CWG Covid Centre: নিজস্ব অক্সিজেন প্লান্ট-সহ দিল্লির প্রথম কোভিড সেন্টার কমনওয়েলথ গেমস ভিলেজ!

নিজস্ব অক্সিজেন প্লান্ট-সহ দিল্লির প্রথম কোভিড সেন্টার কমনওয়েলথ গেমস ভিলেজ!

এই পরিস্থিতিতে রাজধানীর কমনওয়েলথ গেমস ভিলেজকে ( CWG Covid Centre in Delhi ) সম্পূর্ণ রূপে কোভিড সেন্টারে পরিণত করেছে সরকার।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: গত কয়েকদিন ধরেই করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের (Coronavirus 2nd Wave) জেরে নাজেহাল অবস্থা দেশের রাজধানী দিল্লির (Delhi Coronavirus)। এর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে পরিস্থিতি আরও জটিল করে তুলেছে বিভিন্ন হাসপাতালে মেডিক্যাল অক্সিজেনের অভাব (Oxygen Crisis)। একাধিক হাসপাতাল থেকে অক্সিজেনের অভাবে রোগী মৃত্যুর মর্মান্তিক ঘটনা সামনে এসেছে। এই পরিস্থিতিতে রাজধানীর কমনওয়েলথ গেমস ভিলেজকে (Commonwealth Games village) সম্পূর্ণ রূপে কোভিড সেন্টারে পরিণত করেছে সরকার। তারই সঙ্গে এটিই প্রথম কোভিড সেন্টার, যেখানে নিজস্ব অক্সিজেন প্লান্ট (Oxygen Plant) রয়েছে।

    জানা গিয়েছে, কমনওয়েলথ গেমস ভিলেজের কোভিড সেন্টারে ১৫০০ লিটার অক্সিজেন তৈরি করতে পারে এমন প্লান্ট বসানো হয়েছে। সেন্টারের প্রতিটি বেডের সঙ্গে সেই অক্সিজেন প্লান্টের যোগ রয়েছে এবং সরাসরি ভাবে সেগুলি যুক্ত। এতে রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহ করতে কোনও অসুবিধে হওয়ার কথা নয়। বিদেশ থেকে চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে এই অক্সিজেন প্লান্টগুলি কিনে এনে লাগানো হয়েছে।

    দিল্লিতে করোনা সংক্রমণ যত বাড়ছে, তত সমস্যা দেখা দিচ্ছে অক্সিজেনের যোগান নিয়ে। অক্সিজেনের অভাবে একাধিক কোভিড রোগীর মৃত্যু হয়েছে রাজধানীতে। এই পরিস্থিতিতে এ বার বিদেশ থেকে অক্সিজেন আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। গত মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠক করে কেজরিওয়াল বলেন, 'দিল্লি সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যাঙ্কক থেকে ১৮টি অক্সিজেন ট্যাঙ্কার আমদানি করা হবে। আগামিকাল থেকেই সেগুলি আসতে শুরু করবে। আমরা কেন্দ্রকে অনুরোধ করেছি সেনাবাহিনীর বিমানে করে সেগুলি ভারতে আসার অনুমতি দেওয়ার জন্য। কথাবার্তা চলছে। শিগগির এই সমস্যা মিটে যাবে।'

    এর আগে অক্সিজেনের জন্য কেন্দ্র ও রাজ্যগুলির কাছে অনুরোধ করেছিলেন কেজরিওয়াল। সেই আবেদন মেনে একাধিক রাজ্য থেকে অক্সিজেন ট্যাঙ্কার পাঠানো হয়েছে রাজধানীতে। এ বার বিদেশ থেকেও অক্সিজেনের আমদানি করছে দিল্লি।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: