংগঠন বা WHO৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার উপর ক্ষুব্ধ ট্রাম্প তাদের অনুদান বন্ধ করারও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন৷

চিনেই প্রথম করোনা ভাইরাসের খোঁজ মিলেছিল৷ সেই ভাইরাসই বিশ্বজুড়ে মহামারির আকার নিয়েছে৷ মারণ ভাইরাসের আক্রমণে শুধুমাত্র আমেরিকাতেই মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজারের বেশি মানুষের৷ এই পরিস্থিতিতে ডোনাল্ড ট্রাম্প মনে করছেন, চিনের প্রতি একটু বেশিই পক্ষপাতিত্ব দেখাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা৷ কোনওরকম রাখঢাক না করেই টুইটারে তিনি লিখেছেন, 'WHO গোটা পরিস্থিতি সামলাতে ব্যর্থ৷ যে কোনও কারণেই হোক না কেন, আমেরিকার থেকে বিপুল অর্থরাশি পেলেও তারা খুবই চিন কেন্দ্রিক৷ আমরা বিষয়টি ভাল ভাবে খতিয়ে দেখব৷ সৌভাগ্যবশত আমি তাদের পরামর্শ না শুনেই চিনের জন্য আমাদের সীমান্তগুলি খুলে দিইনি৷ এমন ভুল পরামর্শ ওরা আমাদের দেয় কী করে?'

এখানেই শেষ নয়, হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের সামনেও তিনি স্পষ্ট হঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, 'WHO-কে আমরা যে অর্থ দিয়ে থাকি তা আপাতত বন্ধ রাখছি৷ আমরা বিষয়টি ভালভাবে খতিয়ে দেখব৷ যদি এটা করা যায় তাহলে বিষয়টি দারুণ হবে৷' বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভূমিকার সমালোচনা করে ট্রাম্প আরও বলেন, 'ওদের টাকার বেশিরভাগটাই আমরা দিয়ে থাকি৷ আমি যখন চিনের উপর ট্রাভেল ব্যান আরোপ করি তখন ওরা তার সমালোচনা করে এবং আমার সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে৷ ওরা ভুল ছিল৷ এমন অনেক বিষয়েই ওরা ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ WHO- এর কাছে আগে থেকেই অনেক তথ্য ছিল কিন্তু ওরা তা জানায়নি৷ ওরা আসলে খুবই চিন কেন্দ্রিক৷'

ট্রাম্পের অভিযোগ, চিনে যে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে এবং ভবিষ্যতে তা ভয়াল আকার নিতে চলেছে, এটা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানত৷ কিন্তু তা সত্ত্বেও তারা কোনও পদক্ষেপ করেনি৷

ট্রাম্প বলেন, গত কয়েক বছরে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে তারা ৫৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের থেকেও অনেক বেশি পরিমাণ টাকা দিয়েছেন৷ WHO-এর বিভিন্ন কর্মসূচিতে আমেরিকা টাকা দিয়েছে বলে দাবি করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷ সেই সমস্ত কর্মসূচির জন্য টাকা দিয়েও যদি কোনও লাভ না হয়, তাহেল অনুদান দেওয়ার যৌক্তিকতা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷

 
First published: April 8, 2020, 3:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर