corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা সন্দেহে UP-এর চলন্ত বাস থেকে টেনে হিঁচড়ে ফেলা হল কিশোরীকে, রাস্তাতেই মৃত্যু!

করোনা সন্দেহে UP-এর চলন্ত বাস থেকে টেনে হিঁচড়ে ফেলা হল কিশোরীকে, রাস্তাতেই মৃত্যু!
Representative Image

মুহূর্তের মধ্যে কিভাবে যেন গোটা বাসে গুজব ছড়িয়ে যায় যে ওই মেয়েটি করোনা আক্রান্ত ৷ বাসের সমস্ত যাত্রী প্রচন্ড ক্ষেপে ওঠে তাদের নানা অকথা-কুকথা শোনাতে থাকে ৷

  • Share this:

#লখনউ: মর্মান্তিক, নৃশংস যেকোনও বিশেষণই এমন ঘটনার বীভৎসতা বোঝাতে কম পড়ে যাবে ৷ করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে ১৯ বছরের কিশোরীকে বাস থেকে টেনে, হিঁচড়ে ছুঁড়ে ফেলে দিলেন সহযাত্রীরা ৷ নারকীয় এই ঘটনাটি ঘটেছে যোগী রাজ্য উত্তরপ্রদেশে ৷ জানা গিয়েছে, ১৯ বছরের কিশোরী উত্তরপ্রদেশের শিকোহাবাদ থেকে দিল্লি যাওয়ার বাসে চেপেছিলেন ৷ সঙ্গে ছিলেন তাঁর মা ৷ দিল্লির মান্ডাওয়ালি নিবাসী মেয়েটি লকডাউন আবারও শুরু আগে ফিরতে চাইছিলেন বাকি পরিবারের কাছে ৷ পরিকল্পনা মতো দিল্লি যাওয়ার জন্য মাকে নিয়ে সে ১৫ জুন শিকোহাবাদ থেকে বাস ধরে ৷ বাসে ওঠার সময়ে নিরীহ মেয়েটি জানত না কোন ভয়াবহ পরিণতি তার জন্য  অপেক্ষা করছে ৷ ঘটনার দিন শরীর বিশেষ ভাল ছিল না ওই কিশোরীর ৷ কিডনিতে স্টোন থাকায় চিকিৎসা চলছিল তাঁর৷ যাত্রার ধকলে, গরমে বাসে বেশ অসুস্থ হয়ে পড়ে সে ৷ ব্যাপারটা চোখ এড়ায়নি সহযাত্রীদের ৷ মুহূর্তের মধ্যে কিভাবে যেন গোটা বাসে গুজব ছড়িয়ে যায় যে ওই মেয়েটি করোনা আক্রান্ত ৷ বাসের সমস্ত যাত্রী প্রচন্ড ক্ষেপে ওঠে তাদের নানা অকথা-কুকথা শোনাতে থাকে ৷ বাস থেকে নেমে যাওয়ার জন্য জোরজবরদস্তি করতে থাকেন তারা ৷

এমন পরিস্থিতিতে ভয়ে আতঙ্কে প্রায় কান্নায় ভেঙে পড়েন অসহায় কিশোরীটি ও তাঁর মা ৷ মাঝ রাস্তায় এভাবে কোথায় যাবেন তা বুঝতে না পেরে সবার কাছে বারবার কাকুতি মিনতি করতে থাকেন তারা ৷ মেয়েটি যে করোনায় আক্রান্ত নন , তাঁর মায়ের আশ্বাসবাণী কারোরই কানে ওঠেনি ৷ শেষে এমন পরিস্থিতি দাঁড়ায় যে করোনা আক্রান্ত এই ভয়ে ছোঁয়া না যাওয়ায় বাসের মধ্যে থাকা একটা নোংরা কম্বল জোর করে ওই কিশোরীর গায়ে জড়িয়ে, কম্বল ধরেই তাকে সিট থেকে টেনে নামানো হয় ৷ এরপর বাসের কনডাক্টর জোর করে টেনে হিঁচড়ে ১৯ বছরের অসহায় মেয়েটিকে  ওই কম্বলসুদ্ধু চলন্ত বাস থেকে রাস্তায় ছুঁড়ে ফেলে দেয় ৷ আগ্রা এক্সপ্রেসওয়ের উপর গুরুতর জখম ও রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকে কিশোরী ৷ কিছুক্ষণের মধ্যে ওখানেই মারাও যায় সে ৷ ঘটনায় প্রথমে কোনও অভিযোগ নিতে চায়নি মথুরা পুলিশ, দাবি নিহতের পরিবারের ৷ বলা হয়, স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে ওই কিশোরীর ৷ পরিবারের অভিযোগ, তাঁকে খুন করা হয়েছে ৷ ঘটনার খবর পেতেই উত্তরপ্রদেশ পুলিশের কাছে রিপোর্ট চায় দিল্লি কমিশন ফর উইমেন ৷ দিল্লি কমিশনের চেয়ারপার্সেন স্বাতী মালিওয়াল ট্যুইটে আশ্বাস দিয়েছেন, এমন ঘৃণ্য অপরাধের জন্য কেউই রেহাই পাবে না ৷ দোষীদের চিহ্নিত করার জন্য তদন্ত শুরু হয়েছে ৷

Published by: Elina Datta
First published: July 10, 2020, 5:26 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर