corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৬৮, কিন্তু বিশেষ নিয়ম মেনে শেষকৃত্য হয়েছে ৪০০-র বেশি!

করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৬৮, কিন্তু বিশেষ নিয়ম মেনে শেষকৃত্য হয়েছে ৪০০-র বেশি!
Representative image. REUTERS

বিরোধীদের দাবি সরকার কোভিডে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর প্রকৃত সংখ্যা লুকিয়ে যাচ্ছে

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: করোনা ভাইরাসের জেরে সারা পৃথিবী অস্থির ৷ সারা পৃথিবীতে লাফিয়ে লাফিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা৷ পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও ৷ এর মধ্যে এক চাঞ্চল্যকর পরিসংখ্যান সামনে এসেছে ৷ দিল্লির উত্তর ও দক্ষিণ নগর নিগম (MCD)-র অধীনে থাকা বিভিন্ন শ্মশান, কবরস্থান থেকে যে রিপোর্ট পেয়েছে তার থেকে বিতর্কের সূত্রপাত হয়েছে ৷ দিল্লিতে সরকারিভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের যে সংখ্যা বলা হচ্ছে তার সঙ্গে যেভাবে বিশেষ নিয়মবিধি মেনে করোনায় মৃতের সৎকার করা হয়েছে তাতে ফারাক অনেক ৷

করোনায় মৃতের সরকারি সংখ্যা ১৬৮ আর বিশেষভাবে শেষকৃত্য হয়েছে ৪০০ -র চেয়েও বেশি মানুষের ৷ বিভিন্ন শ্মশান ও কবরস্থান থেকে পাওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ি এই বিশেষ রীতি মেনে শেষকৃত্য হয়েছে নির্ধারিত সংখ্যার চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি ৷

এই নম্বরের পার্থক্যের কারণে এবার নড়েচড়ে বসেছে দিল্লি সরকার ৷ তার এই সংখ্যার পার্থক্যের কারণ খতিয়ে দেখতে বিশেষ রিপোর্ট চেয়েছে ৷

আপ সরকার চাইল প্রকৃত সংখ্যা

দিল্লিতে এই মুহূর্তে AAP প্রশাসন দায়িত্বে রয়েছে ৷ তারাই উত্তর ও দক্ষিণ দিল্লি নগর নিগমের থেকে বিশেষ ভাবে শেষকৃত্য হওয়া মৃতদেহের প্রকৃত সংখ্যা চেয়েছে ৷ এর পিছনে তাঁদের উদ্দেশ্য কোভিড-১৯-এ মৃত্যু হওয়া মানুষের প্রকৃত সংখ্যা হাতে পাওয়া ৷ আসলে বিরোধী দলগুলি এইসময় অভিযোগ করছে যে কোভিডে মৃত্যুর প্রকৃত সংখ্যা লুকিয়ে যাচ্ছে দিল্লি সরকার ৷ আর বিরোধীদের এই অভিযোগের রিপোর্ট দিতেই কেজরীওয়াল সরকার এই রিপোর্ট চেয়েছে ৷

একটি সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থায় প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী দিল্লি স্বাস্থসচিব পদ্মিনী সিঙ্গলা দু’টি নগর নিগমের কমিশনারদের কাছে চিঠি লিখেছেন ৷ তিনি এই ব্যাপারে বিস্তৃত তথ্য চেয়েছেন ৷  সিঙ্গলা নিজের চিঠিতে নিগমের বাধে ঘাট ও পঞ্জাব বাগ ক্রিমেটোরিয়াম শবের সংখ্যার পাশাপাশি ITO-র কাছে থাকা কবরস্থানের শবের সংখ্যাও জানতে চেয়েছেন ৷  এমসিডি -র হিসেব অনুযায়ী এই তিন স্থান মিলিয়ে ৫৮০ -র বেশি শবের শেষকৃত্য বিশেষ নিয়মবিধি মেনে হয়েছে ৷

 

Published by: Debalina Datta
First published: May 20, 2020, 2:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर