corona virus btn
corona virus btn
Loading

উদ্বেগের মাঝে স্বস্তি! মেডিকেল কলেজের চিকিৎসক নার্সদের নেই করোনা সংক্রমণ

উদ্বেগের মাঝে স্বস্তি! মেডিকেল কলেজের চিকিৎসক নার্সদের নেই করোনা সংক্রমণ

হাসপাতালের ১৪ জন চিকিৎসক, বেশ কয়েক জন নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মী-সহ ৩৯ জনকে কোয়ারান্টিন সেন্টারে পাঠানো হয়। তাঁদের নমুনা কলকাতায় পাঠান হয়েছিল। সেখানেই রিপোর্ট নেগেটিভ আসে।

  • Share this:

#বর্ধমানঃ করোনা নিয়ে উদ্বেগের মাঝেই স্বস্তির খবর। কোয়ারান্টিন সেন্টারে থাকা বর্ধমান মেডিকেলের ডাক্তার নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীদের রিপোর্টে করোনার সংক্রমণ মেলেনি। বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১৪ জন চিকিৎসক, বেশ কয়েক জন নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মী-সহ ৩৯ জনকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠান হয়। তাঁদের নমুনা কলকাতায় পাঠান হয়েছিল। তাদের সকলেরই রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে বলে জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। এই খবরে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালের চিকিৎসক নার্স-সহ আঠারো জনের রিপোর্ট এখনও আসেনি।

করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসার জন্যই এই চিকিৎসক নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে যেতে হয়েছে। ১২ এপ্রিল মুর্শিদাবাদ জেলার সালারের এক ক্যানসার আক্রান্ত ব্যক্তি অসুস্থতা নিয়ে সকাল ন'টা নাগাদ কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি হন। দুপুর দু'টো নাগাদ তাঁকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। বর্ধমান মেডিকেলের ডাক্তার নার্সরা তাঁকে দেখেন। সেদিনই তাঁকে কলকাতায় রেফার করা হয়। কলকাতায় ওই ব্যক্তির শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। এরপরই কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালের আঠারো জন ডাক্তার নার্স স্বাস্থ্য কর্মী, অ্যাম্বুলান্স চালক ও বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ঊনচল্লিশ জন ডাক্তার নার্স স্বাস্থ্য কর্মীকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠানো হয়েছিল। তাঁদের পরিবারের সদস্যদেরও হোম কোয়ারান্টিনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়।

বর্ধমান মেডিকেলের ডাক্তার নার্সদের শরীরে করোনার সংক্রমণ না মেলায় দুশ্চিন্তা কাটলো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। জেলা প্রশাসনের এক আধিকারিক জানান, ওই রিপোর্টের দিকে তাকিয়ে ছিলাম আমরাও। কারও পজিটিভ রিপোর্ট এলে তাঁর সংস্পর্শে আসা লোকদের চিহ্নিত করে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে আনতে হত। আরও ডাক্তার নার্সকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠাতে হত। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক বলেন, আমরা এখন কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালের ডাক্তার নার্স-সহ আঠারো জনের রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করছি। ৩৯ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ এলেও তাঁদের এখনই কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছাড়া হচ্ছে না। তাঁরা এখন কোয়ারেন্টাইন সেন্টারেই থাকবেন।

Saradindu Ghosh

Published by: Shubhagata Dey
First published: April 22, 2020, 3:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर