করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

'পাড়ার পুজো পাড়াতেই থাক' বার্তা দিয়ে রাজ্যের চিকিৎসকদের খোলা চিঠি পুজো কমিটিগুলোকে

'পাড়ার পুজো পাড়াতেই থাক' বার্তা দিয়ে রাজ্যের চিকিৎসকদের খোলা চিঠি পুজো কমিটিগুলোকে
Calcutta High Court Rules Bengal Durga Puja Pandals No-Entry Zones, Only Organisers to Be Allowed

গত শুক্রবার পুজো কমিটিগুলির কাছে এই মর্মে খোলা চিঠি দেন রাজ্যের চিকিৎসকরা৷ এরপর সোমবার হাইকোর্টের রায়ের পর আশার আলো দেখছেন তাঁরা ৷

  • Share this:

#কলকাতা: পুজোর আগে ভিড় দেখে অশনি সঙ্কেত দেখতে শুরু করেন রাজ্যের চিকিৎসকরা৷ করোনা কালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ও ভিড় এড়িয়ে চলতে গত শুক্রবার (১৬.১০.২০) বিভিন্ন পুজো কমিটিগুলির কাছে এক আবেদন রাখেন তাঁরা৷ এতে স্বাক্ষর ছিল রাজ্যের বহু চিকিৎসকের৷ মূলত পাবলিক হেলথ নিয়ে কাজ করা চিকিৎসকরাই বিশেষ আবেদন জানিয়ে এই চিঠি দেন৷ সেখানে তাঁরা যে বিষয়টির ওপর জোর দেন, তা হল পাড়ার পুজো পাড়াতেই থাক৷ অর্থাৎ এ বছর কোনও রকম ভাবে প্যান্ডেল হপিং না করে নিজের নিজের বাড়ির সামনে বা পাড়ায় যে পুজো হয়, তার সঙ্গেই যুক্ত থাকুন সকলে, এমনই ছিল ডাক্তারবাবুদের অনুরোধ৷ কারণ করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে যে কয়েকটি পদক্ষেপ নিতে হয়, তার মধ্যে ভিড় এড়িয়ে চলা বা সামাজিক দূরত্ব অন্যতম৷ কিন্তু দুর্গাপুজো আর ভিড় যে সমার্থক! পুজোর দিনগুলি যত এগিয়ে আসছে, ততই ভিড়ও বাড়ছে৷ অযথা এই ভিড়ে সংক্রমণ বাড়বে, এই আশঙ্কা থেকেই চিকিৎসকরা এই খোলা চিঠি দেন শহরের বিভিন্ন ছোট বড় পুজো উদ্যোক্তাদের৷ তাঁদের সঙ্গে সহমত হয় উত্তরের নামজাদা সন্তোষ মিত্র স্কোয়ারের পুজো৷ ক্লাব কর্মকর্তারা জানিয়ে দেন যে তাঁদের এবারের পুজো মন্ডপ থাকবে দর্শকশূন্য৷

এরপর সোমবার দুর্গাপুজো নিয়ে জনস্বার্থ মামলায় গুরুত্বপূর্ণ রায় দেয় কলকাতা হাইকোর্ট৷ রাজ্যের ছোট-বড় সমস্ত পুজো মণ্ডপকেই ‘নো এন্ট্রি বাফার জোন’ ঘোষণা করা হয়৷ একসঙ্গে ২৫ জনের বেশি উদ্যোক্তা মণ্ডপে থাকতে পারবেন না বলে রায়ে জানিয়ে দেয় আদালত৷ করোনা পরিস্থিতিতে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে আদালত জানায়, ছোট বড় সমস্ত মণ্ডপই সাধারণ দর্শনার্থীদের জন্য নো এন্ট্রি ৷ মণ্ডপের বাইরে ঝোলাতে হবে নো এন্ট্রি বোর্ড ৷ প্যান্ডেল থাকবে দর্শকশূন্য ৷ পুজোর ভিড়ে করোনা সংক্রমণে বিস্ফোরণের আশঙ্কায় এমন ঐতিহাসিক রায় দেন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়৷ লক্ষ্মীপুজোর পরেই হাইকোর্টের দেওয়া নির্দেশ পালন করা হয়েছে কিনা তা নিয়ে DGP, CP-কে রিপোর্ট পেশের কথা বলেছে আদালত ৷ পাশাপাশি এদিন বিচারপতির বেঞ্চ জানিয়েছে, রাস্তায় ভিড় নিয়ন্ত্রণে সচেতনতার বার্তা দিতে হবে প্রশাসনকে।

হাইকোর্টের এই রায়ে উজ্জীবিত বহু চিকিৎসক৷ কারণ তাঁরাও একইভাবে এই ভিড় থেকে মাত্রাতিরিক্ত সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা করছিলেন৷ ইউনাইটেড ডক্টরস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের (United Doctors Welfare Association) পক্ষ থেকে যে চিঠি দেওয়া হয়, তাতে গত সাত মাসে নিয়মিত পরিষেবা দিয়ে আসা চিকিৎসদের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে৷ জানানো হয়েছে যে করোনার সঙ্গে সামনের সারি থেকে লড়াই করা বহু সহকর্মীকে তাঁরা হারিয়েছেন৷ তাই তাঁরা সকলকে সচেতন করতে চান যেন মানুষের কোনও ভুল পদক্ষেপই বিপদ আরও বাড়িয়ে না দেয়৷

যদিও এই চিঠি প্রকাশ করেই চুপ করে বসে থাকছেন না এই চিকিৎসক সংগঠন৷ এবার তাঁরা রীতিমতো ৫০ টি পুজো কমিটির কর্মকর্তাদের সঙ্গে গিয়ে দেখা করে, তাঁদের হাতে তুলে দেবেন এই চিঠি৷ সশরীরে রাখবেন তাঁদের অনুরোধ৷ এমনই জানিয়েছেন চিকিৎসক অনির্বাণ দলুই৷

Published by: Pooja Basu
First published: October 19, 2020, 5:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर